X
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

ছাত্র ধর্ষণে ইমামতি থেকে বহিষ্কার হয়ে এমএলএম শুরু রাগীবের

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:৪৩

পিরোজপুরের একটি মসজিদের ইমাম ছিলেন রাগীব আহসান। মাদ্রাসার এক ছাত্রকে ধর্ষণের ঘটনায় ইমামতি থেকে বহিষ্কার হন। এরপর ঢাকার একটি এমএলএম কোম্পানিতে ৯০০ টাকা বেতনে চাকরি নেন। চাকরি হারিয়ে অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এমএলএম কোম্পানি খোলেন। নাম দেন এহসান গ্রুপ। কওমি মাদ্রাসার ছাত্র, শিক্ষক ও মসজিদের ইমামদের কোম্পানিতে নিয়োগ দেন। ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে গ্রাহকের ব্যবস্থা করে দেন তারাই। এভাবে ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন রাগীব আহসান। 

বাংলা ট্রিবিউনকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন পিরোজপুর জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা মীর মো. ফারুক আব্দুল্লাহ।

তিনি বলেন, ‘ন্যক্কারজনক ওই কাজের জন্য তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। এরপর বেপরোয়া হয়ে ওঠেন। রাগীব আহসান পৌরসভার বড় খলিশাখালী গ্রামের আবদুর রব খানের ছেলে। রাগীবের তত্ত্বাবধানে তিন শতাধিক মাঠ পর্যায়ের কর্মী ছিল। খলিশাখালী এলাকায় বাড়ি হলেও বিভিন্ন স্থানে অপকর্ম করেছেন।’

ফারুক আব্দুল্লাহ বলেন, রাগীব আহসান শহরতলির কেনগর তালিমুল কোরআন মাদ্রাসা মসজিদে ইমামতি করতেন। ২০০৭ সালে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। এরপর এলাকা ছেড়ে চলে যান। এক বছর পর এলাকায় ফিরে রাগীব পিরোজপুরে এমএলএম ব্যবসা শুরু করেন। তখন আমি অনেক ব্যক্তিকে নিরুৎসাহিত করেছি। রাগীবের কাছ থেকে দূরে থাকতে বলেছি। কিন্তু অনেকে তার ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়েছেন। এরমধ্যে অনেক ইমাম ও মাদ্রাসা শিক্ষকও রয়েছেন। আজ সবাই সর্বস্বান্ত। 

মাওলানা মীর ফারুক আব্দুল্লাহ আরও বলেন, আমি যখন তাদের নিষেধ করতাম তখন তেড়ে আসতো। যারা এহসানে টাকা রাখতো, তারা বলতো, সুদবিহীন প্রতিষ্ঠানে আমরা টাকা রাখছি, আপনি বিরোধিতা করছেন কেন। আপনার পেছনে নামাজ হবে না। আফসোস, তাদের কোনোভাবেই বোঝাতে পারলাম না। যখন তারা বুঝেছে তখন সবশেষ।

রাগীব আহসান

ফারুক আব্দুল্লাহ বলেন, আমি রাগীব আহসানের কঠোর শাস্তি চাই। পাশাপাশি প্রশাসনের কাছে অনুরোধ, প্রতারিত মানুষগুলো যাতে টাকা ফেরত পায়, তার একটা ব্যবস্থা করুন।

চলতি বছরের ৯ সেপ্টেম্বর রাগীব আহসানের বিরুদ্ধে মামলা করেন হারুন অর রশিদ। তার বাড়িও পিরোজপুর সদর উপজেলার মূলগ্রাম রায়েরকাঠী এলাকায়। হারুন অর রশিদ নিজেও একটি মাদ্রাসার শিক্ষক।

তিনি বলেন, রাগীবের এই প্রতারণার ব্যবসা পিরোজপুরের পাশের ঝালকাঠি ও বাগেরহাট জেলায়ও বিস্তার লাভ করেছে। ওসব জেলার মানুষও এখন নিঃস্ব।

হারুন অর রশিদ মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, ধর্মীয় অনুভূতি কাজে লাগিয়ে ২০০৮ সাল থেকে শরিয়াভিত্তিক ও সুদমুক্ত হালাল ব্যবসার কথা বলে মানুষের কাছ থেকে টাকা নেওয়া শুরু করেন রাগীব আহসান। একই সঙ্গে সুদমুক্ত হালাল ব্যবসার প্রচার চালান। তিনি আমাদের বলেছেন, ইসলামে সুদ জিনার সমান পাপ। তাই হারাম ও সুদভিত্তিক ব্যবসা করা যাবে না। ব্যবসার ওপর লাভের কথা বলে মানুষের কাছ থেকে ব্যাংকের মতো টাকা নিতেন। বলতেন, আল্লাহ ব্যবসাকে হালাল এবং সুদকে হারাম করেছেন। কৌশল হিসেবে একই পরিমাণ লাভ না দিয়ে এক লাখ টাকায় মাসে কখনও দুই হাজার আবার কখনও এক হাজার ৮০০ টাকা দিতেন। কখনও দুই হাজার ২৫ টাকা দিতেন। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বলতেন, ব্যবসায় যখন যেমন লাভ হয় তেমন দিচ্ছি। কিন্তু মূল টাকা ফেরত চাইলে তার প্রতারণা ধরা পড়ে যায়। 

তিনি বলেন, আমি যে মামলাটি করেছি তাতে ৯৫ জনের টাকার হিসাব রয়েছে। আমার আছে ১৬ লাখ টাকা। আমার মতো কয়েক হাজার মানুষ প্রতারিত হয়েছেন।

হারুন অর রশিদ বলেন, রাগীব আহসান শুরুতে এহসান গ্রুপ নামে কাজ শুরু করলেও পরে ১৭টি প্রতিষ্ঠান খোলেন। প্রতিষ্ঠানগুলো দিয়ে হালাল ব্যবসার কথা বলতেন। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো এহসান গ্রুপ বাংলাদেশ, এহসান পিরোজপুর বাংলাদেশ (পাবলিক) লিমিটেড, এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্স লিমিটেড, নুর-ই মদিনা ইন্টারন্যাশনাল ক্যাডেট অ্যাকাডেমি, জামিয়া আরাবিয়া নুরজাহান মহিলা মাদ্রাসা, হোটেল মদিনা ইন্টারন্যাশনাল, আল্লাহর দান বস্ত্রালয়, পিরোজপুর বস্ত্রালয়-১ ও ২, এহসান মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড, মেসার্স বিসমিল্লাহ ট্রেডিং অ্যান্ড কোং, মেসার্স মক্কা এন্টারপ্রাইজ, এহসান মাইক অ্যান্ড সাউন্ড সিস্টেম, এহসান ট্যুর অ্যান্ড ট্রাভেলস, ইসলাম নিবাস প্রজেক্ট, এহসান পিরোজপুর হাসপাতাল, এহসান পিরোজপুর গবেষণাগার এবং এহসান পিরোজপুর বৃদ্ধাশ্রম।

রাগীব আহসানের তিন ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

২০১০ সালে পিরোজপুর সদর উপজেলার খলিশাখালী এলাকায় রাগীব আহসান ‘এহ্সান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্স’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়েন। পরবর্তী সময়ে কোম্পানির নাম পরিবর্তন করে ‘এহ্সান গ্রুপ’ রাখেন। এই প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হন রাগীব আহসান। প্রতিষ্ঠানে তার তিন ভাই, বোন, শ্বশুর, বোন জামাইসহ আত্মীয়দের গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখা হয়। পরে পৌর শহরের সিও অফিস মোড় সংলগ্ন বাইপাস সড়কের পাশে জমি কিনে প্রতিষ্ঠানের প্রধান কার্যালয় স্থাপন করেন।

পিরোজপুর জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর খান মো. আলাউদ্দিন বলেন, ১৭ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় রাগীব আহসান ও তার তিন ভাইকে গ্রেফতার করে র‌্যাব ও পুলিশ। রাগীব আহসানের অন্য তিন ভাই হলেন—মাওলানা আবুল বাশার, মো. খাইরুল ইসলাম ও মুফতি মাহমুদুল হাসান। তারা এখন পিরোজপুর কারাগারে।

সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাগীব আহসানসহ তার তিন ভাইয়ের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন পিরোজপুরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মহিউদ্দীন। এ পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে। আদালত যে মামলায় তাদের রিমান্ড দিয়েছেন ওই মামলায় ৯১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এ মামলার অভিযোগে বলা হয়, এহসান রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড বিল্ডার্স লিমিটেড বিভিন্ন গ্রাহকের কাছ থেকে ৯১ কোটি ১৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৩৩ টাকা নেয়।

