১০১ প্রতিরক্ষা সামগ্রী আমদানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৩৮, আগস্ট ০৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫৫, আগস্ট ০৯, ২০২০

প্রতিরক্ষা খাতে ব্যবহৃত ১০১টি সামগ্রী বিদেশ থেকে আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারত। দেশটির কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং রবিবার একাধিক টুইট বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এখন থেকে আমদানি নিষিদ্ধ এসব সামগ্রী ভারতেই উৎপাদন করা হবে। আত্মনির্ভর ভারত গড়ার যে ডাক দিয়েছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী, তা বাস্তবায়ন করতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছেন রাজনাথ। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এ খবর জানিয়েছে।

রাজনাথ সিং জানান, ২০২০ থেকে ২০২৪ পর্যন্ত ধাপে ধাপে দেশীয় সংস্থাগুলোর সঙ্গে চার লাখ কোটি রুপির চুক্তি বাস্তবায়িত হবে। একটি হিসাব দিয়ে তিনি বলেছেন, ২০১৫ সালের এপ্রিল থেকে ২০২০ সালের আগস্ট পর্যন্ত ২৬০টি প্রকল্পের মাধ্যমে কমবেশি সাড়ে তিন লাখ কোটি রুপির প্রতিরক্ষা সামগ্রী আমদানি করা হয়েছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বক্তব্য হলো, বাইরে থেকে যা আমদানি করা হয় তা দেশেই তৈরি করা গেলে আর্থিক বিকাশ ঘটবে। এটাই আত্মনির্ভর ভারতের মূলমন্ত্র।

রাজনাথ আরও বলেন, ২০১৫-২০২০ পর্যন্ত সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনীর ১.৩ লাখ কোটি রুপির সামগ্রী ও নৌবাহিনীর জন্য ১.৪ লাখ কোটি রুপির সামগ্রী আমদানি করা হয়েছে ।

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত ভারতের মধ্যে প্রতিরক্ষা শিল্পকে শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড় করাবে। নতুন নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন হবে। যার পুরোটা তত্ত্বাবধান করবে ডিআরডিও।

এর আগে আধাসামরিক ক্যান্টিনে বিদেশি জিনিস বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ভারত। ভারতীয় সেনা ও আধাসামরিক বাহিনীর সদস্য সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। পরিবারের সদস্য মিলিয়ে মোট উপভোক্তার সংখ্যাও মোটামুটি ৫০ লাখ। তাঁদের জন্য দেশে ১১৯টি প্রধান ক্যান্টিন রয়েছে। এছাড়া রয়েছে ১ হাজার ৬৩৫টি ভর্তুকিযুক্ত ক্যান্টিন। এসব ক্যান্টিন থেকে সেনা ও আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যরা সস্তায় পণ্য কিনতে পারেন। সেসব ক্যান্টিনে ১ জুন থেকে শুধুই দেশি সামগ্রী বিক্রি করার নির্দেশ দিয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

/এএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