X
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

মুক্তিযুদ্ধে সবচেয়ে বেশি ত্যাগ স্বীকার করেও উপেক্ষিত নারীরা: শাহরিয়ার কবির

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৯:৫৯আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৯:৫৯

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর নারীরা সবচাইতে বেশি ত্যাগ স্বীকার করলেও স্বীকৃতির ক্ষেত্রে তারা উপেক্ষিত বলে মন্তব্য করেছেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজ’ কর্তৃক আয়োজিত ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও জেনোসাইড বক্তৃতামালা’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের গবেষণা ও গ্রন্থাগার বিভাগের ব্যবস্থাপক ড. রেজিনা বেগম।

শাহরিয়ার কবির বলেন, পাকিস্থানিরা ধর্ষণকে গণহত্যার অনুসজ্ঞ হিসেবে ব্যবহার করেছে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধে শতকরা ৯৯ ভাগ শহীদ পরিবার প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর। শতকরা ৯৯ ভাগ নির্যাতিত নারী প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর। যেকোনও যুদ্ধে সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী হচ্ছে নারীরা। ১৯৯২ সালে গণ আদালতে কুষ্টিয়া থেকে তিন জন বীরাঙ্গনা নারী এসেছেন। যুদ্ধকালীন নির্যাতনের বর্ণনা দিতে এসেছেন তারা। পরবর্তীতে তাদের স্বপক্ষে কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে গ্রামে তাদের একঘরে করে রাখা হয়। তাদের একজনের সঙ্গে কথা বললে জানায়, তার মেয়েকে শ্বশুর বাড়ি থেকে পাঠিয়ে দিয়েছে এই ঘটনার পর। অন্যজন জানায়, তার ছেলেকে রাইস মিল থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, তারামন বিবিকে যখন বীরপ্রতিক খেতাব দেওয়া হয় তখন বীর উত্তম একজন প্রতিবাদ করে বলেছেন তারামন বিবি মুক্তিযোদ্ধাদের খাবার রান্না করেছে। এছাড়া কী এমন করেছে। এই হচ্ছে আমাদের মানসিকতা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. আশফাক হোসেন বলেন, প্রান্তিক নারীদের কথা আমাদের গবেষণায় সেরকম করে আসেনি। পাকিস্থানিরা যতটা আমাদের সমাজের উচ্চ শ্রেণির নারীদের ওপর অত্যাচার করেছে, তার চেয়ে তীব্র গতিতে প্রান্তিক নারীদের ওপর আক্রমণ করেছে। প্রান্তিক নারীদের কথা আমাদের গবেষণায় আরও বেশি করে তুলে আনতে হবে। এই কাজটা আমাদের অসম্পূর্ণ রয়ে গেছে।

মূল প্রবন্ধে ড. রেজিনা বেগম বলেন, বাঙালি নারী তার সংগ্রামী ঐহিত্যের ধারাবাহিকতায় পাকিস্থানবিরোধী আন্দোলনের সূচনালগ্ন থেকে সম্পৃক্ত। সত্তরের নির্বাচনে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগ না হলেও ৭ জন নারী সংরঙ্গিত নারী আসনে নির্বাচিত হন। ২৫ মার্চের পর সশস্ত্র মুক্তিসংগ্রাম শুরু হলে সেই সংগ্রামের সশস্ত্র পর্বে নারীর অংশগ্রহণ কিছুটা সীমিত আকারে হয়, কারণ হিসেবে দেখা যায় পিতৃতান্ত্রিক সমাজ কাঠামোয় নীতিগত সিদ্ধান্তের অভাব, অস্ত্রের অভাব। তা সত্ত্বেও দেখা যায় দেশের অভ্যন্তরে আঞ্চলিক বাহিনীর তত্ত্বাবধানে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কিছু নারী সরাসরি সশস্ত্র যুদ্ধে জড়িত হন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজের পরিচালক অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন প্রজন্ম একাত্তরের প্রতিষ্ঠাতা সাংস্কৃতিক সম্পাদক শহীদ কন্যা ডা. নুজহাত চৌধুরী, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. পারভীন জলী।

/এএইচএ/আরআইজে/
সম্পর্কিত
আসকের আলোচনা সভায় বক্তারাযৌন হয়রানি প্রতিরোধে পূর্ণাঙ্গ আইনের দাবি
নারী সমাজকে জাগ্রত করতে হবে: নানক
‘দেশের অর্থনীতির মূল স্রোতে নারীর অংশগ্রহণ খুবই জরুরি’
সর্বশেষ খবর
পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি
পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি
মৃত্যুর ৬ মাস পর কবর থেকে তোলা হলো আ.লীগ নেতার মরদেহ
মৃত্যুর ৬ মাস পর কবর থেকে তোলা হলো আ.লীগ নেতার মরদেহ
মস্কোতে হামাস-ফাত্তাহ বৈঠক, আলোচনায় ফিলিস্তিনি ঐক্য
মস্কোতে হামাস-ফাত্তাহ বৈঠক, আলোচনায় ফিলিস্তিনি ঐক্য
টঙ্গী থানার সাবেক ওসি ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
টঙ্গী থানার সাবেক ওসি ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
সর্বাধিক পঠিত
ডাল খেলে গ্যাস্ট্রিক হচ্ছে? জেনে নিন ৫ টিপস
ডাল খেলে গ্যাস্ট্রিক হচ্ছে? জেনে নিন ৫ টিপস
তবে কি হারিয়ে যাচ্ছে গণঅভ্যুত্থানের স্মৃতিজড়িত ফার্মগেটের আনোয়ারা পার্ক?
তবে কি হারিয়ে যাচ্ছে গণঅভ্যুত্থানের স্মৃতিজড়িত ফার্মগেটের আনোয়ারা পার্ক?
বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন দল কত টাকা পাবে জানালো বিসিবি
বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন দল কত টাকা পাবে জানালো বিসিবি
বিদ্যুতের বর্ধিত দাম কার্যকর হবে ফেব্রুয়ারি থেকেই
বিদ্যুতের বর্ধিত দাম কার্যকর হবে ফেব্রুয়ারি থেকেই
কেন চালু হচ্ছে না ফাইভ-জি?
কেন চালু হচ্ছে না ফাইভ-জি?