আমিরাতের কাছে অত্যাধুনিক এফ-৩৫ বিক্রির বিরোধী ইসরায়েল: নেতানিয়াহু

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৯:৫৯, আগস্ট ২০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৪, আগস্ট ২০, ২০২০

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তিতে উপনীত হওয়ায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের ওপর বেজায় খুশি যুক্তরাষ্ট্র। সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে, ওই চুক্তির পুরস্কার হিসেবে আমিরাতকে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান সরবরাহ করতে যাচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন। তবে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তার দেশ আমিরাতের কাছে এফ-৩৫ বিক্রির যে কোনও উদ্যোগের বিরোধিতা করবে। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় ইসরায়েলের সঙ্গে ব্যাপকভিত্তিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় সম্মত হওয়ার পরই আমিরাতের কাছে এসব যুদ্ধবিমান বিক্রিতে সম্মত হয় হোয়াইট হাউস। বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প নিজেই এর ইঙ্গিত দিয়েছেন।

ট্রাম্প বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত লকহিড মার্টিন করপোরেশনের তৈরি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান কিনতে আগ্রহী। ইসরায়েল আগে থেকেই এটি ব্যবহার করে আসছে। এখন আমিরাতের আগ্রহের বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, আমিরাতের কাছে ব্যয়বহুল এসব যুদ্ধবিমান বিক্রিতে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহ থাকলেও এ নিয়ে মিত্র ইসরায়েলের বিরোধিতার মুখে পড়তে হচ্ছে দেশটিকে।

আমিরাত ইসরায়েলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বজায় রাখার মরিয়া চেষ্টা চালালেও দেশটিতে অত্যাধুনিক মার্কিন যুদ্ধবিমান পাঠানোর তীব্র বিরোধিতা করেছে ইসরায়েল। দুই দেশের চুক্তির পরও মঙ্গলবার ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্রকাশ্যেই এ উদ্যোগের সমালোচনা করেছেন।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা ছিল, ইসরায়েলের সঙ্গে আমিরাতের সম্পর্ক স্বাভাবিক হওয়ায় দেশটিতে মার্কিন অস্ত্র বিক্রির সুযোগ আরও বাড়বে। তবে বাস্তবে একেবারেই শুরুতেই এটি হোঁচট খেলো।

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হতে পারে; এমন আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র তার অত্যাধুনিক সামরিক সরঞ্জাম আরব দেশগুলোর কাছে বিক্রি করে না।

এদিক এফ-৩৫ নিয়ে নেতানিয়াহুর বিরোধিতা সত্ত্বেও ইসরায়েলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা জোরদারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে আমিরাত। দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ঘোষণার মাত্র কয়েক দিনের মাথায় উচ্চ পর্যায়ের সফর বিনিময় শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে নিরাপত্তা ইস্যু পর্যালোচনায় আমিরাত সফর করেছেন ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রধান ইয়োসি কোহেন। আর প্রথমবারের মতো আমিরাতি একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

মঙ্গলবার আমিরাতের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, নিরাপত্তা সহযোগিতা নিয়ে মোসাদ প্রধানের সঙ্গে কথা বলেছেন আমিরাতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা শেখ তাহনাউন বিন জায়েদ আল নাহিয়ান। আলোচনায় নিরাপত্তা সহযোগিতার সম্ভাবনা এবং আঞ্চলিক উন্নয়ন ও অভিন্ন স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে কথা হয়।

আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান নিয়ে কোনও আলোচনা হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে কিছু জানা যায়নি।

/এমপি/

লাইভ

টপ
X