X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

ধর্ষণ-নির্যাতনের ঘটনায় মহিলা আইনজীবী সমিতির ৫ সুপারিশ

আপডেট : ১০ মে ২০২১, ০০:০৬

সাম্প্রতিক সময়ে দেশব্যাপী নারী ও শিশু ধর্ষণ-নির্যাতনের ঘটনায় গভীর নিন্দা জানিয়ে পাঁচ দফা সুপারিশ উপস্থাপন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি। 

রবিবার (৯ মে) ‘সাম্প্রতিক সময়ে দেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রেক্ষাপট ও প্রতিরোধে করণীয়’ শীর্ষক অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে সমিতির পক্ষ থেকে এসব সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সমিতির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘অতি সম্প্রতি বাংলাদেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের মাত্রা ভয়ানকভাবে বেড়েই চলেছে। এতে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি খুবই উদ্বিগ্ন।  এর মধ্যে ফেনী মডেল থানার কালিদহ ইউনিয়নে ঘটে যাওয়া শিশুর নৃশংস হত্যাকাণ্ড প্রত্যেক মানুষের বিবেককে নাড়া  দিয়েছে। এছাড়াও কিছুদিন আগে ঢাকার গুলশান এলাকায় ঘটে যাওয়া তরুণীর রহস্যজনক মৃত্যু সারা দেশে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে। এই ঘটনায় গুলশান থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগে মামলা করা হলেও আসামিরা এখনও ধরা ছোঁয়ার বাইরে।’

সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সালমা আলী বলেন, ‘দ্রুত ও সুষ্ঠু বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে দুষ্কৃতিকারীরা নারী ও শিশু নির্যাতনের মতো অপরাধ করেও বিচারের আওতায় আসছে না। এক্ষেত্রে দ্রুত ও দৃষ্টান্তমূলক বিচার নিশ্চিত করা গেলে এই ধরনের অপরাধ হ্রাস পেতে পারে। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভুক্তোভোগীরা এই ধরনের অভিযোগ নিয়ে আসছেন। আজকেও ধর্ষণের সম্মুখীন একজন নারী নিরাপদ হেফাজতের জন্য বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির কাছে আবেদন করেছেন। বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতি তার নিরাপদ হেফাজতের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।’

তিনি জানান, এসব কারণে দেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনায় বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে  কয়েক দফা সুপারিশ তুলে ধরা হয়েছে। সুপারিশ হলো-

১. স্থানীয় প্রতিনিধি ও গণমাধ্যমকর্মী সবাই মিলে নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে এই করোনা পরিস্থিতিতে একযোগে কাজ করতে হবে। 

২. স্থানীয় গণমাধ্যকর্মীদেরকে যেকোনও ঘটনা সংঘটিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রকৃত তথ্য প্রচারের ব্যবস্থা করতে হবে এবং নিয়মিত ফলোআপ করতে হবে।

৩. স্থানীয় জনসাধারণের সক্রিয় অংশগ্রহণে শিশু বিবাহ, পারিবারিক নির্যাতনসহ নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনগণের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য সরকারি, বেসরকারি ও উন্নয়ন  সহযোগী সংস্থাগুলোকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।  

৪. দ্রুত ট্রায়ালের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত ও বিচারের আওতায় আনতে হবে। 

৫. শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের ক্ষেত্রে পরিবার ও সমাজের দায়বদ্ধতার জায়গাটি সুনিশ্চিত করতে হবে। 

 

/বিআই/এপিএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় চুরির অপবাদে নারীকে লাঠিপেটা
উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় চুরির অপবাদে নারীকে লাঠিপেটা
সাপের বিষ থেকে বাঁচতে ট্যাবলেট, কলকাতায় মিলছে সাফল্য
সাপের বিষ থেকে বাঁচতে ট্যাবলেট, কলকাতায় মিলছে সাফল্য
ষষ্ঠ ওয়ালটন প্রেসিডেন্ট কাপ গলফ টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ
ষষ্ঠ ওয়ালটন প্রেসিডেন্ট কাপ গলফ টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ
সুন্দরবনে মাছ ধরা ও পর্যটক প্রবেশে তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা
সুন্দরবনে মাছ ধরা ও পর্যটক প্রবেশে তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত