X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বিএডিসিতে অনিয়ম পর্ব- ৮

খরচের চেয়ে বিল বেশি!

আপডেট : ১২ জুলাই ২০২১, ১৬:১১

নানা অনিয়মে চলছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)বিভিন্ন প্রকল্পে কাজের চেয়েও ঠিকাদারকে বিল বেশি পরিশোধ করে আত্মসাৎ করা হয়েছে বিপুল পরিমাণ টাকাএ নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের ধারাবাহিক প্রতিবেদনের অষ্টম পর্ব আজ

ফোর্সমোড নলকূপ স্কিমে ইউপিভিসি পাইপ দিয়ে ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণে প্রকৃত খরচের চেয়েও সাড়ে ছয় লাখ টাকা বেশি পরিশোধ হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার যোগসাজশে আত্মসাৎ হয়েছে অতিরিক্ত অর্থ। এভাবে বিএডিসির বিভিন্ন প্রকল্পে বিপুল পরিমাণ টাকা অনিয়মের মাধ্যমে আত্মসাৎ হয়েছে।

প্রকল্পের পানি নিয়ন্ত্রণ বা সংরক্ষণ অবকাঠামো নির্মাণেও প্রাক্কলনের চেয়ে বেশি কাজ দেখিয়ে ঠিকাদারদের প্রায় ১২ লাখ ৪৪ হাজার এবং বিভিন্ন পূর্তকাজের বিপরীতে দুই লাখ টাকারও বেশি অতিরিক্ত বিল পরিশোধ করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির এক নিরীক্ষা প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সিলেটের শেখঘাট বিএডিসির ক্ষুদ্র সেচ উন্নয়ন প্রকল্পের বাজেট আওতাভুক্ত সিলেট ও হবিগঞ্জ অঞ্চলের ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ১ দশমিক ৫/২ কিউসেক ভূ-গর্ভস্থ সেচনালা নির্মাণ করা হয়। নথি, বিল-ভাউচার, ব্যয় বিবরণী ও রেকর্ডপত্র পর্যালোচনায় দেখা গেছে, এ প্রকল্পে প্রকৃত খরচের চেয়ে বার্ষিক হিসাব বিবরণীতে বেশি দেখানো হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ টাকারও বেশি।

প্রকল্পের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের হিসাব কোড- ৪১১৩০৬ খাতে সেচনালা নির্মাণে ২০১৯ সালের ৩০ জুন ১৭৪, ১৫৮, ১৮০ নং বিলের মাধ্যমে ৩২ লাখ ২৪ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়। একই বছরের ১৭ এপ্রিল ৬৫ নং বিলের মাধ্যমে প্রায় ১০ লাখ ৮৫ হাজার টাকা এবং ১০৬ নং বিলের মাধ্যমে ১০ লাখ ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়।

সব মিলিয়ে খরচ হয় ৫৩ লাখ ৯১ হাজার টাকা। অথচ, হিসাব বিবরণীতে দেখানো হয় ৬০ লাখ ৪৬ হাজার টাকা। অনিয়মে জড়িতদের দায় নির্ধারণ করে ক্ষতির টাকা আদায় করতে প্রতিবেদনে সুপারিশ করা হয়েছে।

বিএডিসি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বলছে, সেচনালা নির্মাণে বাড়তি অর্থ প্রকল্পের আওতাধীন সিলেট দফতরে বরাদ্দ দিয়েছেন সিলেট বিএডিসির সহকারী প্রকৌশলী। এতে প্রকল্পের ক্ষতি হয়নি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই অর্থের কোনও অংশ প্রকল্পের আওতাধীন সহকারী প্রকৌশলী (সওকা) সিলেট দফতর হতে পরিশোধ করা হয়েছে কিনা তার প্রমাণ নেই।

এ অবস্থায় পূর্ণাঙ্গ হিসাব বিবরণী দাখিল কিংবা বাড়তি টাকা আদায় করা সরকারি কোষাগারে জমার সুপারিশ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

একই প্রকল্পের ‘পানি নিয়ন্ত্রণ বা সংরক্ষণ অবকাঠামো’ নির্মাণে প্রাক্কলনের চেয়ে বেশি কাজ দেখিয়ে বিল দেওয়া হয় ঠিকাদারকে। এতে বাড়তি ১২ লাখ ৪৪ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়। শুধু ঠিকাদারকে সুবিধা দিতেই এমন দুর্নীতি হয়েছে- এমনটাই বলা হয়েছে প্রতিবেদনে।

