X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

আজ বিশ্ব পর্যটন দিবস

সচেতন সেবায় পর্যটনের ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা 

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৬

করোনায় বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত একটি খাত পর্যটন। করোনা সংক্রমণরোধে দীর্ঘদিন দর্শনীয় স্থানগুলোতে সাধারণ মানুষের চলাচল নিষিদ্ধ ছিল। এতে পর্যটন সংশ্লিষ্টরা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েন। তবে সংক্রমণ কমে আসায় পুনরায় পর্যটনস্পটগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে। ভিড় জমাচ্ছেন দেশ-বিদেশের পর্যটকরা। এ অবস্থায় বিভিন্ন নির্দেশনা মেনে সচেতনভাবে সেবা দিয়ে ক্ষতি পুষিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির জন্য পর্যটন’ স্লোগানকে ধারণ করে প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডসহ বিভিন্ন সংস্থা পালন করছে বিশ্ব পর্যটন দিবস। এ উপলক্ষে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এদিকে লকডাউনের পর কক্সবাজার সৈকতে প্রতিদিন বাড়ছে পর্যটকদের সংখ্যা। লাখো পর্যটকে মুখরিত এখন সমুদ্র সৈকত।

 দিবসটি উপলক্ষে কক্সবাজারে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। এছাড়া করোনার ক্ষতি কাটিয়ে ভালো সেবা দিয়ে পর্যটক আকর্ষণের চেষ্টা করছে এ খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। পর্যটন দিবসে তাই সৈকতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান, হোটেল-মোটেলগুলোতে ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হয়েছে। সেবার মান বাড়ানোর জন্য সচেতনতা বৃদ্ধি, সৈকতে লাইফগার্ড সদস্য বৃদ্ধি, করোনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ নানা কাজ চলছে। 

ট্যুরিস্ট পুলিশের কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহিউদ্দিন আহমদ বলেন, পর্যটনের সুফল এবং সচেতনভাবে ঘুরে বেড়ানোর বিষয়ে লাখো পর্যটকের মধ্যে বার্তা পৌঁছে দিতে কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক) চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ বলেন, কক্সবাজারকে আধুনিক পর্যটন নগরী হিসাবে গড়ে তোলার জন্য কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কাজ করছে। এ জন্য মহা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার।

 করোনা সংক্রমণরোধে লকডাউনের কারণে দীর্ঘদিন অনেকটা অবরুদ্ধ ছিল মানুষ। করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসায় জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে এবং পর্যটন শিল্পকে অগ্রসর করতে বিনোদন কেন্দ্র খুলে দেয় সরকার। পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত সবাইকে ৫০ শতাংশ ব্যবহার ও স্বাস্থ্যবিধি মানার শর্তে ১৯ আগস্ট থেকে খুলে দেওয়া হয় সমুদ্র সৈকতসহ পর্যটন ও বিনোদন কেন্দ্র। সমুদ্র সৈকত ছাড়াও মেরিনড্রাইভ, ইনানি, হিমছড়ি, মহেশখালী আদীনাথ মন্দির, বৌদ্ধ মন্দিরসহ বিনোদনকেন্দ্রগুলো এখন পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বজুড়ে পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটলে ১৯৭০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন সংস্থা গঠনের প্রস্তাবে অনুমোদন দেয় জাতিসংঘ। তবে সংস্থাটি পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরু করে ১৯৭৪ সালে। সংস্থার বার্ষিক সম্মেলনে ১৯৮০ সালে বিশ্ব পর্যটন দিবস পালনের প্রস্তাবে সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যালে হচ্ছে ‘শ্রীমঙ্গলের চা পাতা’

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৭

নিম্নমানের চা পাতার সঙ্গে কাঠের গুঁড়া ও বিষাক্ত কেমিক্যাল মিশিয়ে ‘শ্রীমঙ্গলের বিখ্যাত চা পাতা’ তৈরি করা হচ্ছে। দেশ-বিদেশ থেকে আসা পর্যটকরা এই চা পাতা কিনে ঠকছেন। এতে বিপাকে পড়েছেন প্রকৃত চা ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল উপজেলায় একটি চক্র চা গাছের পরিত্যক্ত শুকনো পাতা, অন্যান্য গাছের পাতা, কাঠের গুঁড়া ও চা কারখানার ময়লা সংগ্রহ করে। এসব উপকরণের সঙ্গে কেমিক্যাল মিশিয়ে বিষাক্ত চা পাতা তৈরি করা হয়। ওই চা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

এ অবস্থায় ভেজাল চা পাতার ব্যবসায়ীদের ধরতে শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত সিন্দুরখান ইউনিয়নের ভারতীয় সীমান্তবর্তী ১৯৪৫ পিলার এম সংলগ্ন সিক্কা গ্রামে অভিযান চালান ৫৫ বিজিবির সদস্যরা। অভিযানে বিপুল পরিমাণ ভেজাল চা পাতা উদ্ধার হয়।

