মধ্যরাতে সাংবাদিক আরিফকে সাজা: কুড়িগ্রামের ডিসির বিচারের দাবি গণসংহতির

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:২৫, মার্চ ১৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১০, মার্চ ১৪, ২০২০

গণসংহতি আন্দোলন

বাংলা ট্রিবিউনের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে গভীর রাতে ধরে নিয়ে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজা দেওয়ার প্রতিবাদ ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে গণসংহতি আন্দোলন।

শনিবার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যায় দলটির প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি ও নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল এক বিবৃতিতে সাংবাদিক আরিফের মুক্তি দাবি করেন। একইসঙ্গে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মোছা. সুলতানা পারভীনসহ এ ঘটনায় জড়িত প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বিচার দাবি করেন।

গণসংহতির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত বাচ্চু ভুঁইয়া স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘জনগণের ম্যান্ডেটহীন আওয়ামী সরকার বর্তমানে পুলিশ প্রশাসন ও আমলাতন্ত্রের ওপর নির্ভর করে অবৈধভাবে ক্ষমতায় টিকে আছে। এই পরিস্থিতি রাষ্ট্রের জনগণের প্রতি ন্যূনতম দায়িত্ববোধ দেখাতে পারছে না।’

এতে আরও বলা হয়, ‘বাংলা ট্রিবিউনের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলামকে নিয়মবহির্ভূতভাবে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা এই গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করি এবং ক্ষমতার অপব্যবহারকারী কুড়িগ্রাম জেলার ডিসি ও ম্যাজিস্ট্রেটের বিচার দাবি করছি।’

আরও পড়ুন:

 


মধ্যরাতে আরিফকে গ্রেফতার করে সাজা: রংপুরের বিভাগীয় কমিশনারকে তদন্তের নির্দেশ

‘ডিসি অফিসে নিয়ে সাংবাদিক আরিফকে চোখ বেঁধে বিবস্ত্র করে পেটানো হয়’

আরিফের ওপর অন্যায় হয়ে থাকলে ডিসিকে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হবেপ্রতিমন্ত্রী

‘রাতে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকতে পারেন না মোবাইল কোর্ট’

মোবাইল কোর্টে আরিফকে সাজায় ক্ষুব্ধ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, তদন্তের নির্দেশ

কুড়িগ্রামের ডিসির বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রীকে প্রশ্ন করতে বললেন আইনমন্ত্রী

‘তুই অনেক জ্বালাচ্ছিস- বলে মারতে মারতে নিয়ে যায় আরিফকে’

মধ্যরাতে বাড়ি থেকে সাংবাদিককে ধরে নিয়ে মোবাইল কোর্টে এক বছরের জেল

মধ্যরাতে সাংবাদিক আরিফুলকে তুলে নিয়ে গেলো মোবাইল কোর্ট

কাবিখা’র টাকায় পুকুর সংস্কার করে ডিসি’র নামে নামকরণ!

/এসটিএস/টিএন/এমএমজে/

লাইভ

টপ