X
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩
১৩ মাঘ ১৪২৯

বিএনপির সমাবেশ: রাজশাহীতে পরিবহন ধর্মঘটে মানুষের দুর্ভোগ

রাজশাহী প্রতিনিধি
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩:০৭আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৩:০৭

বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে ১০ দফা দাবি পূরণ না হওয়ায় রাজশাহীতে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল থেকে রাজশাহী থেকে কোনও রুটে বাস ছেড়ে যায়নি। বাইরের কোনও বাসও রাজশাহীতে প্রবেশ করেনি। ঢাকাগামী কোচগুলোও সকাল থেকে বন্ধ রয়েছে। ফলে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। 

বাস না চলায় অটোরিকশা ও ছোট বাহনে মানুষজন গন্তব্যে যাচ্ছেন। এজন্য তাদের বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে। এছাড়া চাপ বেড়েছে ট্রেনে।

তবে বিএনপি নেতারা বলছেন, ৩ ডিসেম্বর বিভাগীয় গণসমাবেশ ঘিরে অন্যান্য বিভাগের মতো এখানেও ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। তবে ধর্মঘট উপেক্ষা করে নেতাকর্মীরা আসছেন রাজশাহীতে। আমাদের সমাবেশে লোকসমাগম ঠেকানো যাবে না।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে যাওয়ার উদ্দেশ্যে মহানগরের শিরোইল, ভদ্রা ও রেলগেট বাস টার্মিনালে আসেন যাত্রীরা। কিন্তু বাস না পেয়ে কেউ বিকল্প যানবাহন কেউবা বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। অনেককে আবার রাজশাহী রেলস্টেশনে ভিড় করতে দেখা গেছে।
পরিবহন ধর্মঘটের কারণে সকাল থেকে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন রাজশাহীর আন্তঃজেলা রুটের যাত্রীরাও। এ অবস্থায় সিএনজি অটোরিকশা, নছিমন, ভটভটি, ভ্যান ও মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন বিকল্প যানবাহনে দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে যাত্রীরা জরুরি প্রয়োজনে নিজ গন্তব্যে রওনা হয়েছেন।

শুক্রবার সরকারি চাকরির পরীক্ষা আছে। তাই বৃহস্পতিবার সকালেই রাজশাহী থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য বেরিয়ে পড়েছেন আব্দুল মমিন। তিনি বলেন, ‌‘চার দিন আগেই ট্রেনের টিকিট পাইনি। গতকাল রাত থেকে আবার বাস বন্ধ। এখন বিকল্প উপায় দেখছি না। কীভাবে গন্তব্যে যাবো বুঝতেছি না।’

পরিবার নিয়ে রাস্তায় গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছেন নওগাঁ থেকে আসা শিশির আলী। তিনি বলেন, ‘নওগাঁ থেকে রাজশাহী আসতে সময় লেগেছে পাঁচ ঘণ্টা। খরচ হয়েছে ৫০০ টাকা। যেখানে স্বাভাবিক দিনে লাগে ২০০ টাকা। এখন ঢাকা যেতে কত টাকা লাগবে বুঝতেছি না।’

তিনি বলেন, ‘আমি গরিব মানুষ। চাকরিতে যোগ দিতেই হবে। শুক্রবার হাতে আছে। শনিবার কাজে যোগ দিতে হবে। দেখি কতদূর যেতে পারি।’

এদিকে, ধর্মঘটের ফলে চাপ বেড়েছে ট্রেনে। তাই বিভিন্ন রুটের ট্রেনের টিকিট এরই মধ্যে শেষ হয়ে গেছে। টিকিট না পেয়ে অনেকে দাঁড়িয়ে রওনা দিচ্ছেন। এছাড়া রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে যেসব ট্রেন আসছে ও যাচ্ছে তাতে অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ লক্ষ্য করা গেছে।

রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো বলেন, ‘আমাদের অনেক দিনের দাবি। আমরা নির্ধারিত সময় বেঁধে দিয়েছিলাম। তবে আমাদের কোনও আশ্বাস না দেওয়ায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে স্বেচ্ছায় কর্মবিরতিতে গেছি।’

