X
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
১৪ মাঘ ১৪২৯

স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

গাজীপুর প্রতিনিধি
০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪০আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৪০

শেরপুরের নকলা উপজেলায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ রাসেল মিয়া (৪২) নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার (৪ ডিসেম্বর) গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘের বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সকালে র‌্যাব-১ গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর এ এস এম মাঈদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  

হত্যার শিকার নারীর নাম শাহনাজ আক্তার (৩৫)। তিনি নকলা উপজেলার চন্দ্রকোণা ইউনিয়নের জানকিপুর গ্রামের বিষু মিয়ার মেয়ে। অভিযুক্ত রাসেল মিয়া গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার বৈরাগীরচালা এলাকার মৃত মজিবুর রহমান খানের ছেলে। তিনি রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন।

ভুক্তভোগীর স্বজনদের বরাত দিয়ে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) হান্নান মিয়া জানান, পাঁচ বছর আগে শাহনাজ ও রাসেলের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে বাড়ি তুলে বসবাস করে আসছিলেন রাসেল। কিছুদিন পর থেকে পারিবারিক বিভিন্ন বিয়ষসহ স্থানীয় এনজিও’র কিস্তি নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। গত শনিবার (৩ ডিসেম্বর) ওই সমিতির কিস্তির টাকা নিয়ে রাত ১২টায় তাদের মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়। রাত ৩টায় শাহনাজকে মারধর করে ঘরের বাইরে থেকে দরজায় তালা লাগিয়ে রাসেল পালিয়ে যান। 

সকালে ঘুম থেকে উঠে বাইরে থেকে দরজায় তালা ঝুলতে দেখে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হয়। পরে তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে তারা শাহনাজকে মৃত অবস্থা পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে পাঠায়। নকলা থানা পুলিশ  রাসেলকে গ্রেফতারে ছায়া তদন্ত করে জানতে পারে, সে গাজীপুরে অবস্থান করছে। পরে তারা র‌্যাব-১ গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের সহযোগিতা চান।

র‌্যাব-১ গাজীপুর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জি এম মাজহারুল ইসলাম জানান, র‌্যাব তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে রাসেল গাজীপুর সদর উপজেলার বাঘের বাজার এলাকায় অবস্থান করছে। পরে র‌্যাব বাঘের বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাসেলকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে রাসেল স্বীকার করে, শনিবার দিবাগত রাত ৩টায় আর্জেন্টিনার খেলা দেখে বাসায় ফেরে। এ সময় কিস্তির টাকা জোগাড় করা নিয়ে দুই জনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে তাকে লাথি মারে শাহনাজ। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে রাসেলও তার বুকে ও মুখে এলোপাতাড়ি লাথি মারতে তাকে। এতে শাহনাজ ঘরের মেঝের সাথে মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যান। এটা বুঝতে পেরে রাসেল বাইরে থেকে ঘরের দরজায় তালা দিয়ে ভোরে গাজীপুরে চলে যায়। গ্রেফতারের পর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে রবিবার রাতে আসামিকে নকলা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াদ মাহমুদ জানান, সুরতহাল প্রতিবেদনে শাহনাজ আক্তারের মুখ ও মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। তার মা বাদী হয়ে রাসেলকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেছেন। তাকে র‌্যাবের সহযোগিতায় গাজীপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়।সোমবার (৫ ডিসেম্বর) আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।  

/এসএইচ/
সর্বশেষ খবর
‘প্রক্সি যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র’
‘প্রক্সি যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র’
নতুন আন্দোলন শুরু: মির্জা ফখরুল
রাজধানীতে নীরব পদযাত্রা বিএনপিরনতুন আন্দোলন শুরু: মির্জা ফখরুল
আমরা সংখ্যালঘু ধারণায়  বিশ্বাস  করি না: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
আমরা সংখ্যালঘু ধারণায়  বিশ্বাস  করি না: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
মিসকেসের সংশ্লিষ্ট অংশ ছাড়া সম্পূর্ণ নামজারি বাতিল করা যাবে না
মিসকেসের সংশ্লিষ্ট অংশ ছাড়া সম্পূর্ণ নামজারি বাতিল করা যাবে না
সর্বাধিক পঠিত
খাবারের দাম দ্বিগুণ, বাস মালিক-হাইওয়ে হোটেলগুলোর সিন্ডিকেট
খাবারের দাম দ্বিগুণ, বাস মালিক-হাইওয়ে হোটেলগুলোর সিন্ডিকেট
মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়মধ্যরাতে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে ছাত্রীদের অবস্থান
যে জুটি কখনও ব্যর্থ হয়নি
যে জুটি কখনও ব্যর্থ হয়নি
বাংলাদেশ নিয়ে আগ্রহ বাড়ছে ডেনমার্কের
একান্ত সাক্ষাৎকারে সাবেক ডেনিশ প্রধানমন্ত্রী পল নায়রুপবাংলাদেশ নিয়ে আগ্রহ বাড়ছে ডেনমার্কের
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার
চলতি বছরেই ট্রেন যাবে কক্সবাজার