স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রার্থীও নেই বিএনপির

Send
সালমান তারেক শাকিল
প্রকাশিত : ২২:৫৮, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪৮, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

বিএনপি

আগামী ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নির্বাচনে কিছু এলাকায় প্রার্থিতা দিতে পারেনি বিএনপি। এরমধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া এবং নির্বাচন ও উপনির্বাচন মিলিয়ে ২৪টি ইউনিয়নে কোনও প্রার্থী পায়নি দলটি। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় পার হয়েছে।

তবে বিএনপি নেতাদের অভিযোগ, নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকা ও অতীতের অভিজ্ঞতায় নেতাকর্মীদের এখন নির্বাচনে অংশগ্রহণের আগ্রহ কমে গেছে। এছাড়া, নির্বাচন-পরবর্তী সময়সীমা কম থাকাও একটি কারণ বলে মনে করেন দলটির নেতারা।

নির্বাচন কমিশনের তথ্যানুযায়ী, আগামী ২০ অক্টোবর নতুন ও পুরনো মিলিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের ১৫টিতে সাধারণ নির্বাচন,  মৃত্যু ও বরখাস্তজনিত কারণে ৪৬টি ইউপিতে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া, ৯টি উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ২টিতে ভাইস চেয়ারম্যানের শূন্য পদে উপনির্বাচন হবে।

নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২০ অক্টোবর ১১টি উপজেলায় চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের শূন্যপদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে। এরমধ্যে ৯টিতে চেয়ারম্যান পদে ও দুটি ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে। বিএনপি চেয়ারম্যান পদে ৮ জন, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান পুরুষ পদে ২ জন ও উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান নারী পদে এক জনকে মনোনয়ন দিয়েছে।

দলের চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং পারসন শায়রুল কবির খান জানান, চেয়ারম্যান পদে নওগাঁ উপজেলায় মকলেছুর রহমান, যশোর সদর উপজেলায় মো. নুর উন নবী, খুলনা জেলার পাইকগাছায় আব্দুল মজিদ, বাগেরহাট জেলার শরণখোলা উপজেলায় মো. মতিয়ার রহমান খান, সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলায় মো. নরুল হক আফেন্দী, চাঁদপুর জেলার মতলব দক্ষিণ উপজেলায়  মো. আবদুস শুক্কুর পাটোয়ারী, মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলায় নাদিরা আক্তার ও কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় মো. সাইফুল আলমকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। ২০ অক্টোবর চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় উপনির্বাচন হবে, তবে সেখানে কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি বিএনপি।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা পরিষদের বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি তো বলতে পারবো না কেন এই এলাকায় বিএনপি প্রার্থী দিতে পারেনি। কেন প্রার্থী দেয়নি, সেটা তারা বলতে পারবে।’

স্থানীয় বিএনপির একাধিক সূত্র বলছে, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া এলাকাটি মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসিতে মৃত্যুবরণকারী সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর সংসদীয় আসনের অন্তর্ভুক্ত। তবে বর্তমানে তার কোনও প্রভাব নেই, অনুগত নেতাকর্মীও প্রায় নেই। বর্তমানে দলের ক্ষুদ্র অংশ সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর  ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও আবদুল্লাহ আল নোমানের হয়ে ত্রিধারায় বিভক্ত। সে কারণে কোনও নেতাই নির্বাচন করতে আগ্রহ দেখাননি।

উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বিএনপি তিন জনকে মনোনীত করেছে দলীয় প্রার্থী হিসেবে। দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে রাশেদুজ্জামান রাশেদ, কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) রুহুল আমিন ও (মহিলা) ফরিদা ইয়াছমিন মনোনয়ন পেয়েছেন দলের। তবে একই তারিখে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ উপজেলার ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচনেও কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি বিএনপি।

বিএনপির দাফতরিক সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য যাচাই-বাছাই করে দেখা গেছে, ৬১টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ও  উপনির্বাচন মিলিয়ে ২৪টিতে কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি দলটি। এরমধ্যে যে ১০টি নতুন ইউনিয়নে নির্বাচন হবে, এই এলাকাগুলোর মধ্যে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার গাজনা, পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর, চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নে বিএনপির কোনও প্রার্থী নেই।

