X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

এই বছরই ইরাক ছাড়বে মার্কিন বাহিনী

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ১৮:২১
image

এই বছরের শেষ নাগাদ যুদ্ধরত মার্কিন বাহিনী ইরাক ছেড়ে যাবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। যদিও এই সময়ের পর ইরাকের সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ এবং উপদেশ দেওয়া চালিয়ে যাবে মার্কিন সেনাবাহিনী। হোয়াইট হাউজে ইরাকি প্রধানমন্ত্রী মুস্তফা আল-খাদিমির সঙ্গে বৈঠকের পর এই ঘোষণা দিয়েছেন বাইডেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট-এর অবশিষ্টাংশ মোকাবিলায় স্থানীয় বাহিনীকে সহায়তা দিতে বর্তমানে ইরাকে প্রায় আড়াই হাজার মার্কিন সেনা রয়েছে। যুদ্ধরত সেনা তুলে নেওয়া হলেও ইরাকে প্রায় একই সংখ্যক মার্কিন সেনাই থেকে যাবে। তবে যুদ্ধরত সেনা সরিয়ে নেওয়াকে ইরাকি প্রধানমন্ত্রীকে সহায়তা করার পদক্ষেপ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

গত বছর ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি এবং ইরান সমর্থিত একটি শিয়া গোষ্ঠীর নেতাকে হত্যার পর থেকে ইরাকে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি নিয়ে তীব্র বিতর্ক চলছে। রাজধানী বাগদাদে এক ড্রোন হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করে মার্কিন বাহিনী। এ ঘটনার পর ইরান সমর্থিত রাজনৈতিক দলগুলো ইরাক থেকে যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন বিদেশি সেনাদের প্রত্যাহারের দাবি তোলে।

ইরাক থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণার মাধ্যমে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশের শুরু করা আরেকটি যুদ্ধের অবসান ঘটালেন জো বাইডেন। এ বছর তিনি আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

হোয়াইট হাউজে আলোচনার সময় বাইডেন ইরাকি প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘আমরা এই নতুন পর্যায়ে প্রবেশ করলেও আমাদের সন্ত্রাস দমন সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।’ জবাবে আল খাদিমি বলেন, ‘আজ আমাদের সম্পর্ক যেকোনও সময়ের চেয়ে জোরালো। আমাদের সহযোগিতা অর্থনীতি, পরিবেশ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি এবং আরও বহু কিছুতে।’ তিনি জোর দিয়ে বলেন, ইরাকে কোনও যুদ্ধরত বিদেশি সেনার প্রয়োজন নেই।

২০০৩ সালে প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হুসেনকে উৎখাত এবং তার ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্র ধ্বংসের অজুহাতে ইরাকে আগ্রাসন শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন বিদেশি বাহিনী। তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ ‘স্বাধীন ও শান্তিপূর্ণ ইরাকের’ প্রতিশ্রুতি দিলেও দেশটি নিমজ্জিত হয় রক্তক্ষয়ী সাম্প্রদায়িক বিভাজনে।

২০১১ সালে যুদ্ধরত মার্কিন বাহিনী ইরাক ছেড়ে যায়। তবে ইরাক সরকারের অনুরোধে তিন বছর পরে আবারও দেশটিতে প্রবেশ করে তারা। ওই সময়ে দেশটির একটি বিশাল এলাকা নিয়ন্ত্রণ শুরু করে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট। ২০১৭ সালে আইএসের পতন ঘটলেও গোষ্ঠীটির অবশিষ্টাংশ নির্মূলে দেশটিতে থেকে যায় মার্কিন বাহিনী।

/জেজে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

১২ তলা থেকে ঝাঁপ, তারপর...

১২ তলা থেকে ঝাঁপ, তারপর...

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৬

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ অধিবেশনের সাইডলাইনে আসিয়ানভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। সেখানেই এ জোটের প্রতি নিজ দেশের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন তিনি। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র নেড প্রাইস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

বৈঠকে অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন আফগানিস্তান থেকে মার্কিন নাগরিক এবং অন্যান্য দেশের কর্মীদের সরিয়ে নেওয়ার অভূতপূর্ব বৈশ্বিক প্রচেষ্টায় সমর্থনের জন্য আসিয়ান দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানান।

আসিয়ানের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করার পাশাপাশি ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলের আসিয়ানের দৃষ্টিভঙ্গির প্রতি মার্কিন সমর্থনেরও পুনরাবৃত্তি করেন অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

/এমপি/

সম্পর্কিত

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

ভবানীপুর জিতে বিজেপিকে দুর্বল করতে চান মমতা

ভবানীপুর জিতে বিজেপিকে দুর্বল করতে চান মমতা

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০১

মার্কিন পররাষ্ট্রনীতি ইস্যুতে ক্ষোভ প্রকশ করেছেন সমাজতান্ত্রিক কিউবার প্রেসিডেন্ট। আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতির জন্য ওয়াশিংটনকে দায়ী করে প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ বলেন, আফগানিস্তানের পরিস্থিতিই প্রমাণ করে যে সেখানে কী ধরনের রক্তপাত, অস্থিতিশীল সৃষ্টি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দখল কেবল ধ্বংস ডেকে আনে। কোন দেশেই স্বার্বভৌম দেশগুলোর উপর তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছু চাপিয়ে দেওয়ার অধিকার নেই।

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে রেকর্ড করা ভিডিও বার্তায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে এমন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা তিনি।

গত মাসে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র যখন বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে তড়িঘড়ি করে সেনা প্রত্যাহার করে নেয়। সেই সময় এ ঘটনাকে পররাষ্ট্রনীতির ইতিহাসে বিপর্যয় আ্যাখা দেন কিউবার প্রেসিডেন্ট।

/এলকে/
টাইমলাইন: আফগানিস্তান সংকট
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৫৪
‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:২৫
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:২৯
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:১৮

সম্পর্কিত

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

তালেবান শাসনে বন্ধ আফগানিস্তানের ১৫০টি পত্রিকা

তালেবান শাসনে বন্ধ আফগানিস্তানের ১৫০টি পত্রিকা

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৩৫

কোভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে সুরক্ষা দেয় এমন একটি তরল ওষুধ আবিষ্কারের দাবি করা শ্রীলঙ্কার এক আধ্যাত্মিক রোগ নিরাময়কারীর মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এলিয়ান্থা হোয়াইট নামের এই ওঝা তারকা খেলোয়াড় ও শীর্ষ রাজনীতিকদের ওই ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করেছেন। তার দাবি ছিল, তিনি স্বপ্নে এই নিরাময় পেয়েছেন। পরিবারের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে।

এলিয়ান্থা হোয়াইটের দাবি ছিল, নদীতে তার এই নিরাময় ঢেলে দিলে শ্রীলঙ্কা ও প্রতিবেশী ভারতে করোনাভাইরাস মহামারির ইতি ঘটবে। 

৪৮ বছর বয়সী এই ব্যক্তি এই মাসের শুরুতে ভাইরাসে আক্রান্ত হন। পরিস্থিতির অবনতি হলে তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয়।

করোনার বিরুদ্ধে তার এই ওষুধ কার্যকর বলে প্রকাশ্যে দাবি করেছেন দেশটির সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী পবিত্র ওয়ান্নিয়ারাচ্চি। যদিও করোনায় আক্রান্ত হয়ে তাকেও দুই সপ্তাহ ইনটেনসিভ কেয়ারে থাকতে হয়েছিল।

বেশ কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেট তারকাকে চিকিৎসা দিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি। কিন্তু তার এই চিকিৎসা মূলধারার চিকিৎসকরা প্রত্যাখ্যান করেছেন।  

২০১০ সালে ভারতের ক্রিকেট কিংবদন্তী সচিন টেন্ডুলকার প্রকাশ্যে তাকে ধন্যবাদ জানান। তখন টেন্ডুলকার বলেছিলেন, এই ব্যক্তি তার হাঁটুর জখম সারিয়ে তুলেছেন। শ্রীলঙ্কার বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসেও স্বাস্থ্যগত পরামর্শ দিয়েছেন এলিয়ান্থা। তার মৃত্যুতে টুইটারে সমবেদনা জানিয়েছেন লঙ্কান প্রধানমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার কোভিড বিধি মেনে এলিয়ান্থা হোয়াইটের মরদেহ সমাহিত করা হয়েছে।

/এএ/

সম্পর্কিত

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

ভবানীপুর জিতে বিজেপিকে দুর্বল করতে চান মমতা

ভবানীপুর জিতে বিজেপিকে দুর্বল করতে চান মমতা

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

‘টিকায় বৈষম্য মানবতার জন্য কলঙ্ক’

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:১০

চাহিদা মোতাবেক বিশ্বের অনেক দরিদ্র এবং উন্নয়নশীল দেশ করোনার প্রতিষেধক টিকা পাচ্ছে না। এতে ওইসব দেশে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুর লাগাম টানা কষ্টকর হয়ে পড়ছে। এমন অবস্থায় টিকায় বৈষম্যকে মানবতার জন্য কলঙ্ক বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামফোসা।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে তার একটি রেকর্ড করা ভাষণ প্রচার করা হয়। সেখানে তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে ভ্যাকসিনের অসম বন্টন মানবতার জন্য কলঙ্ক।

গত একবছরে বিশ্বব্যাপী প্রায় ছয়শ’ কোটি করোনার ডোজ দেওয়া হয়েছে। যা বিশ্বের জনসংখ্যার ৪৩ ভাগ। কিন্তু নিম্ন আয়ের দেশগুলোকে টিকার জন্য লড়াই করতে হচ্ছে। অনেকে দেশের মাত্র ২ থেকে ৩ শতাংশ মানুষ ভ্যাকসিন নিতে পেরেছেন।

কোভিড ভ্যাকসিনের সুষম বন্টন না হওয়ায় এই সংকট তৈরি হয়েছে মনে করছেন অনেকেই। পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাতিসংঘ বার বার ধনী দেশের সরকার প্রধানদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। এদিকে, দক্ষিণ আফ্রিকায় এ পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৮৬ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৮ লাখ ৮৯ হাজার।

/এলকে/

সম্পর্কিত

জাতিসংঘ অধিবেশনে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতিসংঘ অধিবেশনে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

চীন কখনও কর্তৃত্ব চাইবে না: শি জিনপিং

চীন কখনও কর্তৃত্ব চাইবে না: শি জিনপিং

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

ভবানীপুর জিতে বিজেপিকে দুর্বল করতে চান মমতা

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:২৯

পশ্চিমবঙ্গের ভবানীপুর উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপিকে আরও দুর্বল করতে চান বলে জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার পদ্মপুকুরে এক নির্বাচনি জনসভায় তিনি একথা জানান। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এখবর জানিয়েছে।

বিধানসভা নির্বাচনে নন্দিগ্রামে হেরে গেলেও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন মমতা। তবে এজন্য ৫ নভেম্বরের মধ্যে কোনও আসন থেকে জয়ী হতে হবে। এজন্য তিনি ভবানীপুর আসনের উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। ৩০ সেপ্টেমর আসনটিতে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। এতে বিজেপি প্রার্থী করেছে প্রিয়াঙ্কা তিব্রেওয়ালকে।

জনসভায় মমতা বলেন, ভবানীপুর থেকেই ভারতবর্ষ শুরু হয়। মনে রাখবেন বি-তে ভবানীপুর, বি- থেকেই ভারতবর্ষ।

