X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

ধারাবাহিক বৈঠক শুরু আজ

শীর্ষ নেতৃত্বকে কী মত দেবেন বিএনপি নেতারা?

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৩৬

৩ বছর পর আবারও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে তিন দিনব্যাপী এ বৈঠকের প্রথম দিনের কার্যক্রম শুরু হবে বিকাল সাড়ে তিনটায়। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সর্বস্তরের নেতৃত্বের সঙ্গে আলোচনা করে রাজনৈতিক কৌশল ও নীতি চূড়ান্ত করতেই এই বৈঠক ডাকা হয়েছে বলে মনে করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যরা।

তিন দিনের ধারাবাহিক বৈঠকের প্রথম দিনে অংশ নেবেন কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্যরা। বৈঠকে লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি সভাপতিত্ব করবেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান; সঙ্গে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা অংশগ্রহণ করবেন।

দলের উচ্চ পর্যায়ের দায়িত্বশীলরা বলছেন, দলের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের সরাসরি আগ্রহে তিন বছর পর কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের সরাসরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে সাংগঠনিক কার্যক্রম। অনুষ্ঠিতব্য এই বৈঠক পরপর তিন দিন হবে। আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করার আগে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করতে এ বৈঠক ডাকা হয়েছে বলে জানান দায়িত্বশীলরা।

দলের দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, করোনার কারণে দীর্ঘদিন সাংগঠনিক সরাসরি কার্যক্রম বন্ধ ছিল। লার্জ স্কেলে মিটিং হবে তিন দিন। এই মিটিং রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ। শীর্ষ নেতৃত্ব ও দলের স্থায়ী কমিটিতে আলোচনার মধ্য দিয়েই এ বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতীয় নির্বাহী কমিটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক, সহ-সম্পাদক এবং বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের সভা অনুষ্ঠিত হবে।

বিএনপির একাধিক ভাইস চেয়ারম্যান ও উপদেষ্টা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, সাধারণত এসব বৈঠকের এজেন্ডা দেওয়া হলেও এবার তা হয়নি। সে ক্ষেত্রে আলোচনা প্রধানত কুশল বিনিময় ও পরবর্তীতে রাজনৈতিক দিকগুলো উঠে আসবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ২০১৮ সালের আগস্টে কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। ওই সময়ের একটি বৈঠকে তৃণমূলের নেতারা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জোট, জামায়াত ছেড়ে দেওয়াসহ নানা বিষয়ে মত দিয়েছিলেন। এবারও প্রায় সমধর্মী বিষয়গুলো আলোচনায় উঠে আসতে পারে- দলের কোনও কোনও নেতার এমন দাবি রয়েছে।

দলের একজন প্রভাবশালী দায়িত্বশীল বলেন, ‘আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখেই ধারাবাহিক মিটিংয়ের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে বৈশ্বিক রাজনীতি ও অভ্যন্তরীণ ইস্যু নিয়ে নিয়ে নেতাদের গঠনমূলক মতামত নেওয়ার উদ্দেশ্যে বৈঠকের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সে ক্ষেত্রে নির্বাচনে অংশগ্রহণ, দাবি মানাতে আন্দোলন-কর্মসূচি, জোটসহ নানা প্রসঙ্গ থাকবে।’

চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ড. ইনামুল হক চৌধুরী মনে করছেন, দেশে বিরাজনীতিকরণের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে রাজনীতিকদেরই সক্রিয় হতে হয়। দেশের সার্বভৌমত্ব, স্বাধীনতা ও বাস্তবতাকে সামলে নিতে রাজনীতিকরাই ভূমিকা রাখেন। সেজন্যই ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অভিভাবক হিসেবে দায়িত্ব, নির্দেশনা দেবেন।

ড. ইনামুল হক চৌধুরী বলেন, ‘করোনার কারণে অনেকদিন দলের সরাসরি বৈঠক হয়নি। আমাদের অনেক সদস্য ইন্তেকাল করেছেন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দলের অভিভাবক। সবাই কেমন আছেন, সেটাও জানা দরকার। আমাদের মধ্যে কুশল বিনিময়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে।’

দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের ঘনিষ্ঠ একজন জানান, বিগত সময়ে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সামনে নেতারা গঠনমূলক মতামতের চেয়ে আবেগপূর্ণ মতামতই ব্যক্ত করতেন বেশি। সে ক্ষেত্রে এবার পরিস্থিতি কেমন হবে— তা নির্ধারণ হবে মূলত বৈঠকের সভাপতির মনোভাবের ওপর। শীর্ষ নেতৃত্বের পক্ষ থেকে মতামতের বিষয়ে সুস্পষ্ট আগ্রহ দেখানো হলেই দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতারা গঠনমূলক আলোচনা করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন, বলে দাবি করেন তিনি।

দলের শীর্ষ নেতৃত্বের আরেক ঘনিষ্ঠ দায়িত্বশীল বলেন, ‘আমার অনুমান হচ্ছে— আসন্ন নির্বাচনের আগে ফ্যাসিবাদবিরোধী সামগ্রিক ঐক্যের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার লক্ষে দলের সব টায়ারের নেতাকর্মীদের যুক্ত করা এবং সর্বোচ্চ সিদ্ধান্তের সঙ্গে নেতাকর্মীদের সম্মিলন ঘটানোর চিন্তা থেকে ধারাবাহিক বৈঠক ডাকা হয়েছে।’

জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘এতদিন করোনা ছিল। ভার্চুয়ালি মিটিং হলেও অনেকদিন পর সরাসরি মিটিং করবো। মতবিনিময় করবো। আর রাজনৈতিকভাবে কী হবে, সেটা মিটিংয়ের পর বলা যাবে।’

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর

জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৩৪

আগামী ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার ও শনিবার) দুদিনব্যাপী জাসদের জাতীয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ওই সভা শুরু হবে। পরদিন শনিবার রাত পর্যন্ত চলবে। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দলের দফতর বিভাগ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন জানান, সভায় দেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দলের রাজনৈতিক ভূমিকা জোরদার করা, জাসদ প্রতিষ্ঠার ৫০বছর উদযাপনে বছরব্যাপী কর্মসূচি প্রণয়ন করা, জেলা-উপজেলা তৃণমূলে দলের সাংগঠনিক কাজ জোরদার করাসহ রাজনৈতিক এবং সাংগঠনিক বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হবে।

জাসদ জাতীয় কমিটির এ সভায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির সকল সদস্য, সকল জেলা ও মহানগর কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা ছাড়াও বিশেষ আমন্ত্রণে কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্যরা অংশ নেবেন। সভায় সভাপতিত্ব করবেন দলের সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি। সভায় দলের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি রাজনীতির সর্বশেষ পরিস্থিতির ওপর খসড়া রাজনৈতিক রিপোর্ট উপস্থাপন করবেন।

 

/এসটিএস/এমআর/

সম্পর্কিত

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৪৮

চট্টগ্রাম-সিলেট-রংপুর-ময়মনসিংহ-কুমিল্লা, এই ৫টি সাংগঠনিক বিভাগের বিএনপি নির্বাহী কমিটি সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতিদের সঙ্গে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মতবিনিময় সভা শুরু হয়েছে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টায় গুলশানে চেয়ারপারসনের অফিসে দ্বিতীয় দফা বৈঠকের দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

দলের চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, মঞ্চে রয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সেলিমা রহমান ও  ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