সিলেট বিভাগ ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন প্রকল্পে ২০১৮ সালের ১৭ ডিসেম্বর ৩০৫ নং কার্যাদেশে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের সাতপাইকা মৌজায় ফুলছড়ি ছড়ার ওপর মমতাজ উল্লার বাড়ির পাশে মাঝারি আকারের পানি নিয়ন্ত্রণ বা সংরক্ষণ অবকাঠামো নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এর জন্য কার্যাদেশ দেওয়া হয় নিয়াজ ট্রেডার্সকে।

নথি পর্যালোচনায় দেখা যায়, ২০১৯ সালের ৩০ জুন ১৭৩ নং বিলের মাধ্যমে ওই কাজের জন্য প্রায় ২৬ লাখ ৫১ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়।

এ কাজের প্রাক্কলনের আইটেম নং ১-এর প্রাক্কলিত কাজের পরিমাপ ছিল ৮২৫ ঘনমিটার, ৮-এর পরিমাপ ছিল ১.২৫ ঘনমিটার, ৯-এর ২৫ বর্গমিটার, ১৬-এর ৭১৫.৭৯ কেজি এবং ২৪-এর পরিমাপ ছিল ৬ হাজার ৬৫০ কেজি।

কিন্তু ১-এর প্রাক্কলিত কাজের বিপরীতে বিলে পরিমাপ দেখানো হয় ৩ হাজার ৮৮৫ ঘনমিটার, ৮ নং-এর বিপরীতে দেখানো হয় ১০ দশমিক ১২৫ ঘনমিটার, ৯-এর বিপরীতে ৭১ বর্গমিটার, ১৬-এর বিপরীতে ৭৯২ দশমিক ৮৫ কেজি এবং ২৪-এর বিপরীতে ৭ হাজার ৮৫৭ দশমিক ৮৫ কেজি।

প্রাক্কলনের চেয়ে বেশি কাজ দেখিয়ে বিল পরিশোধ হয় ৮ লাখ ১৬ হাজার টাকা।

একইভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর ও সদর উপজেলার ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন কর্মসূচি থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মেসার্স রেজাউল আলমকে ৪৫ নং বিলে, ২০১৮ সালের ২৬ জুন আলিফ কন্সট্রাকশনকে ২ নং বিলে, ২০১৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ৮ নং বিলে, ২৮ ফেব্রুয়ারি সেচনালা নির্মাণ বাবদ ৫৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়। এতেও প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি প্রায় ৩ লাখ ৮১ হাজার টাকা।

অপরদিকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে আশুগঞ্জের সেলিম মিয়াকে ৬ নং বিলে ও ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সেচনালা নির্মাণ বাবদ ১০ লাখ ৯১ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়। এতে অতিরিক্ত খরচ হয় ৪৭ হাজার টাকা।

বিএডিসির সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালক জানিয়েছেন, দরপত্র আহ্বানের আগে সাইটের নাম উল্লেখ না করে একটি মডেল প্রাক্কলন প্রস্তুত করা হয়। পরে সাইট সিলেকশনের পর সয়েল টেস্ট করে নকশা প্রস্তুত করার পর কাজের পরিমাণ সংশোধন করা হয়। কিন্তু ঠিকাদার যে দর দিয়েছেন তা প্রাক্কলিত মূল্যের চেয়ে ১০ শতাংশ কম হওয়ায় বেশি কাজ হয়নি।

প্রাক্কলিত দরের সঙ্গে সামঞ্জস্য থাকে না

প্রকল্প পরিচালকের এই জবাব গ্রহণযোগ্য নয় বলে মনে করছে নিরীক্ষা দল। তারা বলছে, নথিতে রক্ষিত প্রাক্কলনের ভিত্তিতে অনিয়ম ধরা পড়েছে। নথিতে সংশোধিত প্রাক্কলন পাওয়া যায়নি। কর্তৃপক্ষকে সংশোধিত কোনও প্রাক্কলনও দেওয়া হয়নি। এতে পিপিএ ২০০৬-এর ধারা ৬৪ (৩) লঙ্ঘন হয়েছে। এই ধারা অনুযায়ী দায়ীদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও অতিরিক্ত পরিশোধিত অর্থ আদায় করে কোষাগারে জমা দিতে বলা হয়েছে।