জনতার কাছে আবেদন করেন তাকে ভোট দিয়ে জেতানোর জন্য যাতে তিনি মুখ্যমন্ত্রী থাকতে পারেন। তিনি বলেন, বিধায়ক না হলে মুখ্যমন্ত্রী থাকা শোভনীয় হবে না। নন্দীগ্রামের মনোনয়নের দিনই জোর করে আহত করা হলো। পায়ে চোট, তাও হুইলচেয়ারে প্রচার করেছি। কিন্তু মা-মাটি-মানুষ আমার সঙ্গে ছিল। অনেক অত্যাচার, বিজেপি ডেলি প্যাসেঞ্জারি করেও আমাদের মানুষ জিতিয়েছেন। কেউ হয়তো ভাবতেও পারেনি তৃণমূল এত ভোটে জিতবে।

বিজেপি বিধায়কদের দলবদল নিয়েও মন্তব্য করেন মমতা। তিনি বলেন, কয়েকটা আসন থেকে অনেকে চলেও এসেছেন। ৮ মাস ধরে কৃষক আন্দোলন চলছে। কেউ কথাই বলছে না। কৃষকদের জন্য আমি অনেক আন্দোলন করেছি।

এর আগে বুধবার তিনি বলেছিলেন নন্দীগ্রামে কী হয়েছে শুনলে সবাই ভয় পাবে। মুখ্যমন্ত্রী থাকতে হলে ভবানীপুর থেকেই জিততে হব। এটাই ভবিতব্য। ওপরওয়ালা লিখে রেখেছেন। তাই আপনাদের ছেড়ে আমার কোথাও যাওয়া সম্ভব নয়।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

করোনায় মৃত্যু ‘স্বপ্নে নিরাময় পাওয়ার’ দাবি করা এলিয়ান্থা হোয়াইটের

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র আসাম, পুলিশের গুলিতে নিহত ২

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

‘আফগানিস্তানে রক্তপাত ও অস্থিতিশীলতার জন্য যুক্তরাষ্ট্র দায়ী’

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

অকাস জোটে ভারত-জাপানকে রাখছে না যুক্তরাষ্ট্র

১২ তলা থেকে ঝাঁপ, তারপর...

১২ তলা থেকে ঝাঁপ, তারপর...

‘আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি?’, পুলিশের সমালোচনায় ইসরায়েলি বিচারক

‘আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি?’, পুলিশের সমালোচনায় ইসরায়েলি বিচারক

ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনা ঠেকাতে সহায়তা দেবে সৌদি আরব

ইরানের পারমাণবিক পরিকল্পনা ঠেকাতে সহায়তা দেবে সৌদি আরব

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

শর্ত সাপেক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে বুস্টার ডোজ অনুমোদন

শর্ত সাপেক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে বুস্টার ডোজ অনুমোদন

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

এক আলিঙ্গনের জন্য ৫৮ বছর অপেক্ষা

এক আলিঙ্গনের জন্য ৫৮ বছর অপেক্ষা

সর্বশেষ

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

আসিয়ানের প্রতি অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলো যুক্তরাষ্ট্র

সুম্বা দ্বীপের নাচুনে গাছ! (ফটোফিচার)

সুম্বা দ্বীপের নাচুনে গাছ! (ফটোফিচার)

ভোক্তা প্রতারণা বন্ধে কার্যকর উপায় বের করার নির্দেশ রাষ্ট্রপতির

ভোক্তা প্রতারণা বন্ধে কার্যকর উপায় বের করার নির্দেশ রাষ্ট্রপতির

বৈশ্বিক সুদৃঢ় খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

বৈশ্বিক সুদৃঢ় খাদ্য ব্যবস্থা গড়ে তোলার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

বিশ্বে ‘ভ্যাকসিন বিভাজন’ দূর করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

বিশ্বে ‘ভ্যাকসিন বিভাজন’ দূর করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

© 2021 Bangla Tribune