বৈঠকে উপস্থিত ৮৫ জন সদস্যের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন— আবদুল খালেক, রফিক শিকদার, মঞ্জুরুল আহসান, জাহাঙ্গীর আলম, মমিনুল হক, এস এম কামাল উদ্দিন চৌধুরী, মোস্তফা খান সফরী,মাহবুব ইসলাম মাহবুব কাজী রফিক, শেখ মো. শামীম, খন্দকার মারুফ হোসেন, একরামুল হক বিপ্লব, আলাউদ্দিন হেনা, জিয়াউদ্দিন, সালাউদ্দিন ভূইয়া শিশির, জিল্লুর রহমান, সিরাজুল হক, রশিদুজ্জামান মিল্লাত, সুলতান মাহমুদ বাবু, মাহমুদুল হক রুবেল, ইকবাল হোসেন, রফিকুল ইসলাম, লায়লা বেগম, শামসুজ্জামান মেহেদী, আরিফা জেসমিন, রাবেয়া আলী, ডা. আনোয়ার হোসেন, মোতাহার হোসেন তালুকদার, মো. ইকবাল, মিজানুর রহমান চৌধুরী, আরিফুল হক চৌধুরী, শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, আবু কাহের শামীম, শাহ মোস্তফা, মজিবুর রহমান, হাসনা আক্তার সানু,গোলাম হায়দার, কাজী মফিজুর  রহমান, ফোরকান ই আলম, সাচিং প্রু জেরী, মামুনুর  রশিদ মামুন, হুম্মাম কাদের, মাজহারুল ইসলাম, সুশীল বড়ুয়া, বজলুল করিম চৌধুরী আবেদ, মশিউর রহমান, শাহাদাত হোসেন, শাহ আলম, আবু সুফিয়ান, মাহফুজল্লাহ ফরিদ, মর্তূজা চৌধুরী তুলা, এ জেড এম রেজওয়ানুল হক,আখতারুজ্জামান মিয়া,বিলকিস ইসলাম, সাইফুর রহমান রানা, আমিনুল ইসলাম, মীর্জা ফয়সাল, ফরহাদ হোসেন আজাদ, হাসান রাজিব প্রধান, জহিরুল বাচ্চু, মো. শামসুজ্জামান সাবু, গফুর সরকার প্রমুখ।

. বৈঠকে শোক প্রস্তাব উপস্থাপন করেছেন সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান সালেহ প্রিন্স। করছেন প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বৈঠকটি সঞ্চালনা করছেন।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) ঢাকা ও ফরিদপুর বিভাগীয় পর্যায়ের নির্বাহী কমিটির সদস্যরা বৈঠক করেছেন। এর আগে গত ১৪, ১৫ ও ১৬ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক ও সম্পাদকমণ্ডলী এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছে বিএনপি।

 

/এসটিএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

২১-২৩ সেপ্টেম্বর বিএনপির মতবিনিময়

২১-২৩ সেপ্টেম্বর বিএনপির মতবিনিময়

ইসি পুনর্গঠনের আগে আইন প্রণয়নের দাবি বাংলাদেশ ন্যাপের

ইসি পুনর্গঠনের আগে আইন প্রণয়নের দাবি বাংলাদেশ ন্যাপের

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৪৭

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত হলে হুইলচেয়ারে করে চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত করতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া যদি মুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে দেশবাসীর প্রত্যাশা কী ছিল? জিয়ার কবর জিয়ারত করার জন্য বেগম খালেদাকে অনন্ত হুইলচেয়ারে করে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন। উনি (খালেদা জিয়া) কি যেতে পেরেছেন? সেটা যদি হতো তাহলে আজ এখানে ঝড় বসতো, সেই উত্তাল ঝড়ে ভোট ডাকাতরা পালিয়ে যেত। আর যদি বেগম খালেদা জিয়া বন্দি থাকেন তাহলে তাকে মুক্তির ব্যবস্থা করুন।

খালেদা জিয়াকে ‘সাহসী মহিলা’ উল্লেখ করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, প্রথমবার যখন ক্ষমতায় এসেছিলেন তখন আমি বলেছিলাম ট্রানজিট দিয়েন না। তিনি আমার পরামর্শ নিয়েছিলেন। আজকে দেখেন ট্রানজিটে কী পরিমাণ লুট হচ্ছে। এজন্য বলি আমাদের খালেদা জিয়াকে দরকার। ওনাকে আরও ছয় মাসের জামিন দিয়েছে। যদি ছয় মাস জেল স্থগিত করা হয় তাহলে তো উনি মুক্ত। ছয় মাসের জন্য যদি মুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে কবে থেকে মুক্ত বা কবে থেকে মুক্ত হবেন? 

বিএনপির উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, মেনমেন করা বাদ দিয়ে মাঠে নামেন। এই ভোট ডাকাতদের সরাতে চাইলে লাঠিসোটা যা আছে নিয়ে নেমে পড়েন। তাদের সরিয়ে অন্য কাউকে আনলেই হবে না। একটা সুষ্ঠু সরকার প্রয়োজন। যেখানে জনগণের অধিকার থাকবে। আমার ভোট আমি যাকে ইচ্ছা তাকে দেবো। ধর্মের নামে অনাচার হবে না।

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির চেয়ারম্যান কে এম আবু তাহেরের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ পার্টির মেজর জেনা‌রেল (অব) চেয়ারম্যান সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর প্রমুখ।

/জেডএ/এনএইচ/

সম্পর্কিত

ইসি পুনর্গঠনের আগে আইন প্রণয়নের দাবি বাংলাদেশ ন্যাপের

ইসি পুনর্গঠনের আগে আইন প্রণয়নের দাবি বাংলাদেশ ন্যাপের

ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু করার দাবি ওয়ার্কার্স পাটির

ইউপি নির্বাচন সুষ্ঠু করার দাবি ওয়ার্কার্স পাটির

আমাদের ১৬ কোটি মানুষ তালেবানদের কয়েক বছর খাওয়াতে পারেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

আমাদের ১৬ কোটি মানুষ তালেবানদের কয়েক বছর খাওয়াতে পারেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

শিক্ষা আন্দোলন সফল করতে হবে ছাত্রদের: এম এম আকাশ

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৩৬

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতিসংঘের সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট সল্যুশনস নেটওয়ার্ক (এসডিএসএন) দারিদ্র্য দূরীকরণ ও সবার জন্য শান্তি-সমৃদ্ধি নিশ্চিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করে বাংলাদেশকে সঠিক পথে এগিয়ে নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘এসডিজি অগ্রগতি পুরস্কারে’ ভূষিত করেছে।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী তাঁর বাসভবনে ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যের (এমডিজি) নানা ক্ষেত্রে সফলতা অর্জনের পর টেকসই উন্নয়নে দ্রুত এগিয়ে চলার ক্ষেত্রে যুগান্তকারী সাফল্যের জন্য এই বিশ্ব স্বীকৃতি অর্জিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে এই অনন্য অর্জন মাইলফলক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন সংক্রান্ত নবম বার্ষিক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের পূর্ণ অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট উন্নয়ন অর্থনীতিবিদ জেফ্রিস্যাক্স "জুয়েল ইন দি ক্রাউন অব দি ডে" হিসেবে অভিহিত করেন।

তিনি জানান, অর্থনীতিবিদ জেফ্রিস্যাক্স বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি চলাকালে ও এসডিজি অর্জনে শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টার জন্য তাঁর নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

ওবায়দুল কাদের বিশ্ব পর্যায়ে বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠার জন্য আওয়ামী লীগসহ দেশের সব মানুষের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান।

তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্যের জবাবে বলেন, দেশের মানুষ ভালো আছে বলেই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীররা ভালো নেই।

তিনি বলেন, এ জন্যই বিএনপি মহাসচিব কাল্পনিক অভিযোগ করে বলছেন দেশের মানুষ ভালো নেই। আসলে দেশের মানুষ করোনার অভিঘাত মোকাবিলা করে ভালো আছে বলেই বিএনপি নেতাদের কষ্ট হচ্ছে।

ক্ষমতার মোহে অন্ধ, মিথ্যাচার আর বিষোদগারকে যারা রোজনামচায় পরিণত করেছে, তারা মানুষের ভালো থাকা পছন্দ করবে না এটাই স্বাভাবিক।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নেতিবাচক রাজনীতি মানসিকতার কারণে বিএনপিই নিজেদের ভালো থাকার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

করোনার অভিঘাত মোকাবিলা করে জীবন এখন স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে আসতে শুরু করেছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি এখন গৃহকোণে বসে নসিহত করছে। তাদের এমন আচরণ একদিকে মানুষের এগিয়ে চলার উদ্যমকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, অপরদিকে নিজেদের হতাশাকে জাতির সামনে স্পষ্ট করছে।

তিনি বলেন, সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানোর ভাঙা রেকর্ড জনগণ গত ১৩ বছর শুনে আসছে। ঘরে বসে বিএনপি কৃষক, শ্রমিক আর সাংবাদিকদের জন্য মায়াকান্না দেখায়।

কৃষক নাকি উৎপাদিত পণ্যের মূল্য পায় না, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ দেশে কৃষি ও কৃষকের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধু যা করেছেন সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কৃষিবান্ধব সরকার হিসেবে শেখ হাসিনা উৎপাদন, পণ্যমূল্য, পণ্য বাজারজাতকরণ, উপকরণ সরবরাহ এবং ঋণ ও প্রণোদনা প্রদানের মাধ্যমে দেশে এক অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপির শাসনামলে উৎপাদনের জন্য সার চেয়ে পায়নি কৃষকরা, বরং কৃষকদের বুকে গুলি চালিয়েছিল বিএনপি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কৃষকরা পায়নি প্রয়োজনীয় সাপোর্ট, ভর্তুকি, অথচ আজ বিএনপি নেতারা কৃষকদের জন্য মেকি দরদ দেখাচ্ছে।

/পিএইচসি/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন তৃণমূলে গণতন্ত্রের ভিত্তি মজবুত করে’

‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন তৃণমূলে গণতন্ত্রের ভিত্তি মজবুত করে’

বিএনপির আন্দোলনের বর্তমান প্রয়াসও নিষ্ফল হবে: ওবায়দুল কাদের

বিএনপির আন্দোলনের বর্তমান প্রয়াসও নিষ্ফল হবে: ওবায়দুল কাদের

ইউপি নির্বাচন

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:১৭

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী দমাতেই পারছে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। ‘বিদ্রোহী হলে আর কখনও নৌকা প্রতীক বা দলের পদ-পদবিতে রাখা হবে না’—কেন্দ্র থেকে এমন কঠোর বার্তা দেওয়ার পরও তৃণমূল নেতারা তা আমলে নিচ্ছেন না। নৌকার বিরোধী হিসেবে ভোটযুদ্ধে মাঠে থাকছেন তারা।

এ অবস্থায় দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, তারা চান দল থেকে কেউ বিদ্রোহী না হোক। তবে তৃণমূল নেতাকর্মীদের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মানানো খুব কঠিন কাজ। আবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিতদের লাইন দীর্ঘ হোক, সেটাও চায় না তারা।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) দেশের ১৬০টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরমধ্যে শতাধিক ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে ভোটযুদ্ধে লড়েছেন। এর আগে রবিবার আরও কয়েকটি জেলায় ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দেখা গেছে, বহু ইউনিয়নে নৌকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ নেতারাই ভোট করেছেন।

শুধু তা-ই নয়, সোমবার কক্সবাজারের মহেশখালীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে সংঘাত-সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে নিজের দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে। মহেশখালীর একটি ইউনিয়নের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একজন কর্মী মারা গেছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন কয়েকজন।

আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানিয়েছে, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার ব্যাপারটিও ভালোভাবে দেখছে না দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। ফলে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতে ভিন্ন চিন্তা করতে পারে শীর্ষ নেতৃত্ব।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী সোমবার সন্ধ্যায় বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিদ্রোহী দমনে আমাদের সিদ্ধান্তে কোনও পরিবর্তন আসেনি। আবার বিদ্রোহ দমনেও সফল হতে পারছি না- এটা ঠিক। আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করে ধীরে ধীরে সুফল আসবে। সিস্টেম দাঁড় করাতে সব রাজনৈতিক দলকে কমিটমেন্টে আসতে হবে। আওয়ামী লীগে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকুক যেমন চায় না, তেমনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে জিতুক সেটাও চায় না। নির্বাচনে ভোটযুদ্ধ হোক সেটাই চাই।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা বিদ্রোহী প্রার্থী দমন করতে কঠোর অবস্থান জানান দিয়েছি। তবু দেখা যাচ্ছে বিদ্রোহী প্রার্থী থেকে যায়। তবে অনড় অবস্থানে থাকবে আওয়ামী লীগ। আস্তে আস্তে সুফলও আসবে।’

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ চায়। অন্য রাজনৈতিক দলের অসহযোগিতায় তা হয়ে ওঠে না। আবার প্রার্থী না থাকলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনেক চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে যাচ্ছেন। সেটাও ভালো দেখাচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন গভীরভাবে চিন্তা করছি এটা কীভাবে ঠেকানো যায়। বিদ্রোহী প্রার্থী দমনের চেয়ে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করার ব্যাপারে আমরা ভাবছি। কী কৌশলে তা বাস্তবায়ন করা যায় তা নিয়ে পর্যালোচনা চলছে।’

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল বলেন, ‘বিদ্রোহী দমনের ব্যাপারে নতুন কৌশল আসতেও পারে। আমাদের কঠোর অবস্থানে কোনও নড়চড় হবে না। তবে নিচের দিকের নেতাকর্মীকে মানানো খুব কষ্টের।’

 

/এনএইচ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন তৃণমূলে গণতন্ত্রের ভিত্তি মজবুত করে’

‘স্থানীয় সরকার নির্বাচন তৃণমূলে গণতন্ত্রের ভিত্তি মজবুত করে’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর

জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভা ২৪-২৫ সেপ্টেম্বর

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

৫ বিভাগের সদস্যদের সঙ্গে বিএনপির রুদ্ধদ্বার বৈঠক

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

খালেদা জিয়া মুক্ত হলে চন্দ্রিমা উদ্যানে নিয়ে যাবেন: ডা. জাফরুল্লাহ 

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনার এসডিজি পুরস্কারপ্রাপ্তি ইতিহাসের মাইলফলক: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

ইউপি নির্বাচনআওয়ামী লীগ বিদ্রোহী চায় না, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতাও নয়

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

গুলশানে ছাত্রদলের হঠাৎ মিছিল

গুলশানে বিএনপির দ্বিতীয় দফা রুদ্ধদ্বার মতবিনিময়

গুলশানে বিএনপির দ্বিতীয় দফা রুদ্ধদ্বার মতবিনিময়

এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়: মান্না

এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়: মান্না

সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানের পূর্ণ স্বাধীনতার দাবি বাম ঐক্যের

সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানের পূর্ণ স্বাধীনতার দাবি বাম ঐক্যের

করোনায় কৃষকরা বেশি অবহেলিত: মির্জা ফখরুল

করোনায় কৃষকরা বেশি অবহেলিত: মির্জা ফখরুল

সর্বশেষ

ইন্টারনেটের ব্যবহার বৃদ্ধির সঙ্গে ডিজিটাল অপরাধও বেড়েছে: টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

ইন্টারনেটের ব্যবহার বৃদ্ধির সঙ্গে ডিজিটাল অপরাধও বেড়েছে: টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

কক্সবাজারের সাথে রেল যোগাযোগ চালু হবে ২০২২ সালে: রেলমন্ত্রী

কক্সবাজারের সাথে রেল যোগাযোগ চালু হবে ২০২২ সালে: রেলমন্ত্রী

রোনালদোবিহীন ম্যান ইউর বিপক্ষে ‘প্রতিশোধ’ নিলো ওয়েস্ট হাম

রোনালদোবিহীন ম্যান ইউর বিপক্ষে ‘প্রতিশোধ’ নিলো ওয়েস্ট হাম

পিএসজিকে শেষ মুহূর্তে জেতালেন হাকিমি

পিএসজিকে শেষ মুহূর্তে জেতালেন হাকিমি

করোনার টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

করোনার টিকাকে ‘বৈশ্বিক জনস্বার্থ সামগ্রী’ ঘোষণার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

© 2021 Bangla Tribune