X
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

তোতাকাহিনি

আপডেট : ৩০ মার্চ ২০২১, ১৯:৫৬

ধ্রুব নীল
এক লোক খুব টেনশন নিয়ে দৌড়াচ্ছে। সামনে যাকে পাচ্ছে তাকে বলছে, ভাই আমার তোতাটা হারিয়ে গেছে! এক লোক বিরক্ত হয়ে বললো, ভাই! আমাকে বলছেন কেন? থানায় যান! রিপোর্ট করুন গিয়ে।

তোতা হারানো লোকটা মিনমিন করে বললো, ‘না মানে, বলতে চাচ্ছিলাম, তোতা দিয়ে আমার কাজ নেই। তবে ওই তোতার কথায় কিন্তু ভুলেও কান দেবেন না!’

দেশের আকাশে আগে উড়তো শকুন, এখন উড়ছে তোতা। আওড়ে যাচ্ছে শেখানো বুলি। বলতেই থাকবে। থামতে বললে লাভ হবে না। বোঝালেও কাজ হবে না। তোতাকে ধরে খাঁচায় পুরে রাখুন, একই কথা বলে যাবে। কারণ, চিন্তাভাবনা করে কথা বলার জন্য তো উন্নত মগজ লাগে। তোতার সেটা তৈরি হয়নি।

চিন্তার শক্তি সহনশীল করে, ধৈর্য ধরতে শেখায়, কখন কী করতে হবে সেটার অনেক বিকল্প পন্থা ভাবতে শেখায়। হুট করে মাথা গরম করতে শেখায় না। প্রচণ্ড ঘৃণা থেকে একটা কিছু করে ফেলার তাগিদ দেয় না।

তবে চিন্তাশীল হওয়া মানে যে কাউকে একেবারে ঘৃণা করা যাবে না তা নয়। ঘৃণা করাটা দোষের কিছু নয়। আমরা অনেকেই অনেক কিছু ঘৃণা করি। মাদার তেরেসাও হিটলারকে ঘৃণা করতেন। তিনি একবার এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে উষ্মা নিয়ে বলেছিলেন, ‘একসময় আমার হৃদয়েও একটা হিটলার বাস করতো’। কিন্তু সেই ঘৃণার প্রকাশে মাদারা তেরেসা কিন্তু একটা খেলনা গাড়িও ভাঙেননি। কারণ, এই ঘৃণাটা যতই প্রকাশ করতে যাবেন, দেখবেন ততই আপনার সহনশীলতা হারিয়ে যাচ্ছে, ততই আপনার ভেতর বাড়ছে ‘সীমালঙ্ঘন’-এর প্রবণতা।

তোতা হারানো লোকটার কাছে যাই এবার। তোতাকে বুলি শিখিয়ে বিপদে পড়েছেন তিনি। তোতাটা যে তার স্কুলের ছাত্র, এটা সবাই জানে। তার শেখানো বুলিতে যে গলদ আছে সেটাও জানা কথা।

কিন্তু ওই লোকটা জানে না যে তোতাকে বুলি শেখানোর প্রক্রিয়াটাই ভুল। তোতাকে বুদ্ধিমান বানাতে চাইলে সবার আগে তাকে খাঁচামুক্ত করতে হবে। তাকে তার চোখ দিয়ে বিশ্বটাকে দেখতে দিতে হবে। প্রয়োজনে টেলিস্কোপ কিনে দিয়ে মহাবিশ্ব দেখতে দিতে হবে। তারপর বলতে হবে, ‘এই দেখ বাছা, মহাবিশ্ব কত বিশাল। এটার কিন্তু সীমা-পরিসীমা নেই। এর তুলনায় আমাদের দুনিয়া অতি ক্ষুদ্র। তবে নিজেকে যতই ক্ষুদ্র মনে হোক, মহাবিশ্বের বিশালতার চেয়ে আমাদের জীবন কিন্তু অনেক বড়। আমরা কেন বড়? আমরা জানি আমাদের নাম মানুষ, একটা গ্যালাক্সি কিন্তু জানে না যে ওর নাম গ্যালাক্সি। সুতরাং জীবন একটা উপহার। হিংস্রতার চক্রে আটকে গিয়ে বেমক্কা মরে যাওয়ার জন্য এ জীবন নয় রে বোকা।’

তাই তোতা হারানো মানুষটাকে বলি, পাখিকে মারধর করে মুখস্থ বুলি আওড়াতে না শিখিয়ে সত্যিকারের কথা বলতে শেখান, এ ডাল ও ডালে উড়তে শেখান। কিচিরমিচির করতে দিন। মহাবিশ্বের বিশালতা থেকে শুরু করে কোয়ান্টাম এনট্যাঙ্গলমেন্টের মতো জটিল তত্ত্ব বোঝার সুযোগ করে দিন। তবেই দেখবেন, তার ভেতর ইতিবাচক একটা বিভ্রান্তির জন্ম হবে, আর সেই বিভ্রান্তি থেকেই শুরু হবে প্রকৃত শিক্ষা। তারপর হঠাৎ একদিন সে উপলব্ধি করতে পারবে যে ধর্ম মানে স্কুল বা মাদ্রাসার একটি পাঠ্যপুস্তক নয়।

লেখক: সাংবাদিক

/এসএএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

পাপের বোঝা হালকা হলো কি?

পাপের বোঝা হালকা হলো কি?

আফগানিস্তানে একটি বাতি বদলাতে ক’জন লাগবে?

আফগানিস্তানে একটি বাতি বদলাতে ক’জন লাগবে?

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

সর্বশেষ

১২শ’ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে এডিবি

১২শ’ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে এডিবি

সেনাপ্রধানের সঙ্গে জাপানের রাষ্ট্রদূত ও তুরস্কের নৌ প্রধানের সাক্ষাৎ

সেনাপ্রধানের সঙ্গে জাপানের রাষ্ট্রদূত ও তুরস্কের নৌ প্রধানের সাক্ষাৎ

বাড়ছে মূল্যস্ফীতি

বাড়ছে মূল্যস্ফীতি

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিল

ভারতকে তাদের মাঠেই হারিয়ে দিলো বাংলাদেশের যুবারা

ভারতকে তাদের মাঠেই হারিয়ে দিলো বাংলাদেশের যুবারা

ওমিক্রন: শঙ্কা থাকলেও স্থল সীমান্ত খুলেছে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া

ওমিক্রন: শঙ্কা থাকলেও স্থল সীমান্ত খুলেছে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া

নির্বাচিত ও পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংঘর্ষে আহত ১৫

নির্বাচিত ও পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংঘর্ষে আহত ১৫

ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের নৈপুণ্যে আবাহনীর জয়

ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডারের নৈপুণ্যে আবাহনীর জয়

বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ এখন বন্ধুত্বপূর্ণ দেশ: আইনমন্ত্রী

বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ এখন বন্ধুত্বপূর্ণ দেশ: আইনমন্ত্রী

আ.লীগের মনোনয়নপত্র নিলেন মেয়র আইভী

আ.লীগের মনোনয়নপত্র নিলেন মেয়র আইভী

বাক্কোর ১ম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

বাক্কোর ১ম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

আফগানিস্তানকে বিপর্যয়ে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র: রাশিয়া

আফগানিস্তানকে বিপর্যয়ে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র: রাশিয়া

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

© 2021 Bangla Tribune