শ্রীমঙ্গল ৫৫-বিজিবির অধিনায়ক এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে সীমান্তবর্তী সিক্কা গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে মো. নুরু মিয়া ও মৃত আব্দুল বারীর ছেলে আব্দুর রহিম এবং একই গ্রামের আব্দুল মজিদের বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ পরিত্যক্ত চা পাতা উদ্ধার করা হয়। তারা দীর্ঘদিন ধরে ভেজাল চা পাতা দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছিলেন। অভিযানের সময় বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে ওই চক্রের সদস্যরা পালিয়ে যান।

৫৫ বিজিবির সহকারী পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, পচা পাতা, চা পাতার গুঁড়া ও কয়লার গুঁড়াসহ বিভিন্ন ক্ষতিকর কেমিক্যাল মিশিয়ে চা পাতা তৈরি করা হয়। এসব চা পাতা হকার ও দেশের বিভিন্ন এলাকার কিছু চা ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করা হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গলের ফিনলে টি কোম্পানির পরিবেশক ফাহিম এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে স্বনামধন্য কোম্পানির প্যাকেটজাত ফিনলে চাসহ বিভিন্ন চা বাগানের মানসম্মত চা বিক্রি করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। ক্রেতারা ভেজাল চা পাতা কিনে প্রতারিত হওয়ার কারণে দ্বিতীয়বার চা কিনতে দ্বিধা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুন শ্রীমঙ্গল সেক্টরের নিয়ন্ত্রণাধীন ৫৫ বিজিবির সদস্যরা উপজেলার সিন্দুরখান ইউনিয়নের হামিদপুরের মৃত ছাবু মিয়ার ছেলে ভুটু মিয়ার বাড়িতে ও একই গ্রামের আবু ছায়েদ মিয়ার ছেলে সুহেল মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ছোট-বড় ২৪টি বস্তায় প্রায় ৫০০ কেজি ভেজাল চা ও ২০০ কেজি কাঠের গুঁড়া জব্দ করেছিলেন।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বদলালেও বিতর্ক পিছু ছাড়েনি

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

২৬ বই-লিফলেটসহ শিবিরের ২ নেতা আটক

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেবে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৬

চুয়াডাঙ্গায় ৭৩ বস্তা ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার দত্তাইল এলাকায় একটি দোকানে অভিযান চালিয়ে এসব ভেজাল সার জব্দ করা হয়। এ সময় ওই দোকানি নয়ন আহমেদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নয়ন দত্তাইল গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে। 

জানা গেছে, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে দত্তাইল বাজারের নয়ন ট্রেডার্সে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং সদর উপজেলা কৃষি বিভাগের যৌথ একটি দল। এ সময় ওই দোকান থেকে ভেজাল টিএসপি সার জব্দ করা হয়। 

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের চুয়াডাঙ্গা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক সজল আহমেদ জানান, ঝিনাইদহের শৈলকুপা এলাকার জনৈক নাজমুলের কাছ থেকে এসব সার সংগ্রহ করেছেন নয়ন। এগুলো সংরক্ষণের দায়ে দোকান মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভেজাল সার ধ্বংস ও দোকানের সার বিক্রির লাইসেন্স জব্দ করা হয়েছে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫৪

কুষ্টিয়ায় স্বর্ণ চোরাচালানের মামলায় নির্মল দত্ত (৬৪) নামে একজনকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সেই সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। দণ্ডপ্রাপ্ত নির্মল দত্ত কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়া এলাকার মৃত মনিন্দ্র নাথ দত্তের ছেলে। 

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১ মার্চ বিকালে আমলাপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম লেনের বাসায় তল্লাশি করে সোনার বারসহ নির্মল দত্তকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-১২। সে সময় তল্লাশি করে র‍্যাব তিনটি বড় ও আটটি ছোট স্বর্ণের বার উদ্ধার করে। উদ্ধার ওই স্বর্ণের ওজন ছিল ৩৮৭ দশমিক ৬৫ গ্রাম। 

এ ঘটনায় কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ বাদি হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন। পরে মামলার তদন্ত শেষে পুলিশ আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আদালত সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে ১৭ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি নির্মল দত্তকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সরকার পক্ষের কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, মামলায় দোষী প্রমাণিত হওয়ায় নির্মল দত্তকে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

লালনের তিরোধান দিবস আজ, বসেনি সাধুর হাট

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

হট্টগোলে কালিয়ায় আ.লীগের বর্ধিত সভা পণ্ড 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

নিজ ঘরে মিললো ভ্যানচালকের অর্ধগলিত লাশ 

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৫২

বিশেষ ক্ষমতাসহ এ জাতীয় আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে চিহ্নিত করে অনতিবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবির জানিয়েছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রানা দাশগুপ্ত।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে বিভিন্ন মণ্ডপ-মন্দিরে হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত জায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এই দাবি জানান।

রানা দাশগুপ্ত বলেন, বিভিন্ন জায়গায় হামলার মাধ্যমে তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো, দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে মুক্তিযুদ্ধের দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, সেই উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি বিদেশে বিনষ্ট এবং এই জাতীয় হামলার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘুদের দেশত্যাগে বাধ্য করা তাদের উদ্দেশ্য।

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ, আহতদের চিকিৎসা ব্যবস্থার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান তিনি।সেই সঙ্গে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে আগামী ২৩ অক্টোবর সারাদেশে সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও অবস্থান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় জানানো হয়, চৌমুহনীতে বিশৃঙ্খলার ঘটনায় ইসকনের পক্ষ থেকে প্রাপ্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তিনি জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করে এবং ইসকনের মামলায় ১৫ জনসহ মোট ৪৪ জনকে গ্রেফতার করে। অন্যান্য ঘটনায় মামলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩৩

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নার্সরা। সেই সঙ্গে হাসপাতালের পরিচালককে অবরুদ্ধ করে আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রণোদনার টাকা না দিলে কর্মবিরতিতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ রেখে কর্মসূচি পালন করায় চিকিৎসাবঞ্চিত হয়েছেন রোগীরা।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত আড়াই ঘণ্টা এ কর্মসূচি পালন করেন নার্সরা। এর আগে একই দাবিতে বিক্ষোভ করেছিলেন তারা।

আন্দোলনরত নার্সদের নেত্রী আফরোজা আখতার বলেন, সারাদেশের মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফ্রন্টলাইনার হিসেবে নার্স, ওয়ার্ডবয়সহ স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনাকালীন প্রণোদনা পেলেও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক প্রায় এক বছর ধরে নানা অজুহাতে প্রণোদনা দিচ্ছেন না।

তিনি বলেন, পরিচালক মনে হয় নিজের টাকা দেবেন। করোনাকালীন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোগীদের সেবা করতে গিয়ে অনেক নার্স জীবন দিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। অথচ আমাদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে না। পরিচালকের সঙ্গে এর আগে কয়েকবার দেখা করে আমাদের দাবি উত্থাপন করেছি। প্রণোদনা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছি। শুধু আশ্বাস দিয়েছেন, কোনও পদক্ষেপ নেননি। এ জন্য বিক্ষোভ করে পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেছি আমরা।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে ২৩১ নার্সের মধ্যে যারা করোনাকালে দায়িত্বরত ছিলেন, তারাই প্রণোদনা পাবেন। প্রণোদনা ও ভাতাসহ যাবতীয় বকেয়া পরিশোধের চেষ্টা করছি। কবে নাগাদ তারা প্রণোদনা পাবেন জানতে চাইলে নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ডা. রেজাউল।

/এএম/

সম্পর্কিত

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

পঞ্চগড়ে চায়ের অকশন মার্কেট স্থাপনের পরিকল্পনা

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের পিসিআর ল্যাব অচল

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

পেঁয়াজের আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার আজ থেকেই কার্যকর

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে মনোনয়ন ফরম ছিনতাই

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

পচা মাংসের বিরিয়ানি বিক্রি, দোকান সিলগালা

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

চট্টগ্রামে বাসায় বিস্ফোরণে নিহত এক, আহত ২

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

শূন্য শনাক্তের দিনে ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ৩ মৃত্যু

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

মুহিবুল্লাহ হত্যা: বান্দরবানে রোহিঙ্গা যুবক আটক

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লার সেই ভিডিও আমাদের কাছে আছে: হাছান মাহমুদ

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

কুমিল্লায় বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ২ জনের

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

পেঁয়াজ আমদানি নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈঠক

সর্বশেষ

‘একদল-একনেতা’ ও ‘অনিবন্ধিত’দের ২০ দলীয় জোট, অনেকের অফিসও নেই 

‘একদল-একনেতা’ ও ‘অনিবন্ধিত’দের ২০ দলীয় জোট, অনেকের অফিসও নেই 

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

ভেজাল সার জব্দ, দোকানিকে লাখ টাকা জরিমানা

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

স্বর্ণ চোরাচালান মামলায় একজনের ১৪ বছর কারাদণ্ড

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

শুভেচ্ছা জানানোকে কেন্দ্র করে জবিতে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ হাতাহাতি

© 2021 Bangla Tribune