শিক্ষকদের বিনামূল্যে ২১ হাজার টিকিট দিচ্ছে কাতার এয়ারওয়েজ

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:০৭, অক্টোবর ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:১০, অক্টোবর ০৫, ২০২০

কাতার এয়ারওয়েজের উড়োজাহাজবিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে ২১ হাজার সৌজন্য টিকিট দিচ্ছে কাতার এয়ারওয়েজ। চলমান কোভিড-১৯ মহামারির কঠিন সময়ে বিশ্বব্যাপী ছেলেমেয়েদের শিক্ষাদানে গুরুত্বপূর্ণ কাজ করায় শিক্ষকদের ধন্যবাদ জানানোর অংশ হিসেবে উদ্যোগটি নিয়েছে কাতারের রাষ্ট্রীয় এই বিমান সংস্থা। বাংলাদেশের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানকারী, টিউটর, শিক্ষার্থী পরামর্শদাতা, প্রাথমিক শিক্ষক, মাধ্যমিক শিক্ষকরাও চাইলে অফারটি নিতে পারেন। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। 
আজ (৫ অক্টোবর) কাতার সময় ভোর ৪টা থেকে বিনামূল্যে বিভিন্ন গন্তব্যের ইকোনমি ক্লাসের রিটার্ন টিকিট দেওয়া শুরু করেছে কাতার এয়ারওয়েজ। তিন দিনের ক্যাম্পেইনটির অংশ হিসেবে আগামী ৭ অক্টোবর দিবাগত রাত ৩টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত এগুলো বিতরণ করা হবে।
শিক্ষকতা পেশার সঙ্গে যুক্তরা বিশেষ অফারটি পেতে qatarairways.com/ThankYouTeachers ওয়েবসাইটে একটি ফরম জমা দিয়ে নিবন্ধন করলে মিলে যাবে প্রোমোশন কোড। যারা আগে আবেদন করবেন তারা আগে টিকিট পাবেন।

কাতার এয়ারওয়েজ যে ৭৫টি দেশের ৯০টিরও বেশি গন্তব্যে তাদের ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে সেগুলোর নাগরিকদের জন্যই কেবল এই সুযোগ উপভোগ করা যাবে। বিতরণ প্রক্রিয়া সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ রাখতে আবেদনকারীর দেশের জনসংখ্যার আকারের ওপর ভিত্তি করে প্রতিদিন নির্দিষ্টসংখ্যক টিকিট বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে।
শিক্ষকরা রিটার্ন টিকিটের সঙ্গে উপহার হিসেবে একটি ভাউচার পাবেন। এর মাধ্যমে আগামীতে নিজের, পরিবারের সদস্য কিংবা বন্ধুদের বেলায় কাতার এয়ারওয়েজের রিটার্ন টিকিটে ৫০ শতাংশ মূল্যছাড় পাবেন। ২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত যেকোনও গন্তব্যে ভ্রমণ করা যাবে। বিমানবন্দরে চেক-ইনের সময় শিক্ষকতা পেশায় যুক্ত থাকার বৈধ আইডি উপস্থাপন করা আবশ্যক। বিমানবন্দরের কর সৌজন্য টিকিটের অন্তর্ভুক্ত নয়, তাই এটি যাত্রীকেই দিতে হবে।
শুধু তাই নয়, সৌজন্য টিকিটের জন্য নিবন্ধনকারী শিক্ষকরা কাতার এয়ারওয়েজের আগামী বুকিংয়ের ক্ষেত্রে সুবিধা পেতে পারেন। এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ইস্যুকৃত টিকিটের ক্ষেত্রে দুই বছর মেয়াদে যেকোনও সময় বিনামূল্যে যাত্রা ও ফেরার তারিখ পরিবর্তন করা যাবে। 

কাতার এয়ারওয়েজ গ্রুপের প্রধান নির্বাহী আকবর আল বাকের বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী পেশাদার শিক্ষকরা এই অনিশ্চয়তার সময়ে আন্তরিকভাবে ছেলেমেয়েদের শিক্ষাদান করে চলেছেন, এজন্য কাতার এয়ারওয়েজের পক্ষ থেকে তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আমরা জানি, এটি কোনও সহজ কাজ নয়। তবুও শিক্ষকরা অনলাইন ক্লাসসহ অন্যান্য পদ্ধতি বেছে নিয়েছেন।’

বিমান সংস্থাটির প্রধান নির্বাহী উল্লেখ করেন, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সময় নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করেছে কাতার এয়ারওয়েজ। সম্প্রতি ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা পুনরায় শুরু করতে চার্টার্ড ও শিডিউল ফ্লাইটের মাধ্যমে যার যার গন্তব্যে পৌঁছে দিতে সহায়তা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আকবর আল বাকেরের কথায়, ‘এয়ারলাইন হিসেবে শিক্ষার গুরুত্বে আমরা বিশ্বাসী এবং শিক্ষাক্ষেত্রে সহায়তা প্রদানে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’
২০১৩ সাল থেকে সুবিধাবঞ্চিতদের শিশুদের শিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধির জন্য এডুকেশন অ্যাবাভ অল’স এডুকেট অ্যা চাইল্ড প্রকল্পের গর্বিত পৃষ্ঠপোষক কাতার এয়ারওয়েজ। অনলাইন বুকিং প্রক্রিয়ায় টিকিটের মূল্য পরিশোধের অংশে যাত্রীদের ‘এডুকেট অ্যা চাইল্ড’ প্রকল্পে অনুদান দেওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়। ইনফ্লাইট এন্টারটেইনমেন্টে ভিডিও দেখিয়ে অনুদানে উৎসাহিত করে থাকে সংস্থাটি। 

এদিকে আন্তর্জাতিক বিমান পরিবহন সংস্থার (আইএটিএ) তথ্যানুযায়ী, গত এপ্রিল থেকে জুলাই পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়া মানুষকে ঘরে ফিরতে শতাধিক চার্টার ফ্লাইট পরিচালনা করেছে কাতার এয়ারওয়েজ। দোহার হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এই সংস্থার মূল কেন্দ্র। এখানে যাত্রীদের সংস্পর্শ থাকা জায়গা প্রতি ১০-১৫ মিনিট পরপর জীবাণুনাশক দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। প্রতিটি ফ্লাইট আসা-যাওয়ার পর বোর্ডিং ফটক ও বাসে ওঠার দরজা কাউন্টার পরিষ্কার করা হয়। ইমিগ্রেশন ও নিরাপত্তা স্ক্রিনিং পয়েন্ট হ্যান্ড স্যানিটাইজার রয়েছে।
স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কাতার এয়ারওয়েজ উড়োজাহাজের অভ্যন্তরে যাত্রীদের সৌজন্য ডিসপোজেবল ফেস শিল্ড ও সুরক্ষা কিট দিচ্ছে। কেবিন ক্রুদের জন্য রয়েছে পিপিই। বিজনেস ক্লাসের যাত্রীরা কিউস্যুটে নিজের মতো করে থাকার সুবিধা পাচ্ছেন। কাতারের ফ্লাইটে এটি ফ্রাঙ্কফুর্ট, কুয়ালালামপুর, লন্ডন ও নিউইয়র্কসহ ৩০টিরও বেশি গন্তব্যে রয়েছে। 

 

/জেএইচ/
টপ