X
শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২
২২ আশ্বিন ১৪২৯

ঈদ করতে এসে গ্রেফতার বিশ্বজিৎ হত্যা মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামি

বগুড়া প্রতিনিধি
১৫ জুলাই ২০২২, ১৮:২০আপডেট : ১৫ জুলাই ২০২২, ১৮:২০

আলোচিত বিশ্বজিৎ দাস হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি মোহাম্মদ আলাউদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বগুড়ার শিবগঞ্জের মোকামতলায় শ্বশুরবাড়িতে ঈদ করতে এসে গ্রেফতার হয়েছেন তিনি। শুক্রবার (১৫ জুলাই) ভোরে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ।

গ্রেফতার আলাউদ্দিন (৩৫) পঞ্চগড় জেলার আটোয়ারী উপজেলার ছোটধাপ গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক কুমার দাস তাকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দীপক কুমার বলেন, ‘গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দুপুরে তাকে আটোয়ারী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের পর থেকে পলাতক ছিলেন আলাউদ্দিন। কোরবানির ঈদ উদযাপন করতে ৭ জুলাই স্ত্রীকে নিয়ে মোকামতলা বন্দরে শ্বশুর কাজী নুরুল ইসলামের বাড়িতে বেড়াতে আসেন।’

ওসি আরও বলেন, পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আলাউদ্দিন জানিয়েছেন আজ রাতে বাসে কক্সবাজার জেলার টেকনাফের উদ্দেশে রওনা দেওয়ার কথা ছিল। আলাউদ্দিন ও তার স্ত্রী নাহিদ ফেরদৌস টেকনাফে পৃথক দুটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি করেন। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের আগে থেকেই আলাউদ্দিন ও নাহিদার পরিচয় ছিল। ২০১৬ সালে বিয়ে করেন তারা। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের পর আলাউদ্দিন আত্মগোপনে চলে যান। পরিচয় গোপন করে প্রথমে গাজীপুরে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি নেন।

পুলিশ জানায়, আলাউদ্দিন ২০১২ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। সেখানে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। একই বছরের ৯ ডিসেম্বর বিরোধী দলের অবরোধ চলাকালে বাহাদুর শাহ পার্কের পাশে পথচারী বিশ্বজিৎ দাসকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ঘটনার সময় বিশ্বজিৎ লক্ষ্মীবাজারের বাসা থেকে শাঁখারীবাজারের দোকানে যাচ্ছিলেন। তিনি দর্জির কাজ করতেন। বিশ্বজিৎ শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার ভোজেশ্বর গ্রামের দাসপাড়া মহল্লার বাসিন্দা অনন্ত দাসের ছেলে।

তার মৃত্যুর ঘটনা দেশব্যাপী আলোচিত হয়। এ ঘটনায় ওই দিনই বিশ্বজিতের ভাই উত্তম দাস সূত্রাপুর থানায় মামলা করেন। পরে মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২১ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেন। 

২০১৩ সালের ৮ ডিসেম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪-এর বিচারক এ বি এম নিজামুল হক এ মামলায় রায় দেন। রায়ে ২১ আসামির মধ্যে আট জনকে মৃত্যুদণ্ড ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

এরপর রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হলে ২০১৭ সালের ৬ আগস্ট মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আট আসামির মধ্যে দুজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন হাইকোর্ট। বাকি চার জনের মৃত্যুদণ্ড পরিবর্তন করে যাবজ্জীবন এবং অপর দুজনকে খালাস দেন। সেইসঙ্গে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া ১৩ আসামির মধ্যে দুজন আপিল করে খালাস পান।

বিশ্বজিৎ হত্যা মামলার এজাহারে ৪ নম্বর আসামি ছিলেন মোহাম্মদ আলাউদ্দিন। মামলার রায়ে আলাউদ্দিনের যাবজ্জীবন সাজা হয়। এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে আটোয়ারী থানায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে। এ কারণে তাকে আটোয়ারী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ওসি দীপক কুমার বলেন, ‘আলাউদ্দিনের গ্রেফতারি পরোয়ানা নিজ এলাকার থানায় এসেছিল। এজন্য গ্রেফতারের পর তাকে আটোয়ারী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। সেখান থেকে তাকে কারাগারে পাঠানো হবে।’

/এএম/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
নাসুমের পর তাসকিনের উইকেট উদযাপন
নাসুমের পর তাসকিনের উইকেট উদযাপন
যুক্তরাষ্ট্রে ছুরি নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা, নিহত ২
যুক্তরাষ্ট্রে ছুরি নিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা, নিহত ২
সাগরকন্যায় পর্যটকদের ভিড়, হোটেল-মোটেল খালি নেই
সাগরকন্যায় পর্যটকদের ভিড়, হোটেল-মোটেল খালি নেই
রহিমা অপহরণ মামলায় গ্রেফতার হেলাল শরীফও জামিনে মুক্ত
রহিমা অপহরণ মামলায় গ্রেফতার হেলাল শরীফও জামিনে মুক্ত
বাংলাট্রিবিউনের সর্বাধিক পঠিত
প্রস্তুত হন, চেরাগ জ্বালিয়ে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
প্রস্তুত হন, চেরাগ জ্বালিয়ে চলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী
আলিবাবার জ্যাক মা পারলে আমরা পারবো না কেন: শামীমা নাসরিন
আলিবাবার জ্যাক মা পারলে আমরা পারবো না কেন: শামীমা নাসরিন
গোলমাল বাধলে ঘর স্ত্রীর নামে যাবে, স্বামীর নামে না: প্রধানমন্ত্রী
গোলমাল বাধলে ঘর স্ত্রীর নামে যাবে, স্বামীর নামে না: প্রধানমন্ত্রী
প্রভাসের সিনেমাটি নিষিদ্ধের দাবি, সঙ্গে নকলের অভিযোগ!
প্রভাসের সিনেমাটি নিষিদ্ধের দাবি, সঙ্গে নকলের অভিযোগ!
‘জঙ্গিবাদে জড়িয়ে ভুল বুঝতে পেরে চলে আসি’
‘জঙ্গিবাদে জড়িয়ে ভুল বুঝতে পেরে চলে আসি’