বিভিন্ন পূর্তকাজের কার্যাদেশেও প্রদত্ত মূল্যের চেয়ে ঠিকাদারদের অতিরিক্ত বিল দেওয়া হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর ও সদর উপজেলার ক্ষুদ্রসেচ উন্নয়ন কর্মসূচির ২০১৫-১৮ অর্থবছরের হিসাব কর্মসূচির ব্যয় বিবরণী, বিভিন্ন পূর্তকাজের কার্যাদেশ, বিল ও নথিপত্র এবং আনুষঙ্গিক রেকর্ডপত্র যাচাই করা হয়। এতে দেখা যায় যে, ওয়াটার পাস বা কন্ডুইট নির্মাণ ও আরসিসি আউটলেট নির্মাণকাজের কার্যাদেশে ঠিকাদারকে অতিরিক্ত বিল দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ঠিকাদারকে কোনও লিখিত নোটিশ দেওয়া হয়নি। ভেরিয়েশন অর্ডারও জারি হয়নি। তারপরও ঠিকাদার অতিরিক্ত কাজ দেখিয়ে বেশি বিল নিয়েছে। এতে সব মিলিয়ে প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি হয়েছে ২ লাখ ৯ হাজার টাকা। যা ঠিকাদারদের কাছ থেকেই আদায়যোগ্য বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

এ বিষয়ে নিয়ে জানতে চাইলে সিলেট সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ও নির্বাহী প্রকৌশলী প্রনজিত কুমার দেব বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এগুলোতো প্রকল্প থেকে কেনা। প্রকল্পের মেয়াদ শেষে আপত্তিগুলো হেড অফিস দেখে। এখন তা কোন অবস্থায় আছে তা জানা নেই।’

জানতে চাইলে বিএডিসি’র চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিষয়গুলো নিয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছে জবাব চেয়েছি। এটা নিষ্পত্তি করা না হলে তারা পেনশন পাবেন না।’

/এফএ/
টাইমলাইন: বিএডিসিতে অনিয়ম
১৪ জুলাই ২০২১, ১২:৫৭
১৩ জুলাই ২০২১, ১১:০০
১২ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
খরচের চেয়ে বিল বেশি!

সম্পর্কিত

আশ্রয়ণ প্রকল্পে ‘দুর্নীতি ও অনিয়মের’ সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

আশ্রয়ণ প্রকল্পে ‘দুর্নীতি ও অনিয়মের’ সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

অবৈধ পদোন্নতির হিড়িক স্বাস্থ্য অধিদফতরে

অবৈধ পদোন্নতির হিড়িক স্বাস্থ্য অধিদফতরে

চাকরির আট বছরেই ১২ কোটি টাকার মালিক বিআরটিএ কর্মকর্তা

চাকরির আট বছরেই ১২ কোটি টাকার মালিক বিআরটিএ কর্মকর্তা

এসকে সিনহার মামলার রায় ৫ অক্টোবর

এসকে সিনহার মামলার রায় ৫ অক্টোবর

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:১৪

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বড় ভাইকে নৃশংসভাবে খুন করে আপন ছোট ভাই। আবার সেই ছোট ভাই নিজেই হত্যা মামলা দায়ের করে। বিচার চায় বড় ভাই হত্যার। তবে তার শেষ রক্ষা হয়নি। কিশোরগঞ্জ জেলা পিবিআই-এর তদন্তে হত্যারহস্য উদঘাটিত হয়েছে, গ্রেফতার করা হয়েছে বাদী ছোট ভাইকে।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) কিশোরগঞ্জ জেলার পিবিআই’র পুলিশ সুপার (ইউনিট ইনর্চাজ) শাহাদাত হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২৮ জুলাই কিশোরগঞ্জের ভৈরবে স্বপন মিয়া (৩৮) নামে এক ব্যক্তি খুন হন। একটি কালভার্টের নিচে তার লাশ পাওয়া যায়। এই ঘটনায় তার আপন ছোট ভাই রিপন মিয়া ভৈরব থানায় একটি হত্যা মামলা করে। প্রথমে মামলাটি ভৈরব থানা পুলিশ তদন্ত করে। গত ১ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। তদন্তের ১৫ দিনের মাথায় হত্যার সঙ্গে জড়িত ছোট ভাই ও মামলার বাদী রিপন মিয়াসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে রিপন মিয়া হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

ভিকটিম স্বপন মিয়া

পিবিআই জানায়, নিহত স্বপন মিয়ারা চার ভাই ও একবোন। ভাইদের মধ্যে খোকন মিয়া সবার বড়। সৌদি প্রবাসী স্বপন মিয়া স্থানীয় বাজারে চা বিক্রেতা। সেজ ভাই রিপন মিয়া। সে মালয়েশিয়ায় ছিল। ঘটনার ২/৩ বছর আগে রিপন মিয়া দেশে আসে। এরপর করোনার কারণে আর যাওয়া হয়নি। সবার ছোট সোহেল মিয়া  বুদ্ধি প্রতিবন্ধী। স্বপন মিয়া খুন হওয়ার তিন দিন পর তার ছেলের জন্ম হয়। তাই তার স্ত্রী মামলার বাদী হতে পারেননি।