গত বৃহস্পতিবার রাতে র‌্যাব সদর দফতরের গোয়েন্দা শাখা ও র‌্যাব-১০-এর একটি দল রাজধানীর শাহাবাগ থানার তোপখানা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাগীব আহসান ও তার সহযোগী আবুল বাশার খানকে গ্রেফতার করে। পরে পিরোজপুর থেকে তার তিন ভাইকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

 

/এএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪১

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী শ্রমিক লীগ নেতা আব্দুল হক (৭০) নিহত হয়েছেন। তিনি চরফ্যাশন পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও উপজেলা শ্রমিক লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যার পর ভোলা-চরফ্যাশন আঞ্চলিক মহাসড়কের চরফ্যাশন বাজারের উত্তর পাশে গাড়িওয়ালা মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। চরফ্যাশন থানার ওসি মনির হোসেন মিঞা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মোটরসাইকেলযোগে চরফ্যাশন বাজারে যাচ্ছিল তিনি। গাড়িওয়ালা মোড় এলাকায় এলে মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিনি রাস্তার বাইরে পড়ে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ইমামের বক্তব্য নিয়ে জুমা শেষে সংঘর্ষ, হাসপাতালে ২১

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৩১

বাগেরহাটের সদর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বিজয়ী ইউপি সদস্য ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ২১ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জুমার নামাজ শেষে স্থানীয় শেখরা জামে মসজিদ থেকে বের হওয়ার পর দুই পক্ষের সংঘর্ষ বাধে।

আহতদেরকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বাবুল ফকির (৫৫) নামের একজনকে বিকালে খুলনা মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, নির্বাচনের আগের জুমায় শেখরা জামে মসজিদের ইমাম ইকবাল মাহমুদ জুমার খুতবায় বলেছিলেন, ‘আগে গ্রামে এক চোর ছিল, সে মৃত মানুষের কাফন চুরি করতো। আর পরে যে চোর এসেছে, সে কাফনতো চুরি করে মানুষের পেছনে বাঁশও দেয়।’ স্থানীয় মুসল্লিরা এর ব্যাখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেছিলেন, ‘আগামী (আজ) জুমায় বলবেন’। আজ জুমার আগে এর ব্যাখা চাইলে ইমাম বলেন, ‘আমাকে মাফ করবেন। এর ব্যাখ্যা আমি দিতে পারবো না’। এ নিয়ে দুই পক্ষের কথা কাটাকাটি হয়। ইমাম ভুল স্বীকার করার পর এক পক্ষ ব‌লে, ‘আপ‌নি আর মস‌জি‌দে আস‌বেন না’। অপর পক্ষ ব‌লে, ‘কেন আস‌বে না।’

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আগের জুমায় খতিবের দেওয়া বক্তব্যের জেরে ওয়ার্ডের পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী আব্দুল লতিফের সমর্থক বাবুল ফকির, কামরুল ফকিরের সঙ্গে জয়ী ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান গ্রুপের রবিউল ও বাচ্চু মল্লিক মসজিদেই কথা কাটাকাটি হয়। এ নিয়ে জুমা শেষে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে একে অন্যের ওপর আক্রমণ করে। আহতদের মধ্যে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাথায় গুরুতর আহত লতিফ গ্রুপের বাবুল ফকিরকে খুলনা মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন- শেখরা গ্রামের রুবেল মল্লিক, সোহেল শেখ, শওকত শেখ, রাসেল শেখ, রবিউল শেখ, সাইফুল শেখ, মাহতাব মল্লিক, সজিব মোল্লা, কামরুল ফকির, মল্লিক ইমামুল কবির, সোহেল মল্লিক, জাহাঙ্গীর মল্লিক, তৈয়ব আলী মল্লিক, আলম মল্লিক ও মহিউদ্দিন শেখ। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

পরাজিত প্রার্থী আব্দুল লতিফের দাবি, ‘পূর্বপরিকল্পিতভাবেই আনিসুর রহমানের লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে যাওয়া আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে। বাবুল ফকিরসহ আমার ১৩ জন বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।’

অপরদিকে, ইউপি সদস্য আনিসুর রহমান হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘মসজিদের মধ্যেই বাবুল ফকির, কামরুলসহ বেশ কয়েকজন আমার লোকজনের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মারমুখী আচরণ করে। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।’

বাগেরহাট মডেল থানার ওসি কে এম আজিজুর ইসলাম বলেন, ‘গত সপ্তা‌হে ইমা‌ম বয়ান ক‌রে‌ছিলেন, এই সপ্তা‌হে ব‌্যাখ‌্যা চাওয়ায় শেখরা জামে মসজিদের সামনে উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। নামাজের পর উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অনেকে আহত হয়েছেন। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে যা বললেন রেলমন্ত্রী

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

ধাক্কা দেওয়া সিএনজির ওপর একই ট্রাকের চাপা, নিহত ৪

গাছের সঙ্গে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিহত ১, আহত ১২

গাছের সঙ্গে বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিহত ১, আহত ১২

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

নির্বাচনের আগেই খুলনায় পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হবে বিটিভি: তথ্যমন্ত্রী

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৫২

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অ্যাডমিট কার্ড থাকলে ফ্রিতে মেসে থাকতে পারবেন। তবে ভর্তিচ্ছুদের অভিভাবকরা থাকলে টাকা দিতে হবে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাজশাহী সিটি করপোরেশন আয়োজিত ভর্তি পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতিমূলক সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। সভায় উপস্থিত ছিলেন- রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড গোলাম সাব্বির সাত্তার, রাজশাহী মেট্রোপলিটনের কমিশনার  আবু কালাম সিদ্দিক, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক শামীম ইয়াজদানী। এছাড়া মেস মালিক সমিতি ও মহানগর আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে রাসিক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই প্রথমবারের মতো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের হলসমূহ বন্ধ থাকা অবস্থায় ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো বন্ধ থাকার কারণে আবাসন সংকট দেখা দিতে পারে। ভর্তিচ্ছু ও তাদের অভিভাবকদের রাখার জন্য নগরীর বিভিন্ন ছাত্রাবাস, আবাসিক হোটেল, বিভিন্ন সরকারি রেস্ট হাউজ, গেস্ট হাউজ এবং এরপরও যদি প্রয়োজন হয়, তবে বিকল্প কিছু ব্যবস্থা আমরা রেখেছি। এসবে অন্তত ৭০ শতাংশ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর আবাসনের ব্যবস্থা হবে। বাকিরা তাদের আত্মীয়-স্বজনদের বাসাবাড়িতে থাকবেন। রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। যাতায়াতের জন্য বাস মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলো শহরে চলাচল করবে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সুবিধায় রাজশাহী অভিমুখী ট্রেনসমূহ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে থামানোর জন্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হবে। শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের খাবারের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে খাবারের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে খাবারের কোনও সংকট না হয় এবং চাহিদামতো সবাই খাবার কিনে খেতে পারেন।’

সভায় ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে আরও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত হয়। উল্লেখযোগ্য সিদ্ধান্তগুলো হলো-  ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্র করে মেস ও গাড়ি ভাড়া বাড়ানো যাবে না, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০টি গাড়ি লোকাল সার্ভিস দেবে, পরীক্ষা চলাকালীন সময় কোনও ছাত্র-ছাত্রী অসুস্থ হলে তাৎক্ষণিক সেবা প্রদান করা হবে, প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে, যানজট নিরসনে রাজশাহীর বাইর থেকে যেসব বাস আসবে সেগুলো রাজশাহী সিটি করপোরেশনের বাইরে অবস্থান করবে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকা থেকে রাজশাহীতে প্রবেশ করা প্রতিটি ট্রেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশনে যাত্রা বিরতি করবে।

রাজশাহী মহানগর মেস মালিক সমিতির সভাপতি এনায়েতুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রতি বছরই ভর্তিচ্ছুদের অনেক মেস মালিক ফ্রিতে থাকার সুযোগ দিতেন। আবার অনেক মেস মালিক টাকা নেন। তবে আমরা রাসিক মেয়রের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি ভর্তি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা নেবো না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভর্তি পরীক্ষার্থীর সঙ্গে যদি কোনও অভিভাবক আসেন, জন প্রতি এক রাতের জন্য ২০০-৫০০ টাকা মেস দিতে হবে। আর যদি কোনও পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে মেস মালিক টাকা দাবি করেন, আমাদের অভিযোগ নম্বরে যোগাযোগ করবেন।’

অভিযোগ জানানোর নম্বর- ০১৭২৯২৮৯৬২৮, ০১৭২৬৭৭৭৭৮৭ (অফিস নম্বর+ বুথ), (০১৭৪৫১৬৬৬৬৯ সভাপতি এনায়েতুর রহমান), (০১৭১০৯৪৬৭৭১ সাধারণ সম্পাদক রাজিব), (০১৭১১৫৭৮৭৭৭ কায়সার), (০১৭১৫১৩৮৪৮৫ বেলায়েত), (০১৭১৬৩৮৮৬৫০ সদস্য জাকির)।

প্রসঙ্গত, আগামী ৪, ৫ ও ৬ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। 

/এফআর/

সম্পর্কিত

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে ঢুকে ‘নাগিন ড্যান্স’

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:০৪

বগুড়ার বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীদের অনলাইন ক্লাসে নাচ ও আপত্তিকর ছবি দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। গত ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) ক্লাসে এ ঘটনায় ঘটলেও শিক্ষক সাকিব হাসান বিষয়টি অধ্যক্ষকে অবহিত কিংবা আইনের আশ্রয়ও নেননি। এতে শুধু ওই ক্লাসে থাকা ৩৫ জন ছাত্রী নয়, অভিভাবকরাও বিব্রত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এরপর থেকে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে অংশ নিতে সাহস পাচ্ছে না। 

তারা বলছেন, এমন অনভিজ্ঞ শিক্ষক দিয়ে জুমে ক্লাস করানো ঠিক হয়নি।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে এ বিষয়ে জানতে শিক্ষক সাকিব হাসানের মোবাইল নম্বরে কল করা হলেও তিনি ধরেননি। তবে অধ্যক্ষ মুহা. মুস্তাফিজার রহমান জানান, সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলে তিনি জেনেছেন, কে বা কারা অল্প সময়ের জন্য ঢুকে শুধু গান বাজিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে ব্লক করে দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন বলেও তিনি জানান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কয়েকজন অভিভাবক জানান, গত ২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় সপ্তম শ্রেণির ‘চ’ শাখার অনলাইন ক্লাসে ৩৫ জন ছাত্রী ছিল। অ্যাডমিন ছিলেন, স্কুলের গণিত বিভাগের শিক্ষক সাকিব হাসান। ক্লাস শুরুর পরপরই অজ্ঞাত কেউ ক্লাসে ঢুকে পড়ে। প্রথমে ‘নাগিন নাচ’ এরপর দুই বার আপত্তিকর ছবি দেখায়। এ সময় ছাত্রী ও পাশে থাকা বাবা-মা বিব্রত হয়ে ক্লাস থেকে বের হয়ে যায়। ছাত্রীরা চিৎকার করে শিক্ষক সাকিব হাসানের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি ওই অজ্ঞাতকে ব্লক করে দেন।

এর আগে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘পারলে আমায় ধরেন।’

এক ছাত্রীর মা জানান, তার মেয়ে জুমে গণিত ক্লাস করার সময় তিনি পাশে ছিলেন। স্কুলের ওই শিক্ষকের আইটি সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকা উচিত। শিক্ষার্থীরা অনলাইন ক্লাসে প্রবেশ করলে তাদের নাম ও রোল দেখায়। অথচ অন্য ব্যক্তি কীভাবে ঢুকে অশ্লীল ছবি দিলো তা নিয়ে অভিভাবকরা লজ্জিত, চিন্তিত ও বিব্রত। তারা মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে আতঙ্কিত।

অভিভাবকরা দাবি করেন, অনলাইনে ক্লাস চলাকালে মাঝে মাঝেই কে বা কারা ঢুকে পড়ে। তারা ছাত্রীদের ‘লাভ ইউ’ ছাড়াও বিভিন্ন অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করে থাকে। এমন ঘটনা ঘটলেও হ্যাকারকে শনাক্ত বা গ্রেফতারে স্কুলের পক্ষ থেকে থানায় জানানো হয়নি। এমন ঘটনা ঘটলে সন্তানদের অনলাইন ক্লাসে পাঠাবেন না। তারা এ বিষয়ে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

বগুড়া বিয়াম ম‌ডেল স্কুল অ‌্যান্ড ক‌লে‌জের ঘটনা প্রস‌ঙ্গে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হযরত আলী জানান, এমন ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এ বিষয়ে রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) প্রতিষ্ঠান প্রধা‌নের সঙ্গে তিনি কথা বল‌বেন। এখা‌নে কা‌রও গা‌ফিল‌তি পে‌লে তদন্তপূর্বক ব‌্যবস্থা নেওয়া হ‌বে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

মেসে ফ্রিতে থাকতে পারবেন রাবি ভর্তি পরীক্ষার্থীরা

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

শিকল খোলার পর প্রতিবন্ধীর লাঠির আঘাতে বোন নিহত

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছাত্রাবাস থেকে পাবিপ্রবি ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

এক বিদ্যালয়ের ৩ শিক্ষক করোনায় আক্রান্ত, দুই দিন বন্ধ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:১১

নীলফামারীর জলঢাকার চিড়াভিজা গোলনা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের তিন শিক্ষক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে ওই বিদ্যালয়টি দুই দিনের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকালে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক আহসান জাহেদ নওরজি জানান, সব শিক্ষক ও কর্মচারীদের নমুনা পরীক্ষার জন্য আগামী শনিবার ও রবিবার দুই দিন সংরক্ষিত ছুটি থেকে বিদ্যালয়টি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষক ও কর্মচারীরা টিকার প্রথম ডোজ ও দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন। আক্রান্ত তিন শিক্ষক নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

তবে অভিভাবকদের অভিযোগ, আমরাতো স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও বিধি মোতাবেক সন্তানদের স্কুলে পাঠাই। কিন্তু শিক্ষকরাই বিধি মেনে চলেন না। আমরা দেখতে পাই, স্কুলের শিক্ষকরা মাস্ক ছাড়াই হাটবাজারে ঘুরে বেড়ান। তারা নিজেরা অসচেতন হলে শিশুরা কীভাবে সচেতন হবে। বিষয়টা বুঝে আসে না।

অভিভাবক জয়নাল মোল্লার অভিযোগ, ‘শিক্ষকদের কারণে সন্তানরা ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে। এখন বাধ্য হয়ে শিশুদেরও করোনা পরীক্ষা করাতে হবে।’

জলঢাকা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক জানান, ওই বিদ্যালয়ের যে তিন জন শিক্ষক করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তারা হলেন- সুশান্ত কুমার রায় (২৮), আব্দুল জলিল (৫০) ও রামিজুল ইসলাম (৪৮)।

তিনি আরও বলেন, ‘এই তিন শিক্ষকের মধ্যে বুধবার সুশান্ত কুমারের শরীরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা দিলে তিনি ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেনের মাধ্যমে নমুনা পরীক্ষা করান। সেখানে পজিটিভ আসে। পরদিন বাকি দুই শিক্ষক আব্দুল জলিল ও রামিজুল ইসলাম অসুস্থ্যবোধ করলে তারাও গত বৃহস্পতিবার ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা পরীক্ষা করালে তাদেরও পজিটিভ আসে।’ 

এ শিক্ষা কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আপাতত আগামী দুই কার্যদিবসের জন্য সংরক্ষিত ছুটি থেকে বিদ্যালয়টি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সেখানকার অর্ধেক শিক্ষক এখনও করোনা পরীক্ষা করেননি। তাদের জরুরি ভিত্তিতে পরীক্ষা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যদি আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বাহাদুরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির পাঁচজন শিক্ষার্থীর করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এরপর থেকে ওই দুই শ্রেণির ক্লাস বন্ধ রেখেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

মেয়ের জামাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পেটালেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো শ্রমিকলীগ নেতার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

জাহাজের ধাক্কায় ডুবলো মাছের ট্রলার, ২ জেলের লাশ উদ্ধার

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

কোটি টাকা আত্মসাৎহাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

মাদক মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়, আরএমপির ৬ সদস্য বরখাস্ত

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

হাসপাতালের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে ২ কর্মচারী আহত

হাসপাতালের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে ২ কর্মচারী আহত

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কিশোর গ্যাংয়ের হামলা, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ২

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কিশোর গ্যাংয়ের হামলা, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ২

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

বিয়ের কথা বলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৪

সর্বশেষ

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

ছেলেরা কি সোনা-রুপার অলঙ্কার পরতে পারবে?

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

‘বঙ্গবন্ধুর সাফল্য অসামান্য’ বলেছিলেন সংসদ সদস্যরা

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

চলে গেলেন কমলা ভাসিন

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ গতিপথ নির্ধারণ করবে দেশটির জনগণ: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী

আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ গতিপথ নির্ধারণ করবে দেশটির জনগণ: জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune