X
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

মহামারিতে পিছিয়ে পড়েছে নারীরা

আপডেট : ০৮ মার্চ ২০২১, ১৫:০৮

করোনাকালে উদ্যোক্তা ও অনানুষ্ঠানিক খাতের নারী কর্মীদের আয় না থাকা বা কমে যাওয়ায় পারিবারিক টেনশন বেড়ে নারীর মানসিক স্বাস্থ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে দেখা গেছে। ব্র্যাকের এক জরিপ বলছে, ৪৮ শতাংশ উত্তরদাতা মনে করে এই পরিস্থিতিতে তাদের পারিবারিক অশান্তি বেড়েছে। জরিপের তথ্য বলছে, ঘটনাগুলো নারীদের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলেছে। উত্তরদাতাদের ৯৪ শতাংশ যার মধ্যে ৯০ শতাংশ উদ্যোক্তা মনে করেন, অর্থনৈতিক টেনশনের কারণেই তাদের মানসিক স্বাস্থ্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
২০২০ সালের ৮ থেকে ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে জরিপটি করা হয়েছিল। নমুনা জরিপের জন্য মোট ১,৫৯৯ জন নারী উদ্যোক্তা এবং অনানুষ্ঠানিক খাতের কর্মীদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছিল, যার মধ্যে ৫৮৯ জন নারী উদ্যোক্তা এবং এক হাজার নারী শ্রমিক ছিলেন।
মহামারি চলাকালীন নারী উদ্যোক্তাদের পুরুষদের তুলনায় বেশি অর্থনৈতিক মূল্য পরিশোধ করতে হয়েছে। ৯০ শতাংশ সাক্ষাৎকার গ্রহণকারী কোভিড-১৯ মহামারির কারণে বহুমাত্রিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছিলেন। যার ফলে আয় উল্লেখযোগ্য পরিমাণ হ্রাস পেয়েছে। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, মহামারির সময় তাদের মধ্যে ৪১ শতাংশ কর্মীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল। নারী উন্নয়ন ও অধিকার কর্মীরা বলছেন, স্বাভাবিক সময়ে নারী তার অর্থনৈতিক সক্ষমতা দিয়ে নিপীড়ন ঠেকিয়ে রাখার কৌশল নির্ধারণ করে। করোনাকালে নারী-পুরুষ উভয়েরই আয় ক্ষতিগ্রস্ত হলেও নারীকে আলাদাভাবে ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। করোনা পরবর্তীকালে চাকরি বাজারে আবারও তাকে পুরুষের বিপরীতে নতুন করে প্রতিযোগিতা করে টিকে থাকতে হচ্ছে।
ব্র্যাকের প্রিভেন্টিং ভায়োলেন্স অ্যাগেইনস্ট উইমেন ও জেন্ডার জাস্টিস অ্যান্ড ডাইভারসিটির পরিচালক নবনীতা চৌধুরী বলেন, ‘দেখা যাচ্ছে সরকার যে প্রণোদনা ঘোষণা করেছিল সে প্রক্রিয়ায় ঢুকে তা নিতে পারছেন অত্যন্ত কম সংখ্যক নারী। কাজেই যে কথা গত কয়েক মাস ধরেই আমরা বলে আসছি, নারী উদ্যোক্তাদের আবারও ব্যবসায় ফিরিয়ে আনতে সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা নিতে হবে। অনানুষ্ঠানিক খাতে যে নারীরা কাজ হারিয়েছেন তাদের কত শতাংশ আবার কাজে ফিরতে পেরেছেন সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা না থাকায় এবং এরা অনানুষ্ঠানিক খাতের কর্মী হওয়ায় নথিভুক্ত না হওয়ায় তাদের উৎপাদনশীলতার চক্র থেকেই হারিয়ে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ অবস্থায় খুব দ্রুত প্রয়োজনীয় এবং নিয়োগযোগ্য কাজে দক্ষতা উন্নয়ন ঘটিয়ে নারীকে আবার কাজে ফেরানো জরুরি। নাহলে মানসিক অশান্তি, সহিংসতার পাশাপাশি পরিবারগুলোতে অপুষ্টি এবং অশিক্ষাও বাড়বে।’
উই ক্যানের সমন্বয়ক জিনাত আরা হক মনে করেন, ‘অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন মূলত নারীদের সামাজিক অবস্থান এবং তাদের পরিবারে তাদের অবস্থানের সঙ্গে যুক্ত। মহামারিকালে অর্থনৈতিক সঙ্কটের ফলস্বরূপ নারীরা মানসিকভাবে নানা চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হন। অর্থনৈতিক টেনশনের কারণে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার নারীরা কাজে ফিরতে গিয়েও সেসব অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়েই যাচ্ছেন। স্বাভাবিক সময়ে নারী তার অর্থনৈতিক সক্ষমতা দিয়ে নিপীড়ন ঠেকিয়ে রাখার কৌশল নির্ধারণ করে। সেটি যখন সে করতে পারছে না তখন দ্বিগুণ পীড়নের ভেতর দিয়ে যেতে হয়। বাসার পুরুষ সদস্যরা বাইরে যাননি, সন্তানেরা সব বাসায়, তাদের নানা আবদার সব করার পরে নারীর নিজের সময় ছিল না। তার ওপর অর্থনৈতিক বিপর্যয়। সবমিলিয়ে নারীকে নতুন জীবন বাস্তবতায় পড়তে বাধ্য হতে হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
স্বাধীনতার ৫০ বছরেও ন্যায্য মজুরি থেকে বঞ্চিত নারী শ্রমিকরা

পাঁচ সংগ্রামী নারীকে জয়িতা পুরস্কার দিলেন প্রধানমন্ত্রী

সীমান্ত পাহারা থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, সবক্ষেত্রেই সফল নারী

প্রথম সংবাদ পাঠের আনন্দে কাঁদলেন ট্রান্সজেন্ডার তাসনুভা

খেলার জন্য কম ত্যাগ স্বীকার করতে হচ্ছে না সোনামের

‘জাগো মাতা, কন্যা, বধূ, জায়া, ভগ্নী!’

নারী দিবসের উদযাপন হোক নিজের মতো

/এমআর/

সর্বশেষ

মেসির জোড়া গোলে বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন

মেসির জোড়া গোলে বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়ন

কান ধরে ব্যবসা ছেড়ে দিতে চাই, বললেন অ্যাপেক্স এমডি

কান ধরে ব্যবসা ছেড়ে দিতে চাই, বললেন অ্যাপেক্স এমডি

২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে নিভে গেল চলচ্চিত্রের দুই নক্ষত্র

২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে নিভে গেল চলচ্চিত্রের দুই নক্ষত্র

ম্যান সিটিকে হারিয়ে চেলসি ফাইনালে

ম্যান সিটিকে হারিয়ে চেলসি ফাইনালে

দেড় শতাধিক ছবির নায়ক ওয়াসিম আর নেই

দেড় শতাধিক ছবির নায়ক ওয়াসিম আর নেই

আলহামদুলিল্লাহ সব ঠিকঠাক আছে: খালেদা জিয়ার চিকিৎসক এফ এম সিদ্দিকী

আলহামদুলিল্লাহ সব ঠিকঠাক আছে: খালেদা জিয়ার চিকিৎসক এফ এম সিদ্দিকী

‘খালেদা জিয়া বলেছেন সবার প্রপারলি মাস্ক পরা উচিত’

‘খালেদা জিয়া বলেছেন সবার প্রপারলি মাস্ক পরা উচিত’

অন্যমনস্কতার ভেতর বয়ে যাওয়া নিঃশব্দ মর্মর

অন্যমনস্কতার ভেতর বয়ে যাওয়া নিঃশব্দ মর্মর

পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেফতার

পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেফতার

মেনে নেওয়া হবে শ্রমিকদের দাবি

বাঁশখালী হত্যাকাণ্ডমেনে নেওয়া হবে শ্রমিকদের দাবি

মেক্সিকো থেকে কাদের মির্জার ছেলেকে হত্যার হুমকি!

মেক্সিকো থেকে কাদের মির্জার ছেলেকে হত্যার হুমকি!

রোহিতের ৪ হাজার, মুম্বাইয়ের সঙ্গেও পারলো না হায়দরাবাদ

রোহিতের ৪ হাজার, মুম্বাইয়ের সঙ্গেও পারলো না হায়দরাবাদ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনায় নারীদের মৃত্যুহার বাড়ছে

করোনায় নারীদের মৃত্যুহার বাড়ছে

অবশেষে সৌদির অনুমতি পেলো বিমান

অবশেষে সৌদির অনুমতি পেলো বিমান

বাঁশখালী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের হতাহতের ঘটনায় বাপার নিন্দা

বাঁশখালী কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রের হতাহতের ঘটনায় বাপার নিন্দা

রুমে খাবার পৌঁছে না দেওয়ায় ফুডপান্ডার কর্মচারীকে মারধর, যুবক গ্রেফতার

রুমে খাবার পৌঁছে না দেওয়ায় ফুডপান্ডার কর্মচারীকে মারধর, যুবক গ্রেফতার

পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় আসক’র নিন্দা

পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় আসক’র নিন্দা

শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় সমাবেশ

শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় সমাবেশ

কাঁটাবনের প্রাণীরা ভাল আছে (ফটো স্টোরি)

কাঁটাবনের প্রাণীরা ভাল আছে (ফটো স্টোরি)

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন আজ

দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতালের উদ্বোধন আজ

করোনায় শ্রমিকরা অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে: সিপিডি

করোনায় শ্রমিকরা অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে: সিপিডি

স্বাস্থ্য বিধি মানতে নারাজ ‘টিসিবির লাইন’

স্বাস্থ্য বিধি মানতে নারাজ ‘টিসিবির লাইন’

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune