X
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালালে যা করবে যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৩৫

রাশিয়া যদি পূর্ব ইউরোপের দেশ ইউক্রেনে আক্রমণ করে বসে তবে পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে কঠোর পদক্ষেপের হুমকি দিয়ে রেখেছে বাইডেন প্রশাসন। এর মধ্যে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পাশাপাশি পুতিনের ঘনিষ্ঠজনদেরকেও ছাড় না দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে।

ইউক্রেন সীমান্তে সম্প্রতি রাশিয়ার সেনা সমাবেশ বেড়েছে। কিয়েভ দাবি করছে, সীমান্তে ৯৪ হাজারের মতো সশস্ত্র রুশ সেনা অবস্থান করছে। শুধু সেনাই নয় সীমান্ত এলাকাজুড়ে ভারী সামরিক যান এবং অস্ত্র মোতায়েন করেছে মস্কো। এমন বাস্তবতায় যেকোনও মুহূর্তে ইউক্রেনে আক্রমণ করে বসতে পারে রুশ বাহিনী।

এমন পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের কাঁধেই হাত রাখছে মিত্র দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। কয়েকদিন ধরে রাশিয়ার বিরুদ্ধে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসলেও সুস্পষ্ট পরিকল্পনা কেমন তা এখনও প্রকাশ্যে ঘোষণা আসেনি।

তবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে বড় ধরনের আর্থিক নিষেধাজ্ঞার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। তিনি বলেন, রাশিয়া যেভাবে পূর্ব ইউক্রেনের সীমান্তে সেনা জড়ো করেছে, তা যে কোনোও সময় ভয়াবহ চেহারা নিতে পারে। পূর্ব ইউক্রেনের কয়েকটি এলাকায় ছোট ছোট সংঘর্ষ হয়েছে বলে জানা গেছে। এই পরিস্থিতিতে রাশিয়া যদি উত্তেজনা বাড়ায়, তা হলে যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার বিরুদ্ধে কঠোরতম অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। যা অতীতে মস্কোর বিরুদ্ধে এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপ থেকে বিরত ছিলাম আমরা।

ইউক্রেন ইস্যুতে বরাবরের মতো গত শুক্রবার রাশিয়াকে নিয়ে ব্যাপক ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও। মস্কোর বিরুদ্ধে যে পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের জন্য কষ্টদায়ক হবে বলে মন্তব্য করেন বাইডেন।

গত কয়েক দশকে ক্রিমিয়া ইস্যুসহ রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি, মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ, সাইবার কার্যক্রম, মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে বিভিন্ন সময় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ওয়াশিংটন। ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী গড়ে তুলতে ২০১৪ সাল থেকেই সাহায্য করে আসছে পশ্চিমাদেশগুলো।

রাশিয়ানদের সম্পত্তি জব্দ করা, মার্কিন কোম্পানিগুলোর সঙ্গে ব্যবসায় নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশেরও বিধিনিষেধ রয়েছে। রাশিয়াকে বিভিন্ন ইস্যুতে শাস্তি দিতে পশ্চিামারা বড় ধরনের আর্থিক জরিমানাও করে ইতোপূর্বে।

এদিকে রাশিয়া তার কেন্দ্রীয় রাজস্বের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাস রফতানির ওপর নির্ভরশীল। পেট্রোডলার প্রবাহিত করার জন্য বেলজিয়ামভিত্তিক এসডব্লিউআইএফটি’র ওপর নির্ভরশীল মস্কো। এসডব্লিউআইএফটি হলো, আর্থিক লেনদেনের বার্তা আদান-প্রদানকারী নেটওয়ার্ক সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ইন্টার ব্যাংক ফিন্যান্সিয়াল টেলিকমিউনিকেশন।

জ্বালানি বিষয়ক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মারিয়া শাগিনা বলেছেন, পশ্চিমাদেশগুলো যদি রাশিয়ার ওপর অর্থনেতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে, তবে দেশটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। 

ইউক্রেনের সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত এবং কূটনীতিক জন হার্বস্ট শুক্রবার বলেন, ইউক্রেনে আক্রমণ হলে পুতিনের পরিবারের ঘনিষ্ঠজনকে লক্ষ্য করে আর্থিক নিষেধাজ্ঞা, রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ জ্বালানিখাতসহ একাধিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে মার্কিন প্রশাসন।

/এলকে/
সম্পর্কিত
রুশ জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমানোর আহ্বান ম্যাক্রোঁর
রুশ জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমানোর আহ্বান ম্যাক্রোঁর
‘সংক্ষিপ্ত নোটিশে’ ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া: ব্লিনকেন
‘সংক্ষিপ্ত নোটিশে’ ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া: ব্লিনকেন
সীমান্তে রুশ সেনা: ইউক্রেনে সামরিক সহযোগিতা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
সীমান্তে রুশ সেনা: ইউক্রেনে সামরিক সহযোগিতা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
রুশ জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমানোর আহ্বান ম্যাক্রোঁর
রুশ জ্বালানির ওপর নির্ভরতা কমানোর আহ্বান ম্যাক্রোঁর
‘সংক্ষিপ্ত নোটিশে’ ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া: ব্লিনকেন
‘সংক্ষিপ্ত নোটিশে’ ইউক্রেনে হামলা চালাতে পারে রাশিয়া: ব্লিনকেন
সীমান্তে রুশ সেনা: ইউক্রেনে সামরিক সহযোগিতা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
সীমান্তে রুশ সেনা: ইউক্রেনে সামরিক সহযোগিতা বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
© 2022 Bangla Tribune