মানুষের ভোগান্তি ও বিএনপির সমাবেশের বিষয়ে চানতে চাইলে রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো বলেন, ‘বিএনপির সমাবেশের সঙ্গে এই পরিবহন ধর্মঘটের কোনও সম্পর্ক নেই। এটি আমাদের দাবি আদায়ের স্বেচ্ছায় কর্মবিরতি।’

মতিউল হক টিটো আরও বলেন, ‘আমাদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকে বৃহস্পতিবার থেকে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। মহাসড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধসহ ১০ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে।’

যে ১০ দাবিতে ধর্মঘট ডেকেছে পরিবহন মালিক সমিতি সেগুলো হলো- সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ সংশোধন করতে হবে। হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে মহাসড়ক বা আঞ্চলিক মহাসড়কে থ্রি-হুইলার (নসিমন, করিমন, ভটভটি, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ইত্যাদি) চলাচল বন্ধ করতে হবে। জ্বালানি তেল ও যন্ত্রাংশের অস্বাভাবিক মূল্য হ্রাস করতে হবে। করোনাকালে গাড়ি চলাচল না করায় সব ধরনের ট্যাক্স মওকুফ করতে হবে। সব প্রকার সরকারি পাওনা (ট্যাক্স, টোকেন, ফিটনেস) অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি বন্ধ করতে হবে। চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স সংক্রান্ত নানাবিধ জটিলতা নিরসন করতে হবে। পরিবহনের যাবতীয় কাগজপত্রাদি বা সঠিক থাকা সত্ত্বেও পুলিশি হয়রানি বন্ধ করতে হবে। উপজেলা পর্যায়ে বিআরটিসির বাস চলাচল বন্ধ করতে হবে। তবে ডিপো টু ডিপো চলাচল করতে পারবে। মহাসড়কে হাট-বাজার আয়োজন বা পরিচালনা করা যাবে না। চলমান হাট-বাজার উচ্ছেদ করতে হবে। যাত্রী ওঠানামার জন্য পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। প্রত্যেক জেলায় ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ ও ট্রাক ওভারলোড বন্ধ করতে হবে।

ধর্মঘটের বিষয়ে বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার বলেন, ‘দেশের অন্যান্য বিভাগের মতো এখানেও ধর্মঘট ডাকা হয়েছে। তবে বুধবার বিএনপির অনেক নেতাকর্মী রাজশাহী পৌঁছে গেছেন। ধর্মঘট উপেক্ষা করে আজও নেতাকর্মীরা আসছেন। ধর্মঘট ডেকে বিএনপির সমাবেশে লোকসমাগম ঠেকানো যাবে না।’

/এএম/
সর্বশেষ খবর
দুই শতাধিক মামলা প্রত্যাহারের দাবি হেফাজতের: কী করছে পুলিশ?
দুই শতাধিক মামলা প্রত্যাহারের দাবি হেফাজতের: কী করছে পুলিশ?
সৌদি সুপার থেকে বিদায় রোনালদোর
সৌদি সুপার থেকে বিদায় রোনালদোর
সাবেক এমপি মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
সাবেক এমপি মুফতি শহীদুল ইসলাম মারা গেছেন
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
ফ্রিজে আদা রাখা নিয়ে ঝগড়ায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে প্রাণ গেলো চাচার
সর্বাধিক পঠিত
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
‘মানুষের সৃষ্টি বানর থেকে’ এ কথা পাঠ্যবইয়ে নেই
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
নিজ ঘরে ২ নারী নিহত, সিঁধ কাটলেও নতুন ইঙ্গিত দিচ্ছে মাকড়সার জাল
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
‘৮০ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ মানসিক নির্যাতনের শিকার’
হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়হল উদ্বোধনের আগেই পছন্দমতো রুম দখলের হিড়িক
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস
তাপমাত্রা কমবে না, কিছু এলাকায় শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস