ইরান-ইতালি থেকে যাত্রী এনে বিপাকে এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মীরা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৫:১৩, মার্চ ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৫:২৪, মার্চ ২৪, ২০২০

করোনাভাইরাস উপদ্রুত দেশগুলো থেকে প্রবাসী ভারতীয়দের বিমানযোগে দেশে ফিরিয়ে এনেছিল এয়ার ইন্ডিয়ার একদল কর্মী। কিন্তু প্রবাসীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে গিয়ে এখন নিজেরাই বিপাকে পড়ছে তারা। নিজ এলাকাতেই প্রতিবেশীদের ‘বয়কটের’ মুখে পড়তে হচ্ছে এয়ার ইন্ডিয়ার কর্মীদের।এয়ার ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়াল

প্রতিবেশীরাই পুলিশে ফোন করে খবর দিচ্ছেন। বলছেন, ‘আমার পাশের ফ্ল্যাটে এয়ার ইন্ডিয়ার অমুক ক্রু আছে। সে ইরান বা ইতালি থেকে প্লেন নিয়ে ফিরেছে। উনাদের কোয়ারেন্টিন সেন্টারে নিয়ে রাখুন!’

এমন প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও রোম থেকে রবিবার ২৬৩ জন আটকেপড়া ভারতীয়কে নিয়ে দেশে ফিরেছেন এয়ার ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়াল। বলা হচ্ছে, সাহসিকতার এক অসাধারণ দৃষ্টান্ত তৈরি করেছেন এয়ার ইন্ডিয়ার এই ক্যাপ্টেন।

করোনাভাইরাস মহামারির বর্তমান এপিসেন্টার বা উৎসস্থল বলা হচ্ছে ইতালি। সেখান থেকেই এয়ার ইন্ডিয়ার একটি বোয়িং ৭৭৭ এয়ারক্রাফট নিয়ে ভারতীয়দের উদ্ধার করে দেশে ফেরান স্বাতী ও তার সহকর্মী ক্যাপ্টেন রাজা চৌহান।

'মানবতার ডাকে' তারা যেভাবে এই বিপদে সাড়া দিয়েছেন এবং চরম সাহসিকতার নিদর্শন দেখিয়েছেন তার জন্য তাদের অকুণ্ঠ প্রশংসা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি টুইট করেছেন, 'এয়ার ইন্ডিয়ার জন্য আমি অত্যন্ত গর্বিত।'

ভারতের বেসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী হরদীপ সিং পুরীও প্রশংসায় ভাসিয়ে দিয়েছেন স্বাতী ও তার সহকর্মীদের। ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়ালকে ভারতের সোশ্যাল মিডিয়াতেও অজস্র মানুষ প্রশংসা করছেন। তিনি শুধু একজন অভিজ্ঞ নারী পাইলটই নন; বরং তিনি একটি শিশু সন্তানের মা। তারপরও বিপদের ঝুঁকি অগ্রাহ্য করে ইতালি উড়ে যেতে তিনি বিন্দুমাত্র কুণ্ঠিত হননি।

অথচ এর মাত্র ২৪ ঘণ্টা আগেই এয়ার ইন্ডিয়া তাদের অফিসিয়াল টুইটার থেকে একটি বিবৃতি দিয়েছিল। এতে বলা হয়, তাদের যে কর্মীরা সারা দুনিয়া থেকে ভারতীয়দের উদ্ধার করে আনছে নিজের মহল্লাতেই তাদের 'সামাজিকভাবে একঘরে' হওয়ার হুমকিতে পড়তে হচ্ছে।

রেসিডেন্ট ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন ও প্রতিবেশীরা এই বিমানকর্মীদের জীবন নাজেহাল করে দিচ্ছেন! পুলিশের কাছেও তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে, নিজের বাড়িতে না রেখে যাতে তাদের জোর করে কোয়ারেন্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়।

১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে বিমান চালানোর অভিজ্ঞতাসম্পন্ন ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়ালও এদেরই একজন। কিন্তু যখন ইতালি থেকে আবার ভারতীয়দের উড়িয়ে আনতে এয়ার ইন্ডিয়া একটি বিশেষ বিমান চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়, তখন তার দায়িত্ব নিতে এক মুহুর্তও দ্বিধা করেননি তিনি।

২০১০ সালে এয়ার ইন্ডিয়া যখন মুম্বাই থেকে নিউ ইয়র্কগামী একটি বিমানকে প্রথমবারের মতো 'অল-উইমেন ক্রু' (অর্থাৎ পাইলটসহ বিমানকর্মীদের সবাই ছিলেন নারী) দিয়ে চালিয়েছিল, ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়াল ছিলেন সেই টিমেরও একজন সদস্য।

গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই এয়ার ইন্ডিয়া করোনাভাইরাস উপদ্রুত এলাকাগুলো থেকে আটকে পড়া ভারতীয়দের উদ্ধার করে দেশে ফেরাচ্ছে। ১ ও ২ ফেব্রুয়ারি পর পর দুটি বিশেষ বিমান চালিয়ে তারা চীনের উহান প্রদেশ থেকে প্রায় সাড়ে ছয়শ’ ভারতীয়কে উদ্ধার করে আনে।

রবিবার রোম থেকে ২৬৩ জন ভারতীয়কে ফিরিয়ে আনার আগে গত সপ্তাহেও ইতালির মিলানে আরেকটি বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করেছিল এয়ার ইন্ডিয়া। সেটিতে করেও দেশে ফিরে এসেছিলেন বহু ভারতীয়। তাদের বেশিরভাগই ছিলেন ছাত্র। তবে ক্যাপ্টেন স্বাতী রাওয়াল রবিবার রোম থেকে যে বোয়িং-৭৭৭টি চালিয়ে নিয়ে ফিরেছেন, আপাতত সেটিই সম্ভবত এয়ার ইন্ডিয়ার শেষ ইভ্যাকুয়েশন ফ্লাইট।

ভারত সরকারও জানিয়ে দিয়েছে, এই মুহুর্তে ইভ্যাকুয়েশন বা ভারতীয়দের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনা তাদের অগ্রাধিকার নয়। দিল্লির চাওয়া হচ্ছে, সবাই যেন নিজ নিজ স্থানেই নিরাপদে থাকে। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

লাইভ

টপ