করোনা ঝুঁকির মধ্যেই উপনির্বাচনে ভোট চলছে

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০৯:০৩, মার্চ ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪৬, মার্চ ২১, ২০২০

ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ভোট শুরুঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। শনিবার (২১ মার্চ) সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে ভোট শেষ হবে বিকাল ৫টায়। ইভিএম ব্যবহারে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকির কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। তবে হাতের মাধ্যমে যাতে জীবাণু না ছড়ায় সেজন্য ভোটকেন্দ্রে স্যানিটাইজার ও টিস্যু রেখেছে নির্বাচন কমিশন।ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ভোট শুরু

রাজধানীর ধানমন্ডি, নিউমার্কেট, কলাবাগান, শেরে-ই বাংলা ও লালবাগ থানা এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা-১০ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ছয়জন প্রার্থী। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিএনপির শেখ রবিউল আলম, জাতীয় পার্টির হাজী মো. শাহজাহান, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের কাজী মুহাম্মদ আবদুর রহিম, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের নবাব খাজা আলী হাসান আসকারী ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. মিজানুর রহমান।ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে ভোট

এ আসনে ভোটার তিন লাখ ২১ হাজার ২৭৫ জন। আর ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১১৭টি ও ভোটকক্ষ ৭৭৬টি। শুক্রবার রাজধানীর টিচার্স ট্রেনিং কলেজ থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ইভিএম পাঠানো হয়েছে। ভোটকেন্দ্রের ঝুঁকি বিবেচনায় পুলিশ ও আনসারের ১৪ থেকে ১৬ জন মোতায়েন করা হয়েছে। নির্বাচনি এলাকায় ছয় প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। রয়েছে র‌্যাবের টহল টিম।ঢাকা-১০ আসনের ভোটার

তবে কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে ভোটারদের উপস্থিতি কম দেখা গেছে। ভোট শুরুর পর প্রথম ২৫ মিনিটে তিনজন ভোট দিয়েছেন লেক সার্কাস উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে। প্রথম ভোটার আসেন ৯টা ১০ মিনিটে। ভোট প্রদান শেষে ভোটার অভয় ঘোষ জানান, ভোট দিতে পেরেছেন, কিন্তু হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে দেওয়া হয়নি। ভোট গ্রহণের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা জানিয়েছেন এর আগে কেউ ভোট দেননি। তাই পরিষ্কার করতে হবে না।গ্লাভস পরে দায়িত্ব পালন করছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও

অভয় ঘোষ বলেন, ‘আমি নিজেই সঙ্গে করে স্যানিটাইজার নিয়ে এসেছি। সেটা দিয়ে ভোট দিয়ে হাত পরিষ্কার করেছি।’

ছবি: নাসিরুল ইসলাম।

  

/আরজে/এফএস/

লাইভ

টপ