X
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
২০ মাঘ ১৪২৯

ছেলেকে ঘরে থাকতে বলে ফিরতে পারলেন না রুবিনা

কবির হোসেন
০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:০৫আপডেট : ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৪:৩১

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত বছর ডিসেম্বর মারা যান মাহাবুব রহমান খান ডলার। স্বামীর মৃত্যু পর একমাত্র সন্তান রুহানকে আঁকড়েই দিন কাটছিল রুবিনা আক্তারের (৪৫)। ভোরে ঘুম থেকে উঠে স্কুলের জন্য ছেলেকে তৈরি করা, সাড়ে ৭টায় স্কুলে নিয়ে যাওয়া, দুপুর ১টায় ছেলেকে নিয়ে বাসায় ফেরা, রাতে ছেলে ঘুমাতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত ছেলেকে সময় দেওয়া। এভাবেই সন্তানকে নিয়ে ব্যস্ততায় সময় কেটে যেতো রুবিনার। শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) রুহানকে বাসায় রেখে বের হন তিনি। ঘর থেকে যেন কোনোভাবেই বের না হয়, এই কথা বলে সাবধান করে যান সন্তানকে। তবে সেই ঘরে বুকের মানিকের কাছে আর ফেরা হলো না রুবিনা আক্তারের। বাবার মৃত্যুর এক বছর পূর্ণ হওয়ার আগেই মাকে হারালো রুহান।  

তেজগাঁওয়ে ৭৫/২ তেজকুনি পাড়ার বাসায় ছেলে রুহান, ননদ আর ননদের স্বামী (দুর্ঘটনায় আহত) নুরুল আমিনের সঙ্গে বসবাস করছিলেন রুবিনা আক্তার। চার তলা বাসার দ্বিতীয় তলায় তাদের ফ্ল্যাট। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, আহাজারিতে ভারী পরিবেশ। স্বজনরা রুহানকে নিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন।

রুবিনার ননদ আবেদা সুলতানা জানান, এই বাড়িটি তাদের নিজের। বাসার দেখাশোনার করতেন তার ভাই ও রুবিনার স্বামী মাহাবুব রহমান খান ডলার। তিনি মারা যাওয়ার পর তাদের আরেক ভাই ডেভিড বাড়ির দেখভাল করেন। তবে ব্যবসার কাজে ডেভিড টাঙ্গাইলেই বেশিরভাগ সময় থাকেন।

আবেদা বলেন, ‘২০১৭ সালে মারা যান আমার মা। এরপর মারা যান আমার আরেক ভাই ডন। চলে গেছেন আমার ভাই ডলার। শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) সড়ক দুর্ঘটনায় আমাদের রেখে চলে গেলেন ভাবি। আমরা কী নিয়ে বাঁচবো!’

কথা বলার সময়ই খালার সঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে রুবিনার একমাত্র ছেলে রুহান। ঘরে ঢোকা মাত্রই তাকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন স্বজনরা। রুহান অষ্টম শ্রেণিতে পড়ালেখা করে তেজগাঁও ক্যাথলিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। একমাত্র সন্তানকে স্কুলে আনা-নেওয়াসহ তার দেখভালের সব কাজ করতেন মা নিজেই।

রুবিনার মেঝ বোন রোকসানা বেগম আহাজারি করতে করতে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখন আমি আমার বোনকে পাবো কোথায়! যখনই কিছু দরকার হতো আমার সঙ্গে সে শেয়ার করতো। নিউ মার্কেটে যখনই যেত আমার বাসা হয়ে আসতো। সে একা কোথায় যেতও না। গাড়িতে উঠতে ভয় পেতো। আজ আমার বোনের কী হলো! ছেলেটাকে এতিম করে আমাদের রেখে কোথায় চলে গেল আমার বোন!’ কথাগুলো বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। কিছুক্ষণ পর আবার বলেন, ‘একজন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক কীভাবে এমন কাজ করতে পারে। গাড়ির চাকার নিচে এভাবে কী করে এতদূর নিতে পারে।’

রোকসানা জানান, তাদের বাড়ি ঢাকার হাজারীবাগ এলাকায়। তাদের মা-বাবা কেউ বেঁচে নেই এখন। রুবিনার মৃত্যুর পর রুহানের দেখাশোনা করবে তার চাচা ও মামা।  

খালার পাশে বসা রুহান বলে, ‘বাসা থেকে বের হওয়ার আগে মা আমাকে নিষেধ করেছিলেন আমি যেন বাসা থেকে বের না হই। মা সবসময় বলতেন বড় হয়ে লেখাপড়া করে আমি যেন ইঞ্জিনিয়ার হই। এখন তো মা-ই নেই!’

