X
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪
৩ আষাঢ় ১৪৩১

বলে নজর রাখো: গর্ডন গ্রিনিজ

কাজী ইনাম আহমেদ
১৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:৫৮আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০৩:৫১

সত্তর ও আশির দশকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডানহাতি ওপেনিং ব্যাটার ছিলেন গর্ডন গ্রিনিজ। বিশ্বসেরা ক্রিকেটারের পরিচয় ছাপিয়ে বাংলাদেশে তিনি পরিচিত কোচ হিসেবে। ১৯৯৭ সালে তার হাত ধরেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দল পৌঁছে যায় বিশ্বকাপ মঞ্চে। ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফি জয়সহ ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। আইসিসি ট্রফি জয়ের পর থেকেই বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের হৃদয়ে জায়গা করেন নেন গর্ডন গ্রিনিজ। অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পেয়েছেন তিনি।

সাহিত্যের মর্যাদাপূর্ণ আয়োজন ঢাকা লিট ফেস্টের দশম আসরে অংশ নিতে এসেছিলেন গর্ডন গ্রিনিজ। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন তিনি। উৎসবে এক বিকেলে বিসিবি পরিচালক কাজী ইনাম আহমেদের মুখোমুখি হন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই কিংবদন্তি।

কাজী ইনাম আহমেদ: বাংলাদেশে স্বাগতম। ঢাকা লিট ফেস্টে আপনাকে পেয়ে আমরা খুব খুশি। বাংলাদেশ এবং প্রথমবারের মতো লিট ফেস্টে আপনার অংশগ্রহণ নিয়ে কিছু কথা জানতে চাই। ঢাকা লিট ফেস্টে প্রথমবার অংশগ্রহণ এবং দর্শকদের সামনে কথোপকথন নিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা কেমন?

গর্ডন গ্রিনিজ: এখন পর্যন্ত বেশ ভালো। বাংলাদেশে আসা সবসময় আমার জন্য উপভোগ্য, বিশেষ করে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচ থাকার সময় যেসব বন্ধু পেয়েছি তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়। তাই বাংলাদেশে আসা আমি উপভোগ করি।

ঢাকা লিট ফেস্টের একটি সেশনে কথা বলছেন গর্ডন গ্রিনিজ।  ছবি: সাজ্জাদ হোসেন। কাজী ইনাম আহমেদ: ১৯৯৭ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত আপনি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচ ছিলেন। বাংলাদেশে ওই সময় আপনার অনেক বন্ধু তৈরি হয়েছিল। তাদের অনেকের সঙ্গে এখনও আপনার যোগাযোগ রয়েছে। বাংলাদেশে এলে তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চান। লিট ফেস্টে এমনটি বলেছেন আপনি...

গর্ডন গ্রিনিজ: ববি এখনও ক্রিকেট বোর্ডে আছেন। সেই সময় বোর্ডে যারা ছিলেন তারা সবাই মিলে সাক্ষাতের পরিকল্পনা করছি। দুঃখজনক, ববি সম্ভবত অসুস্থ। বাংলাদেশে আমি আসার পর থেকেই আমরা বন্ধু ছিলাম।

কাজী ইনাম আহমেদ: আমি জানি, আপনি ক্রিকেটের খোঁজ-খবর রাখেন নিয়মিত। বিশেষ করে কোনও ক্রিকেটারকে আগ্রহোদ্দীপক মনে হলে তার প্রতি নজর রাখেন। ফলে ক্রিকেটারদের পারফর্ম দেখতে আপনি পছন্দ করেন। গত দশ বছর বা কোচ হওয়ার পর থেকে যেমন ক্রিকেটারদের আপনি খুঁজছিলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ দলে তেমন কাউকে দেখছেন।

গর্ডন গ্রিনিজ: সত্যিকার অর্থে খুব বেশি ক্রিকেটারকে আমি দেখিনি। সাকিবের কথা জানি, সে ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লিগে খেলে। তবে দুর্ভাগ্যবশত অন্য খেলোয়াড়দের কথা খুব একটা জানি না।

কাজী ইনাম আহমেদ: আপনি বলেছেন, আপনার বেড়ে ওঠা বার্বাডোজে এবং পরে ইংল্যান্ড পাড়ি জমান। কিশোর বয়স ইংল্যান্ডেই কেটেছে, কাউন্টি ক্রিকেটও খেলেছেন। কিন্তু পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে খেলার সিদ্ধান্ত নেন। ধরুন, জোফরা আর্চার বর্তমান ইংল্যান্ড দলে খেলছেন। বর্তমান সময়ের ইংল্যান্ড দল অত্যন্ত আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলছে। আপনি কি মনে করেন, এখনকার সময় হলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলকে আপনি বেছে নিতেন? নাকি ইংল্যান্ডের হয়ে খেলতেন?

গর্ডন গ্রিনিজ: আমার কোনও ধারণা নেই। জানি না কোন পথ বেছে নিতাম। তবে মনে হয়, আমি প্রথমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কথা বিবেচনা করতাম। আগেই বলেছি, পুরুষ হোক বা নারী, সবাই নিজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে চায়। আমার মনে হয়, তাদের প্রথম পছন্দ হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গর্ডন গ্রিনিজ।

কাজী ইনাম আহমেদ: আপনার অনেক ভক্ত-সমর্থক সবসময় বলে থাকেন, এখনকার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেললে আপনি একজন শ্রেষ্ঠ টি-টোয়েন্টি ব্যাটার হতেন। আমি নিশ্চিত, এই কথাটি আপনি বারবার শুনেছেন। আপনি ও ডেসমন্ড হেইন্স খেললে নিশ্চিত আক্রমণাত্মক জুটি হতো। আমি জানতে চাই, আপনাদের সময়ে টি-টোয়েন্টি ছিল না। এখন যদি সেই সময়কার ক্রিকেটারদের মধ্যে থেকে টি-টোয়েন্টি ম্যাচের জন্য টপ অর্ডারের পাঁচ-ছয় ব্যাটার পছন্দ করতে বলি সেই তালিকায় কারা থাকবেন।

গর্ডন গ্রিনিজ: বিষয়টি অনেক ব্যাপক। অনেক ভিন্নতা আনার সুযোগ রয়েছে। ’৭০ ও ’৮০-র দশকে যারা খেলেছেন তাদের বেছে নেওয়া যায়। তাদের অনেকেই দীর্ঘদিন আমার সঙ্গে খেলেছেন। কেউ কেউ এসেছেন ও চলে গেছেন, সবসময় ছিলেন না। কিন্তু তারা খেলেছেন, বিরতি নিয়ে আবারও দলে ফিরেছেন। ওই সময় পরিস্থিতি ভিন্ন ছিল। কিন্তু ১৬-১৭ বছর ধরে খেলোয়াড়দের আধিপত্য একই ছিল। ফলে ছয় ক্রিকেটার বেছে নেওয়া কঠিন। আমার মনে হয় এতে করে তাদের নম্বর দেওয়ার মতো একটা কিছু হয়ে যাবে। আমি ওই পুরো গ্রুপটিকেই নেবো এবং তাদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে চাইবো। ক্রিকেট ছিল তাদের সবকিছু, তারা ক্রিকেট ভালোবাসতো। তাদের ইতিবাচক মানসিকতাই দলটিকে এত বছর অপরাজিত রেখেছিল।

কাজী ইনাম আহমেদ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটি ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের মনে ভালোবাসা তৈরি করেছে। যেমনটি ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা ফুটবলের জন্য করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের স্বর্ণযুগে যে দলটি ছিল সেটি অতুলনীয়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স আগের মতো নয়। কী বদলানো দরকার বলে মনে করেন আপনি? অথবা আপনার মতে কীভাবে আগের অবস্থায় ফিরতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট?

গর্ডন গ্রিনিজ: মূল বিষয় হলো ধারাবাহিকতা। কঠিন পরিস্থিতিতে ম্যাচ জিততে হবে; হোক তা টেস্ট, ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি। যেকোনও দলকে ধারাবাহিক হতে হবে। বর্তমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলটির ক্ষেত্রে ধারাবাহিকতা নেই। দলটি মোটেও স্থির নয়। আমার মনে হয়, ক্রিকেটারদের নিজেদের আরও ঢেলে দিতে হবে। নিজেদের খেলার প্রতি আরও দায়িত্বশীল হতে হবে। দলটিতে ব্যক্তিগত নৈপুণ্য খুব একটা দেখা যায় না, যা দলের ওপর প্রভাব ফেলছে। এমনটি ঘটলে দলে প্রতিযোগিতা তৈরি হবে। মান বাড়বে। আমার মনে হয়- ক্যারিবীয় ক্রিকেটের মানের পতন হয়েছে বেশ খানিকটা, যা খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রেও বলা যায়। জাতীয় পর্যায়ে যে মানের ক্রিকেট খেলা হচ্ছে তা খুব একটা ভালো না। এটি পরিবর্তনের জন্য ঘরোয়া ক্রিকেটের মান বাড়াতে হবে। যদি তা সম্ভব হয় তাহলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দলের মানও বৃদ্ধি পাবে।

কাজী ইনাম আহমেদ: পেশাদার ক্রিকেটার হতে চাইলে এবং গুরুত্বের সঙ্গে ক্রিকেট নিতে আগ্রহী ১২-১৫ বছর বয়সী ছেলে কিংবা মেয়ের জন্য আপনার পরামর্শ কী?

গর্ডন গ্রিনিজ: আমার বই থেকে উদ্ধৃত করেই বলি, বলে নজর রাখো।

/এএ/এসএএস/জেএইচ/
সম্পর্কিত
সাক্ষাৎকারআগের চেয়ে মহামারির আশঙ্কা বেড়েছে: সারাহ গিলবার্ট
সাক্ষাৎকারলেখালেখির আনন্দ হলো ভাষার নানা সম্ভাবনা: আবদুলরাজাক গুরনাহ
‘স্যান্ডবক্স: ফিউচার ইজ নাও’
সর্বশেষ খবর
ডিএসসিসির ৬ হাট ও সব ওয়ার্ড থেকে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের দাবি
ডিএসসিসির ৬ হাট ও সব ওয়ার্ড থেকে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের দাবি
আত্মঘাতী গোলে জিতলো ফ্রান্স
এমবাপ্পের নাক দিয়ে রক্ত ঝরলোআত্মঘাতী গোলে জিতলো ফ্রান্স
ঈদের দ্বিতীয় দিনে যতো সংগীতানুষ্ঠান
ঈদের দ্বিতীয় দিনে যতো সংগীতানুষ্ঠান
ফার্গুসনের ইতিহাস, শেষটা জয়ে রাঙালো নিউজিল্যান্ড
ফার্গুসনের ইতিহাস, শেষটা জয়ে রাঙালো নিউজিল্যান্ড
সর্বাধিক পঠিত
জাপান যাওয়ার পথে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বিমান ভেঙে পড়েছে
জাপান যাওয়ার পথে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর বিমান ভেঙে পড়েছে
সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কারা, ম্যাচ কবে?
সুপার এইটে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কারা, ম্যাচ কবে?
নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ
নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ
৩ লাখ মুসল্লি নিয়ে গোর-এ শহীদ ময়দানে ঈদ জামাত
৩ লাখ মুসল্লি নিয়ে গোর-এ শহীদ ময়দানে ঈদ জামাত
চাষির গোয়াল থেকে ব্যাংকারের ঘরে, লালবাবুর কোরবানি যাত্রা
চাষির গোয়াল থেকে ব্যাংকারের ঘরে, লালবাবুর কোরবানি যাত্রা