২০ অক্টোবর মেয়াদোত্তীর্ণ পাঁচটি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনের তফসিল দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এই পাঁচটির মধ্যে কেবল রংপুর জেলার সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নে মো. মেরাজুল ইসলামকে মনোনয়ন দিলেও বাকি চারটি ইউনিয়নে কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি বিএনপি। এই চারটি ইউনিয়ন হচ্ছে—রংপুর সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করিনী, হরিদেবপুর, ভোলা জেলার লালমোহন উপজেলার ফরাশগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়ন।

৪৬টি ইউনিয়ন পরিষদে মৃত্যুজনিত ও বরখাস্তজনিত কারণে শূন্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ও সাধারণ ওয়ার্ডের সদস্য ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের পদে উপনির্বাচনের তফসিল দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বুধবার এই এলাকাগুলোর প্রতিদ্বন্দ্বীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিল। এই ৪৬টি ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচনে ১৭টি এলাকায় দলীয় কোনও প্রার্থী দিতে পারেনি বিএনপি।

এই ইউনিয়নগুলো হচ্ছে—রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলার আলমপুর, বগুড়া জেলার ধনুট উপজেলার কালেরপাড়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার চরঅনুপনগর, নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার মথুরাপুর, বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট উপজেলার কোদালিয়া, সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা, বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলার কড়ইবাড়িয়া, বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার সাতলা, ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর উপজেলার ছনধরা ও সদর উপজেলার বোররচর, নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার ধলামূলগাঁও, টাঙ্গাইল জেলার সদর উপজেলার ঘারিন্দা, নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার আফিয়াবাদ, গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার জলিরপাড়, মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার তুনবীর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার চুন্টা ও চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই উপজেলার মিঠানালা।

বগুড়া জেলার ধনুট উপজেলার ধনুট ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী তারিকুল ইসলাম তারিক বলেন, ‘বিএনপি প্রার্থী করার লোক পায় নাই।’

প্রার্থী সংকটের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রথমত বিএনপি আন্দোলনের অংশ হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলেও এটা সত্যি—দেশে নির্বাচনের কোনও পরিবেশ নেই। এর আগে এই সরকারের অধীনে যত নির্বাচন হয়েছে তা ফ্রি বা ফেয়ার কোনোটিই হয়নি। দ্বিতীয়ত, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া বা মীরেরসরাই বলেন— এসব এলাকায় নির্বাচনি কোনও মিছিল-মিটিং করার সুযোগ নাই। এছাড়া, নির্বাচন হলেও এসব পদের সময়সীমা কম বলে আগ্রহ কম। নির্বাচন থেকে মানুষের আগ্রহ কমে গেছে।’

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে বিএনপির ৩৭ মনোনীত প্রার্থীরা হলেন— সোহরাব হোসেন মীর, ইউনিয়ন বড়িবাড়ি, উপজেলা-ইটনা, জেলা-কিশোরগঞ্জ। আফজাল হোসেন, ইউনিয়ন-লক্ষীপাশা,উপজেলা- গোলাপগঞ্জ,জেলা- সিলেট। মো. আব্দুর রফ আল মামুন, ইউনিয়ন -সাদীপুর, উপজেলা- ওসমানীনগর, জেলা - সিলেট। আসকার আলী ইউনিয়ন-সাচার, উপজেলা- কচুয়া, জেলা- চাঁদপুর। মো. অলিউল্যা, ইউনিয়ন- ইছাপুর, উপজেলা-রামগঞ্জ, জেলা লক্ষ্মীপুর। মো. ইয়াকুব, ইউনিয়ন-সুয়াবিল, উপজেলা-ফটিকছড়ি, জেলা- চট্টগ্রাম। মো. আসিফ আকতার, ইউনিয়ন-হারামিয়া, উপজেলা-সন্দ্বীপ, জেলা-চট্টগ্রাম। মো. সুফি মিয়া, ইউনিয়ন-মির্জাপুর, উপজেলা-শ্রীমঙ্গল, জেলা- মৌলভীবাজার। পারভেজ হোসেন চৌধুরী, ইউনিয়ন- শাহজাহানপুর, উপজেলা-মাধবপুর, জেলা-হবিগঞ্জ। মো. পারভেজ হোসেন, ইউনিয়ন-আদ্র, উপজেলা-বরুড়া, জেলা-কুমিল্লা। মাসুদ করিম, ইউনিয়ন-মেহের দক্ষিণ, উপজেলা-শাহরাস্তি, জেলা-চাঁদপুর। মো. সেলিম সরকার, ইউনিয়ন-সুলতানাবাদ, উপজেলা-মতলব উত্তর, জেলা- চাঁদপুর। মো. আক্তার হোসেন, ইউনিয়ন-জহিরাবাদ, উপজেলা-মতলব উত্তর, জেলা-চাঁদপুর। মোস্তফা কামাল, ইউনিয়ন-গেইট উত্তর, উপজেলা-কচুয়া, জেলা-চাঁদপুর। নজরুল ইসলাম ভুইঁয়া, ইউনিয়ন-কেরোয়া, উপজেলা- রায়পুর, জেলা- লক্ষ্মীপুর। তোফায়েল আহমেদ, ইউনিয়ন- চন্দ্রগঞ্জ, উপজেলা সদর, জেলা-লক্ষ্মীপুর। জয়নাল আবেদিন, ইউনিয়ন-নানুপুর, উপজেলা-ফটিকছড়ি, জেলা-চট্টগ্রাম। মো. আবু নাসের চৌধুরী, ইউনিয়ন- আধুনগর, উপজেলা- লোহাগড়া, জেলা- চট্টগ্রাম। মো. খোরশেদ আলম শিকদার, ইউনিয়ন-লোহাগড়া, উপজেলা-লোহাগড়া, জেলা-চট্টগ্রাম। এনামুল হক, ইউনিয়ন- সাতনালা, উপজেলা-চিরিরবন্দর, জেলা-দিনাজপুর। মো. সফিয়ার রহমান, ইউনিয়ন-পাটিকাপাড়া, উপজেলা- হাতিবান্ধা, জেলা-লালমনিরহাট। আবু তাহের মো. শফিকুল ইসলাম, ইউনিয়ন-গড্ডিমারী, উপজেলা- হাতিবান্ধা, জেলা-লালমনিরহাট। মোহাম্মদ ইকবাল আযম, ইউনিয়ন-দলগ্রাম, উপজেলা-কালিগঞ্জ, জেলা- লালমনিরহাট। মো. মেরাজুল ইসলাম, ইউনিয়ন- চন্দনপাট, উপজেলা-রংপুর সদর, জেলা-রংপুর। মো. সাদির আহমেদ, ইউনিয়ন- ফতেপুর, উপজেলা-নাচোল, জেলা- চাঁপাইনবাবগঞ্জ। মো. রাকিবুল হাসান.  ইউনিয়ন- পোরজানা, উপজেলা-শাহজাদপুর, জেলা-সিরাজগঞ্জ।  আকরাম হোসেন. ইউনিয়ন-মণ্ডতোষ, উপজেলা- ভাঙ্গুড়া, জেলা-পাবনা। মো. জাহাঙ্গীর আলম. ইউনিয়ন-ভাঙ্গুড়া সদর, উপজেলা- ভাঙ্গুড়া, জেলা-পাবনা। মো. আকতার হোসেন. ইউনিয়ন- গড়াইটুপি, উপজেলা-চুয়াডাঙ্গা সদর, জেলা-চুয়াডাঙ্গা। মো. ইউনুছ আলী. ইউনিয়ন-ডাউকী, উপজেলা-আলমডাঙা, জেলা- চুয়াডাঙ্গা। মো. রহিম সরকার. ইউনিয়ন-নাগরী, উপজেলা-কালিগঞ্জ, জেলা-গাজীপুর। মো. মেহেদী হাসান, ইউনিয়ন-কোরকদি, উপজেলা-মধুখালী, জেলা-ফরিদপুর। মো. আবু হানিফ, ইউনিয়ন- মহিয়ার, উপজেলা-ভেদরগঞ্জ, জেলা-শরীয়তপুর। শওকত হোসেন হাওলাদার, ইউনিয়ন-কলসকাঠী, উপজেলা-বাকেরগঞ্জ, জেলা-বরিশাল। মো. আমিনুল ইসলাম খান মনি, ইউনিয়ন-আঠারবাড়ী, উপজেলা- ঈশ্বরগঞ্জ, জেলা-ময়মনসিংহ। মো. জিয়াউদ্দিন, ইউনিয়ন- শেরপুর, উপজেলা-নান্দাইল, জেলা-ময়মনসিংহ। শেখ মো. মিজানুর রহমান, ইউনিয়ন-বালিয়ান, উপজেলা- ফুলবাড়িয়া, জেলা -ময়মনসিংহ।

 

/এপিএইচ/

লাইভ

টপ
X