এদিকে রুবিনার মামাশ্বশুর শহিরুল ইসলাম খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা পারিবারিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রুবিনার মরদেহ তার মা-বাবার কবরের পাশেই আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করবো।’

উল্লেখ্য, শুক্রবার ( ২ ডিসেম্বর)  বিকালে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের পাশে কবি কাজী নজরুল ইসলামের সমাধির উল্টোপাশের রাস্তায় রুবিনাকে বহন করা মোটরসাইকেলের পেছনে ধাক্কা দেয় একটি প্রাইভেটকার। এতে তিনি মোটরসাইকেল থেকে রাস্তায় পড়ে যান, শরীর আটকে যায় প্রাইভেটকারের নিচে। পরে প্রাইভেটকার-চালক, ঢাবির  আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সাবেক সহকারী অধ্যাপক এমডি আজাহার জাফর শাহ গাড়ি না থামিয়ে বেপরোয়া গতিতে টিএসসি চত্বর হয়ে নীলক্ষেতের দিকে টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যান রুবিনাকে।

খবর পেয়ে পুলিশ এসে গুরুতর আহত রুবিনা ও তার ননদের স্বামী রুহুল আমিনকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে নেওয়ার পর রুবিনাকে মৃত ঘোষণা করে কর্তব্যরত চিকিৎসক।

শুক্রবার শাহবাগ থানায় এ ঘটনা নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে  ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহ জানিয়েছেন এটা সড়ক দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড। শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর মোহাম্মদ জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে শুক্রবার গভীর রাতেই নিহত রুবিনা আক্তারের ভাই জাকির হোসেন সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা করেছেন। রুবিনাকে গাড়িচাপা দিয়ে টেনে নেওয়া চালক আজহার জাফর শাহকে মামলায় আসামি করা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০১৮ সালে নানা অভিযোগে চাকরিচ্যুত করা হয় আজহার জাফর শাহকে।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) রুবিনার  মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে জানান তার ভাই ও মামলার বাদী জাকির হোসেন।

আরও পড়ুন- 

গাড়িচাপায় নিহত নারীর মরদেহ হস্তান্তর, শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

শাহবাগে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় মৃত্যু দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড: রমনা ডিসি

ঢাবির সাবেক শিক্ষকের গাড়িচাপায় নারীর মৃত্যু, গণপিটুনি

/এফএস/
সর্বশেষ খবর
সড়কে লাশ হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী
সড়কে লাশ হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সীমান্ত থেকে আহত অবস্থায় এক যুবককে উদ্ধার
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সীমান্ত থেকে আহত অবস্থায় এক যুবককে উদ্ধার
রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের মঞ্চ ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ
রংপুরে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশের মঞ্চ ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ
নিজের বিয়েতে নাচতে হবে কিয়ারাকে, এটাই রীতি!
নিজের বিয়েতে নাচতে হবে কিয়ারাকে, এটাই রীতি!
সর্বাধিক পঠিত
যা থাকছে ভূমি অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার আইনে
যা থাকছে ভূমি অপরাধ প্রতিরোধ ও প্রতিকার আইনে
‘বারবার বলেছি আর মারিস না’
‘বারবার বলেছি আর মারিস না’
যুক্তরাষ্ট্রে উড়ছে চীনের গোয়েন্দা বেলুন, প্রস্তুত এফ-২২ যুদ্ধবিমান
যুক্তরাষ্ট্রে উড়ছে চীনের গোয়েন্দা বেলুন, প্রস্তুত এফ-২২ যুদ্ধবিমান
৫০০ ছাত্রীর মধ্যে নিজেকে একা দেখে জ্ঞান হারালো ছাত্র
৫০০ ছাত্রীর মধ্যে নিজেকে একা দেখে জ্ঞান হারালো ছাত্র
৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি, ৮ ঘণ্টা পর মিললো লাশ
৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি, ৮ ঘণ্টা পর মিললো লাশ