X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বিএডিসিতে অনিয়ম পর্ব-৫

প্রয়োজন ছাড়াই কেনা হয় ৫০ লাখ টাকার যন্ত্র

আপডেট : ১০ জুলাই ২০২১, ০৮:৫৪

নানা অনিয়মে চলছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)। এ নিয়ে বাংলা ট্রিবিউন-এর ধারাবাহিক প্রতিবেদনের পঞ্চম পর্ব থাকছে আজ।

প্রয়োজন ছাড়াই প্রায় অর্ধকোটি টাকার যন্ত্রপাতি কিনেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)। এসব যন্ত্রপাতি ফেলে রাখায় পুরো টাকাটাই যেতে পারে সরকারের ক্ষতির হিসাবে। প্রতিষ্ঠানটির এক নিরীক্ষা প্রতিবেদনে বেরিয়ে এসেছে এ তথ্য।

অয়োজনীয় এসব মেশিন বিক্রি বা এর ক্রয় প্রক্রিয়ায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

জানা গেছে, বিএডিসি’র আওতাধীন হবিগঞ্জের ইটাখোলা প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্র, ঝিনাইদহের দত্তনগর বীজ উৎপাদন খামার ও একই জেলার করিঞ্চা বীজ উৎপাদন খামারের ২০১৬-২০১৭ হতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে হিসাব নিরীক্ষায় দেখা যায়, প্রয়োজন না থাকা সত্ত্বেও বিএডিসি’র প্রধান কার্যালয় হতে সিড ড্রায়ার মেশিন কেনা হয়েছে।

ইটাখোলা বীজ প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্রটির অফিসে বিএডিসির প্রধান কার্যালয় থেকে ২০১৫ সালের ১০ নভেম্বর নতুন সিড ড্রায়ার মেশিন সরবরাহ করা হয়। কিন্তু ওই অফিসে এ যন্ত্র আগেই চারটি ছিল। নতুন ড্রায়ারটির দাম ১৮ লাখ ৩১ হাজার টাকা। লগবইতে দেখা যায় মেশিনটি ২০১৮ সালের অক্টোবর পর্যন্ত ব্যবহারই করা হয়নি।

২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি হতে ১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত ঝিনেইদহের দত্তনগর বীজ উৎপাদন খামারের রেকর্ডপত্র ঘেঁটে দেখা যায়, চাষাবাদের জন্য খুবই ছোট আকারের প্ল্যান্টার মেশিন খামারে পাঠানো হয়। যার দাম ১৩ লাখ ৬৬ হাজার টাকা। এই মেশিন দিয়ে ৫০০ একরের খামারটির পাঁচ একরও চাষাবাদ করা যাবে না। এ ছাড়া মেশিনটি চালানোর মতো টেকনিশিয়ানও নেই সেখানে।

মেশিনটি খামারে বুঝিয়ে দেওয়ার সময় একজন মেকানিক সেটা চালু করেছিলেন। পরে তিনি নিজেও সেটা চাষাবাদের কাজে লাগাতে পারেননি।

একই সময়ে বস্তা সেলাই করার বিদ্যুৎচালিত একটি মেশিন ওই খামারে পাঠানো হয়। ওটাও ছিল অপ্রয়োজনীয়।

এসব অপ্রয়োজনীয় মেশিনারিজ যেখানে প্রয়োজন সেখানে স্থানান্তর বা ক্রয়ের সঙ্গে জড়িতদের দায় দায়িত্ব নির্ধারণ করে অর্থ উদ্ধারের ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে প্রতিবেদনে।

স্বাক্ষর ছাড়াই ১১ লাখ টাকার জ্বালানি!
ইটাখোলা বীজ উৎপাদন খামারে ২০১৬-২০১৭ হতে ২০১৮-১৯ অর্থবছর পর্যন্ত বিভিন্ন বিলের মাধ্যমে প্রায় ১১ লাখ টাকার জ্বালানি তেল কেনা হয়েছে। খামার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এসব জ্বালানি খামারটির উৎপাদন কাজে ব্যবহৃত পাওয়ার টিলার, টাফি, সোনালিকা ও বেলারুশ ট্রাক্টরে ব্যবহার করা হয়েছে।