যেভাবে হত্যা করা হয় স্বপনকে

স্বপন মিয়ার ছোট ভাই রিপন মিয়া নিয়মিতভাবে তার পরিচিত কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে ইয়াবা ও গাঁজা সেবন করতো। এছাড়া ভিকটিম স্বপন মিয়া’র সঙ্গে রিপনের জমিজমা বণ্টন নিয়ে বিরোধ ছিল। রিপনকে নেশা করতে স্বপন মিয়া বাধা দিতো। এতে বড় ভাই স্বপনের ওপর ক্ষিপ্ত হয় রিপন মিয়া। এছাড়াও বাড়ির রাস্তা নির্মাণের খরচ পনের হাজার টাকা না দেওয়ায় বড় ভাই স্বপন মিয়ার ওপর প্রতিশোধ নেওয়ার পথ খুঁজতে থাকে।

গত ২৫ জুলাই রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে  রিপন মিয়া তার পূর্ব পরিচিত আব্দুর রফ, ইমান আলী, সবুজ, বুলবুল আলমকে নিয়ে স্বপন মিয়াকে হত্যার পরিকল্পনা করে।

এদের মধ্যে বুলবুল চুরি, ডাকাতি, খুন ও মাদক কারবারিতে জড়িত। পরিকল্পনা অনুযায়ী আসামি রিপন মিয়ার দেওয়া দুশ টাকায় ইমান আলী এবং বুলবুল ভৈরব বাজার বাইন্নাপট্রি থেকে এসিড কিনে আনে।

গত ২৬ জুলাই রাত ১২টার দিকে এসিডের বোতলসহ রিপন মিয়া, ইমান আলী, সবুজ, বুলবুল, আব্দুর রব ভৈরবের লতিফ মাকের্টের ভেতরে অবস্থান করে। ভিকটিম স্বপন মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে লতিফ মার্কেটের সামনে এলে তারা ভিকটিমকে ঘিরে ধরে। বুলবুল ও সবুজ ভিকটিমকে পিছন থেকে গামছা দিয়ে নাকে মুখে পেঁচিয়ে ধরে। ইমান আলী ও আব্দুর রব ভিকটিম স্বপনকে একটি গাড়িতে তোলে। গাড়ি ছোট রাজাকাটা কবরস্থানের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ভিকটিম স্বপন মিয়া চলন্ত গাড়ি থেকে লাফ দিয়ে দৌড় দেন। ইমান আলী তার হাতে থাকা এসিডের বোতল তার নাকমুখ লক্ষ্য করে ছুড়ে মারে। স্বপন মিয়া বাঁচার জন্য জোরে চিৎকার দিতে দিতে দৌড়ে পাশে বিলের পানিতে লাফ দেয়। বিলের পানিতে মাথা চেপে ধরে স্বপন মিয়াকে হত্যা করে তারা।

সেখান থেকে লাশটি বিল থেকে উঠিয়ে ৫০ থেকে ৬০ গজ দূরে নিয়ে একটি কালভার্টের নিচে রেখে পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে ২৯ জুলাই রিপন বাদী হয়ে ভৈরব থানায় হত্যা মামলা করে।

গত ১ সেপ্টেম্বর মামলাটি কিশোরগঞ্জ জেলা পিবিআই তদন্ত শুরু করে। তদন্তের ১৫ দিনের মাথায় মামলার রহস্য উদঘাটন করে। গত শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রিপন মিয়া, আব্দুর রব,  ইমান আলী ও সবুজকে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পিবিআই কিশোরগঞ্জ টিম। তবে গাড়িচালক এখনও পলাতক।

/এআরআর/এমআর/

সম্পর্কিত

মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও রেজিস্ট্রারকে তলব

মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও রেজিস্ট্রারকে তলব

গাজীপুরের জেলা রেজিস্ট্রার ও তার স্ত্রীর সম্পদ অনুসন্ধান করছে দুদক 

গাজীপুরের জেলা রেজিস্ট্রার ও তার স্ত্রীর সম্পদ অনুসন্ধান করছে দুদক 

সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন কেন নয়: হাইকোর্ট

সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন কেন নয়: হাইকোর্ট

কাউন্সিলর সেন্টুর সম্পদের তথ্য জানতে চেয়েছে দুদক

কাউন্সিলর সেন্টুর সম্পদের তথ্য জানতে চেয়েছে দুদক

শিশুদের টিকা কার্যক্রমও শুরু হবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০০

সুনির্দিষ্ট তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে শিশুদের টিকা কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম ফেসবুক লাইভে এসে এ কথা জানান।

শিশুদের টিকা দেওয়ার বিষয়টি অনেক সংবেদনশীল উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বিষয়টি অনেক সংবেদনশীল। আমরা চেষ্টা করছি প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন মাথায় রেখে কীভাবে শিশুদের টিকার আওতায় আনা যায়। স্কুল খুলে দেওয়া হয়েছে, তাই এই কাজটি দ্রুত করার জন্য নির্দেশনা রয়েছে। আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

ভ্যাকসিন প্রদান পরিকল্পনা নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, দেশের অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি প্রবাসী শ্রমিকরা। তাদের টিকাদানের জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতর অঙ্গীকারবদ্ধ। প্রবাসী শ্রমিক-বিদেশগামী শিক্ষার্থীসহ যাদের সুনির্দিষ্ট টিকা ছাড়া দেশের বাইরে যাওয়া সম্ভব নয়, সে কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছি এবং তাদের টিকা দিয়ে যাবো।

এয়ারপোর্টে র‌্যাপিড আরটি-পিসিআর টেস্ট নিয়ে তিনি বলেন, আমাদের এ কাজে কারিগরি সহায়তা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। আমাদের বলা হয়েছিল, যারা আবেদন করবেন; সে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের কাগজপত্র-সক্ষমতা যাচাই করে কিছু ল্যাবরেটরিকে যেন অনুমোদন দিই। সে লক্ষ্যে যাচাই-বাছাই করে আমরা কয়েকটি ল্যাবরেটরিকে অনুমোদন দিয়েছিলাম। এরমধ্যে দুটো প্যারামিটার বা নির্দেশনা ছিল দ্রুত ল্যাব স্থাপন করা এবং কম দামে টেস্ট কোন ল্যাব করতে পারবে। তার ভিত্তিতে সব কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে অনুমোদন দিয়েছিলাম। এরপর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের কাছে সেটা পাঠিয়েছি।

‘আমাদের বলা হয়েছিল টেকনিক্যাল সাপোর্ট ও একটি কমিটি করে দেওয়ার জন্য। সেই কমিটি পরে যেসব ল্যাবরেটরি কাজ করবে তাদের সক্ষমতা কার্যক্রমকে মনিটরিং করবেন। এ ছাড়া তাদের কাজের মান পর্যালোচনা করবে এবং তাদের টেস্টের ভ্যালিডিটি দেখবেন।’

অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার বলেন, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ নির্বাচিত ল্যাবরেটরি থেকে অথবা অপেক্ষমাণ যেসব ল্যাবরেটরি রয়েছে তাদের দিতে পারেন, এটা সম্পূর্ণ তাদের এখতিয়ার। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর বা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কিছু নতুন করে করার নেই।’

‘এ বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে আমাদের দোষারোপ করা হয়েছে। কিন্তু আমি বলতে পারি, এ বিষয়ে আমাদের ভূমিকা ততটুকুই, যতটুকু নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এর বেশি আমরা কাজ করিনি বা কমও করিনি। কেবল কারিগরি দিকটা মাথায় রেখে তাদের নির্বাচন করে দিয়েছিলাম’—যোগ করেন তিনি।

/জেএ/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও ২৪১ জন হাসপাতালে ভর্তি

ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও ২৪১ জন হাসপাতালে ভর্তি

‘১২-১৭ বছর বয়সীদের টিকার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি’

‘১২-১৭ বছর বয়সীদের টিকার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি’

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

৫ লাখেরও বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে আজ 

৫ লাখেরও বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে আজ 

ব্র্যাকের হাত ধরে স্বাস্থ্যবিধি শিখছে মানুষ

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১১

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে একটি বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করেন লাবনী। তার বাসা রায়ের বাজারের বেড়িবাঁধ সংলগ্ন সাদেক খান কৃষি মার্কেটের পাশে। প্রতিদিন কাজে যাওয়ার সময় কৃষি মার্কেটের কোণায় বসানো হাত ধোঁয়ার জায়গায় সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে নেন। তিনি জানান, ভালো করে সাবান দিয়ে হাত ধোয়া হলে করোনাভাইরাসসহ অন্যান্য ভাইরাসজনিত রোগ থেকে দূরে থাকা যায়। হাত ধোয়ার সেই জায়গা (হ্যান্ড ওয়াশ স্টেশন) স্থাপন করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। প্রতিষ্ঠানটির কমিউনিটি সাপোর্ট টিমের সদস্যরা মানুষকে এ ধরনের স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করছেন মাঠে।

ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি এবং জনসংখ্যা বিভাগের অধীনে কমিউনিটি সাপোর্ট টিম (সিএসটি ঢাকা) প্রকল্পের আওতায় রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশন এলাকার ৬৮টি ওয়ার্ডে ১৭০ জন স্বাস্থ্যকর্মী এবং ১৩৬ জন সেচ্ছাসেবী এই কাজে নিয়োজিত আছে সাধারণ মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি বিষয়ক সচেতন করার জন্য, যাতে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঢাকা শহরে কম হয়। ইউএনএফপিএ, এফএও এবং যুক্তরাষ্ট্রের ফরেন কমনওয়েলথ ও ডেভেলপমেন্ট অফিসের সহায়তায় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে ব্র্যাক। প্রকল্পের তথ্য অনুযায়ী, প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে চার মাসে ২ কোটি ১০ লাখ মানুষ এর থেকে লাভবান হবে। প্রকল্পটি জুন থেকে শুরু হয়ে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে বলে জানায় ব্র্যাক।

এই প্রকল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কমিউনিটি সাপোর্ট টিমের সেচ্ছাসেবীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সচেতনতা তৈরি করা, হ্যান্ড মাইকের মাধ্যমে জনবহুল জায়গায় সচেতন করা এবং ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের মাধ্যমে মানুষকে করোনাভাইরাসের বিষয়ে সচেতন করার কাজ করছে। কমিউনিটি সাপোর্ট টিমের অধীনে থাকা দুইজন কমিউনিটি স্বাস্থ্যকর্মী দুই সিটি কর্পোরেশন এলাকার বস্তিতে কিছু কিছু ক্ষেত্রে পুনর্ব্যবহারযোগ্য মাস্ক বিতরণ করে, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের শনাক্ত করে, সন্দেহজনক করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে টেলিমেডিসিন সেবার সঙ্গে সংযুক্ত করে এবং টিকার জন্য নিবন্ধনে সহায়তা করে। এ ছাড়া এখন পর্যন্ত ১৬ লাখেরও বেশি মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। পাশাপাশি দুই সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৪০৮টি হ্যান্ড ওয়াশিং স্টেশন স্থাপন করা হয়েছে এবং প্রায় ৮০০ জনকে টিকার জন্য নিবন্ধনে সহায়তা করা হয়েছে।

সেচ্ছাসেবীরা জানান, সকাল ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত তারা বিভিন্ন প্রকল্প এলাকায় কাজ করেন। মানুষকে মাস্ক বিতরণ করে তা সঠিকভাবে পরতে শেখানোসহ হাত ধোয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন তারা। এ কাজের জন্য তারা আগেই ব্র্যাকের পক্ষ থেকে প্রশিক্ষণ পেয়েছেন। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মোহাম্মদপুরের সাদেক খান কৃষি মার্কেট এলাকায় সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, সিএইচটি’র সেচ্ছাসেবীরা মাইকিং করছেন, মাস্ক বিতরণ করছেন এবং হ্যান্ড ওয়াশ স্টেশনে সাধারণ মানুষকে হাত ধোয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করছেন। এমনকি সঠিক উপায়ে হাত ধোয়ার বিষয়ে ধারনা দিচ্ছেন।

এই মার্কেটের ম্যানেজার মো সানি জানান,  ব্র্যাক এখানে এক মাসের বেশি সময় ধরে কাজ করছে। তাদের সেচ্ছাসেবীদের প্রায়ই দেখি মাস্ক দিচ্ছে। এখানে হাত ধোয়ার স্টেশন একটি বসিয়েছে তারা। কিন্তু পানির রিজার্ভারটা ছোট, চারজন হাত ধুলেই পানি শেষ হয়ে যায়। যদি একটু বড় রিজার্ভার বসানো যেত তাহলে আরও ভালো হতো।   

এই প্রকল্পের আওতায় ধর্মীয় উপাসনায়ে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে সচেতনতার লক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং বাংলাদেশ ব্যাপিস্ট চার্চ ফেলোশিপের সঙ্গে অংশীদার হয়েছে যাতে করে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে সচেতনতা তৈরি করা যায় এবং মাস্ক বিতরণ করা যায়। মোহাম্মদপুরের জাফরাবাদ জামে মসজিদের ইমাম আমানুল্লাহ ফারুক জানান, ব্র্যাক আমাদের মাস্ক দিচ্ছে আমরা তা বিতরণ করছি মসজিদে আসা মুসল্লিদের মধ্যে। এ ছাড়া যতটুকু সম্ভব স্বাস্থ্যবিধি পালন করা সম্পর্কে আমরা সচেতন করি।

ব্র্যাকের স্বাস্থ্য পুষ্টি এবং জনসংখ্যা কর্মসূচির পরিচালক মোর্শেদা চৌধুরী জানান, আমরা মানুষকে এখন উদ্বুদ্ধ করছি যেন তারা বুঝতে পারে কীভাবে করোনা প্রতিরোধ করতে হবে। যাতে একসময় কিন্তু সম্পূর্ণ বিষয়টা আমরা তাদের ওপর ছেড়ে দিয়ে চলে আসতে পারি। তারা যেন নিজেরাই তাদের কমিউনিটিতে করোনা প্রতিরোধে কাজ করতে পারে সেটাই আমাদের উদ্দেশ্য। সেটা করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে যে, সবজায়গায় সমান রেসপন্স পাওয়া যায় না। সেটা আমাদের জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ।

/এসও/এনএইচ/       

সম্পর্কিত

প্রকল্পের রেল গেট কিপারদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবি

প্রকল্পের রেল গেট কিপারদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবি

জুস কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি স্কপের

জুস কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি স্কপের

ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে সাংবাদিকদের সমাবেশ

ব্যাংক হিসাব তলবের প্রতিবাদে সাংবাদিকদের সমাবেশ

আগারগাঁওয়ে ছয়তলা ভবন থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

আগারগাঁওয়ে ছয়তলা ভবন থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্লেন্ডেড লার্নিং এগিয়ে নিতে সহযোগিতার আগ্রহ যুক্তরাষ্ট্রের

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১০

বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন শিক্ষা ও ব্লেন্ডেড লার্নিং কার্যক্রম এগিয়ে নিতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকার একটি হোটেলে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক বৈঠকে ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের প্রতিনিধি দল এ আগ্রহের কথা জানান।

ইউজিসির প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চতর ডিগ্রি আর্জনে স্কলারশিপ দেওয়ার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করেছে মার্কিন দূতাবাস।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ’র নেতৃত্বে ওই বৈঠকে অংশ নেন ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর, সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান ও আইএমসিটি বিভাগের পরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মাকছুদুর রহমান ভূঁইয়া।

অপরদিকে, ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অফিসার শন ম্যাকেনতশ, কালচারাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার শার্লিনা মরগান, কালচারাল অ্যাফেয়ার্স স্পেশালিস্ট রায়হানা সুলতানা ও ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ প্রোপ্রাম কো-অর্ডিনেটর শাওন কর্মকার দ্বি-পাক্ষিক ওই সভায় অংশ নেন।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ উচ্চশিক্ষাখাতে সহযোগিতা দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশে মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান।

ইউজিসির চেয়ারম্যান  আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনে বাংলাদেশিদের জন্য টিউশন ফি মওকুফের আহবান জানান। এক্ষেত্রে, ইউজিসি বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় লজিস্টিক সহযোগিতা দেবে বলে জানান চেয়ারম্যান।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষা ক্ষেত্রে যৌথ উদ্যোগে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের বিষয়ে দুপক্ষ একমত পোষণ করে।

/এসএমএ/এমএস/

সম্পর্কিত

এসএসসি ৫ থেকে ১১ নভেম্বর, এইচএসসি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে

এসএসসি ৫ থেকে ১১ নভেম্বর, এইচএসসি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

‘নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে আগে শিক্ষকদের প্রস্তুত করতে হবে’

‘নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে আগে শিক্ষকদের প্রস্তুত করতে হবে’

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

এসএসসি ৫ থেকে ১১ নভেম্বর, এইচএসসি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৩

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা আগামী ৫ থেকে ১১ নভেম্বর এবং এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে নেওয়ার সম্ভাব্য সূচি তৈরি করেছে আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি। পরীক্ষার শুরুর দুই সপ্তাহ আগে চূড়ান্ত সূচি নির্ধারণ করে তা প্রকাশ করা হবে।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সোশ্যাল মিডিয়ায় এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ হয়েছে বলে বিভ্রান্তি ছড়ানো হয়। এ ছাড়া অন্যান্য পরীক্ষা (জেএসসি-জেডিসি) নিয়েও বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছিল।

জানতে চাইলে আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বলেন, ‘আমরা এসএসসি পরীক্ষা শুরু করতে চাই ৫ থেকে ১১ নভেম্বরের মধ্যে। আর এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে। বোর্ড থেকে এখনও চূড়ান্ত তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি।‘

সোশ্যাল মিডিয়ায় পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ হয়েছে বলে প্রচার হচ্ছে—এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে অধ্যাপক নেহাল আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখনও চূড়ান্ত কোনও তারিখ নির্ধারণ করা হয়নি। পরীক্ষার তারিখ এত অগ্রিম দেওয়া হবে না। চূড়ান্ত তারিখ নির্ধারণ হবে পরীক্ষা শুরুর দুই সপ্তাহ আগে। তাছাড়া আমরা যদি চূড়ান্ত করেও থাকি তারপরও পরীক্ষার দু’-একদিন আগেও তারিখ পরিবর্তন হতে পারে। তাই যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা প্রকাশ না করবো ততক্ষণ পর্যন্ত আগে বলার কিছু নেই।’

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছিলেন, নভেম্বরের মাঝামাঝি এসএসসি ও ডিসেম্বরের শুরুতে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে। পরীক্ষা শুরুর দুই সপ্তাহ তারিখ জানিয়ে দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, প্রতিবছর ফেব্রুয়ারির শুরুতে এসএসসি এবং এপ্রিলের শুরুতে এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু করোনার কারণে দেড় বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। কয়েক দফা ছুটি শেষে গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হয়।

/এসএমএ/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্লেন্ডেড লার্নিং এগিয়ে নিতে সহযোগিতার আগ্রহ যুক্তরাষ্ট্রের

বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্লেন্ডেড লার্নিং এগিয়ে নিতে সহযোগিতার আগ্রহ যুক্তরাষ্ট্রের

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

শিক্ষক ও সহায়ক পদ বাড়ছে প্রাথমিকে, দ্রুত পদোন্নতির সুপারিশ

‘নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে আগে শিক্ষকদের প্রস্তুত করতে হবে’

‘নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়নে আগে শিক্ষকদের প্রস্তুত করতে হবে’

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

নতুন শিক্ষাক্রমে হিজড়াদের জন্য যা থাকছে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আশ্রয়ণ প্রকল্পে ‘দুর্নীতি ও অনিয়মের’ সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

আশ্রয়ণ প্রকল্পে ‘দুর্নীতি ও অনিয়মের’ সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

অবৈধ পদোন্নতির হিড়িক স্বাস্থ্য অধিদফতরে

অবৈধ পদোন্নতির হিড়িক স্বাস্থ্য অধিদফতরে

চাকরির আট বছরেই ১২ কোটি টাকার মালিক বিআরটিএ কর্মকর্তা

চাকরির আট বছরেই ১২ কোটি টাকার মালিক বিআরটিএ কর্মকর্তা

এসকে সিনহার মামলার রায় ৫ অক্টোবর

এসকে সিনহার মামলার রায় ৫ অক্টোবর

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা: যুক্তিতর্ক উপস্থাপন ১৪ সেপ্টেম্বর

এস কে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা: যুক্তিতর্ক উপস্থাপন ১৪ সেপ্টেম্বর

পি কে হালদারের বান্ধবী রুনাইসহ দুজনকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

পি কে হালদারের বান্ধবী রুনাইসহ দুজনকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

পি কে হালদারের অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় ১২ জনকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

পি কে হালদারের অর্থ আত্মসাতের ঘটনায় ১২ জনকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

সামর্থ্য ছাড়াই পায় ঋণ, কিস্তি ছাড়াই হয় পুনর্বিন্যাস

জনতা ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারি পর্ব-৪সামর্থ্য ছাড়াই পায় ঋণ, কিস্তি ছাড়াই হয় পুনর্বিন্যাস

অধ্যক্ষের চেয়ে বেশি বেতন পান তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজঅধ্যক্ষের চেয়ে বেশি বেতন পান তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী

সর্বশেষ

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

রোনালদো-লিংগার্ডের গোলে ম্যান ইউর দুর্দান্ত জয়

রোনালদো-লিংগার্ডের গোলে ম্যান ইউর দুর্দান্ত জয়

শিশুদের টিকা কার্যক্রমও শুরু হবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিশুদের টিকা কার্যক্রমও শুরু হবে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

দুর্নীতিবাজদের শাস্তি নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

দুর্নীতিবাজদের শাস্তি নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসিসহ ৪ জনকে বদলি

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসিসহ ৪ জনকে বদলি

© 2021 Bangla Tribune