অফিস সহকারী লগবইতে তেলের বরাদ্দ লিপিবদ্ধ থাকলেও সেখানে পাওয়ার টিলার, ট্রাক্টর ড্রাইভার ও দায়িত্বপ্রাপ্ত কারও স্বাক্ষর নেই। জ্বালানি মজুদ রেজিস্ট্রারও হালনাগাদ করা নেই। আদৌ এ জ্বালানি ব্যবহার হয়েছে কি-না তা নিয়ে প্রতিবেদনে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে।

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বিএডিসি’র চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন প্রকল্প থেকে যন্ত্রপাতি দেওয়া হয়। তখন প্রয়োজন না হলেও ধরে নেওয়া হয় কয়েক বছর পর যদি কোনও মেশিন অকেজো হয় তখন নতুনটা ব্যবহার করা হবে। কিন্তু এটাও আমি সমর্থন করি না। অপ্রয়োজনীয় যন্ত্র কিনে অর্থের অপচয় কোনোভাবেই কাম্য নয়। আমি বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবো।’

/এফএ/
টাইমলাইন: বিএডিসিতে অনিয়ম
১৪ জুলাই ২০২১, ১২:৫৭
১৩ জুলাই ২০২১, ১১:০০
১২ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
০৯ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
প্রয়োজন ছাড়াই কেনা হয় ৫০ লাখ টাকার যন্ত্র

সম্পর্কিত

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

দুর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যস্ত প্রতিমাশিল্পী,  উদযাপনের কিছু শর্ত শিথিল হতে পারে

দুর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যস্ত প্রতিমাশিল্পী,  উদযাপনের কিছু শর্ত শিথিল হতে পারে

নদীর দখল রোধে আবার পিলার

নদীর দখল রোধে আবার পিলার

ঢাকায় ‘জলবায়ু অবরোধ আন্দোলন’ কর্মসূচি

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:১৫

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে ঢাকায় ‘জলবায়ু অবরোধ আন্দোলন’ কর্মসূচি পালন করেছে ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ চেঞ্জ মেকারের স্বেচ্ছাসেবকরা। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, একটি দেশ বা অঞ্চলের আবহাওয়া ও জলবায়ু তার জীবিকা, জীবনযাত্রা ও সংস্কৃতির উপর প্রভাব রাখে। কিন্তু সম্প্রতি জলবায়ু পরিবর্তনে দেশে বেশ কিছু প্রাকৃতিক দূর্যোগসহ প্রকৃতির বিভিন্ন অসামঞ্জস্যতা দেখা গিয়েছে। এর ফলে জনজীবন ও বন্য পশু-পাখি ঝুঁকির মুখে। 

কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, এই দুর্যোগ ও প্রাকৃতিক অসামঞ্জস্যতার মূল কারণ জলবায়ু পরিবর্তন। আর এই জলবায়ু পরিবর্তনে অপরিকল্পিতভাবে নগরায়ন এবং শিল্পায়নের বিস্তার দায়ী। প্রতিনিয়তই পরিবেশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এমন আচরণ করে যাচ্ছে মানবসমাজ। ফলে জলবায়ু এই পরিবর্তনে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সারা বিশ্ব এবং বিলুপ্ত হতে পারে বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী।

তাদের দাবি, খুব দেরি হয়ে যাওয়ার আগেই সবাইকে সচেতন হতে হবে। পরিবেশবান্ধব পণ্য, যন্ত্রাংশ ব্যবহারে নজর দিতে হবে। সমাজের সকল স্তরের জনগণকে এই বিষয়ে সচেতন হতে হবে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে সকলের অংশগ্রহণ করতে হবে।

/জেডএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:০৮

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ চায় ‘সেইভ ফিউচার বাংলাদেশ’। এ লক্ষ্যে দেশের পাহাড়-টিলা, বনাঞ্চল, বন্যপ্রাণী, নদী রক্ষা ও সংরক্ষণসহ প্লাস্টিক দূষণ এবং বায়ুদূষণ রোধে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানায় সংগঠনটি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিশ্বব্যাপী অনুষ্ঠিতব্য জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে আন্দোলন ‘গ্লোবাল ক্লাইমেট স্ট্রাইক’ কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে আয়োজিত মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

সংগঠন থেকে জানানো হয়, বর্তমানে বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশের জনসংখ্যার প্রায় ৪০ শতাংশ শিশুদের জীবন ও ভবিষ্যৎ অন্ধকার করে তুলছে এই বিরূপ জলবায়ুর পরিবর্তন।

মানববন্ধন থেকে আরও বলা হয়, বৈশ্বিক উষ্ণায়নের ফলে হিমালয়ের হিমবাহ গলতে থাকায় সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি এবং প্রাণঘাতী দুর্যোগ ঝুঁকি আরও বাড়ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগও বৃদ্ধি পাচ্ছে। গবেষণা বলছে, ২০৫০ সালের মাধ্যে ২ কোটিরও বেশি মানুষ জলবায়ু উদ্বাস্তু হতে পারে। সমুদ্রের উচ্চতা এক মিটার বৃদ্ধি পেলে বাংলাদেশের ২০ এলাকা পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে এবং এতে বাংলাদেশ উপকূলীয় অঞ্চল সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে তাদের দাবি, উপকূল জুড়ে টেকসই ব্লক বাঁধ নির্মাণসহ উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করতে হবে। জলবায়ু শরণার্থীদের টেকসই পুনর্বাসন করতে হবে। সুপেয় পানির স্থায়ী সমাধান করতে হবে। পরিবেশ-প্রতিবেশ রক্ষা ও সংরক্ষণ করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে এবং প্যারিস অ্যাগ্রিমেন্ট বাস্তবায়ন করতে হবে।

 

 

/জেডএ/আইএ/

সম্পর্কিত

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

ভাষাসৈনিক আহমদ রফিকের পাশে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়

ভাষাসৈনিক আহমদ রফিকের পাশে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়

নেদারল্যান্ডস ভ্রমণের শর্ত শিথিল

নেদারল্যান্ডস ভ্রমণের শর্ত শিথিল

অনলাইনে কারিগরির অ্যাডভান্সড কোর্সে নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

অনলাইনে কারিগরির অ্যাডভান্সড কোর্সে নিবন্ধনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৫০

রাজধানীর বাড্ডা থানা এলাকা থেকে ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) এর গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ। তারা হলেন মো. রুবেল ইসলাম ও নাফিসা আক্তার। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে বাড্ডা থানার উত্তর বাড্ডা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে গোয়েন্দা গুলশান জোনাল টিম।

গুলশান গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মাহবুবুল হক সজীব শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বলেন, ‘মাদক ব্যবসায়ীরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা হতে গাঁজা সংগ্রহ করে ঢাকা হয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিয়ে যাওয়ার জন্য উত্তর বাড্ডা বাসস্ট্যান্ডে অবস্থান করছেন—এমন তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে পালানোর চেষ্টাকালে একজন পুরুষ ও একজন নারীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার রুবেলের সঙ্গে থাকা ল্যাগেজের ভেতর থেকে ৬ কেজি গাঁজা এবং নাফিসার ট্রাভেল ব্যাগ থেকে ৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।’

বাড্ডা থানার মামলায় গ্রেফতারকৃতদের আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মশিউর রহমানের নির্দেশনায় অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. কামরুজ্জামান সরদারের তত্ত্বাবধানে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (টিম লিডার) মাহবুবুল হক সজীবের নেতৃত্বে অভিযানটি পরিচালিত হয়।

 

/আরটি/আইএ/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

অধিভুক্ত কলেজের নাম থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয়’ শব্দ প্রত্যাহারের নির্দেশ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:০৯

অধিভুক্ত কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইনস্টিটিউটগুলোর নামের সঙ্গে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ শব্দের ব্যবহার থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) এই নির্দেশনা জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

নির্দেশনায় বলা হয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ইনস্টিটিউটগুলোতে সংশ্লিষ্ট কলেজের নামের পাশাপাশি তাদের ব্যবহৃত সাইনবোর্ড, বিভিন্ন ব্যানার, কলেজ প্যাড, শিক্ষকদের ভিজিটিং কার্ডসহ বিভিন্ন প্রকাশনায় ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ নাম ব্যবহার করছে। যা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি সংক্রান্ত রেগুলেশন পরিপন্থী।

এই পরিস্থিতিতে আদেশে সংশ্লিষ্ট কলেজ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ইনস্টিটিউটগুলোকে উল্লেখিত কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আদেশে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড, পাছি ও অন্যান্য প্রকাশনা থেকে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ' শব্দটি প্রত্যাহার করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে অবহিত করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্রের স্নাতকোত্তর শিক্ষার ডিন, স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুলের ডিন, কারিকুলাম উন্নয়ন ও মূল্যায়ন কেন্দ্রের ডিন এবং রেজিস্টারসহ সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, দেশের বিভিন্ন অনার্স-মাস্টার্স স্তরের কলেজের সাইনবোর্ড ব্যানার এবং প্রচারপত্রে কলেজের মূল নামের সঙ্গে ‘বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ সংযুক্ত করা হয়। অনেক আগে থেকেই বিষয়টির সমালোচনা করে আসছিলেন সংশ্লিষ্ট মহল।

/এসএমএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩৫

রাজধানীতে সাড়ে ৩ হাজার মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে। সম্প্রতি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের অনুসন্ধান এবং তালিকা এমন তথ্য উঠে এসেছে। তালিকা অনুযায়ী এই সাড়ে ৩ হাজার ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের ঢাকা মেট্রো উত্তরের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঢাকা বিভাগের প্রধান ও অতিরিক্ত পরিচালক ফজলুর রহমান।

তিনি বলেন, তালিকায় থাকা মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে কেউ সরাসরি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত, কেউ পৃষ্ঠপোষক, আবার কেউ অর্থলগ্নিকারী। আমরা ঢাকা বিভাগের মাদক কারবারিদের গ্রেফতারে প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালনা করছি।

সম্প্রতি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের বিভিন্ন অভিযান পরিচালনার জন্য লোকবল ও লজিস্টিক সাপোর্ট কিছুটা বেড়েছে বলেও জানান ফজলুর রহমান।

/আরটি/ইউএস/

সম্পর্কিত

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

বাড্ডায় ১০ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার ২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

ফকিরাপুলে ভিওআইপি সরঞ্জামসহ গ্রেফতার ৪

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

শিল্পকলা একাডেমিতে ‘শরৎ উৎসব’ উদ্বোধন

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

দুর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যস্ত প্রতিমাশিল্পী,  উদযাপনের কিছু শর্ত শিথিল হতে পারে

দুর্গাপূজাকে ঘিরে ব্যস্ত প্রতিমাশিল্পী,  উদযাপনের কিছু শর্ত শিথিল হতে পারে

নদীর দখল রোধে আবার পিলার

নদীর দখল রোধে আবার পিলার

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

বাউবি’র স্থগিত বিএ ও বিএসএস পরীক্ষা  শুক্রবার শুরু

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

১৪ নভেম্বর থেকে দাখিল পরীক্ষা শুরু

১৪ নভেম্বর থেকে দাখিল পরীক্ষা শুরু

সরকারি কর্মচারীদের প্রতিবন্ধী সন্তানের জন্য হচ্ছে দিবাযত্ন কেন্দ্র

সরকারি কর্মচারীদের প্রতিবন্ধী সন্তানের জন্য হচ্ছে দিবাযত্ন কেন্দ্র

‘সাম্প্রদায়িকতাকে উসকে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে’

‘সাম্প্রদায়িকতাকে উসকে দেওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে’

অনূর্ধ ১০ বছর বয়সী ডেঙ্গু রোগীই প্রায় ২৫ শতাংশ

অনূর্ধ ১০ বছর বয়সী ডেঙ্গু রোগীই প্রায় ২৫ শতাংশ

সর্বশেষ

‘বিদ্যালয়ে এসে করোনা আক্রান্তের প্রমাণ পাওয়া যায়নি’

‘বিদ্যালয়ে এসে করোনা আক্রান্তের প্রমাণ পাওয়া যায়নি’

ঢাকায় ‘জলবায়ু অবরোধ আন্দোলন’ কর্মসূচি

ঢাকায় ‘জলবায়ু অবরোধ আন্দোলন’ কর্মসূচি

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি

সহশিল্পীর কারণে তারা ছবিগুলো করতে চাননি

সহশিল্পীর কারণে তারা ছবিগুলো করতে চাননি

হংকংয়ের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ

হংকংয়ের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ

© 2021 Bangla Tribune