X
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ৮ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

পাপুল কাণ্ড

আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৬:৪০

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা একটি দেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সংসদের অবস্থান সবার উপরে। একজন সংসদ সদস্য হতে পারা একদিকে যেমন সম্মানজনক, অন্যদিকে তেমনি তাঁর দায়িত্বের জায়গাটাও অনেক বড়। কারণ, তিনি একজন আইন প্রণেতা। তাই সংসদে মানুষ তাদেরই দেখতে চান যারা সাধারণ মানুষের কল্যাণে কথা বলবেন, বিতর্ক করবেন, আইন প্রণয়নে যৌক্তিক ভূমিকা রাখবেন।

পদটি কতটা গুরুতর বোঝা যায় এই প্রত্যাশা থেকে। কিন্তু জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের এই প্রক্রিয়াটা আর মিলছে না মানুষের আশা আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে। যারা নির্বাচিত হয়ে আসছেন তারা নিজেরা তাদের ভূমিকা সম্পর্কে সচেতন থাকছেন না কিংবা যারা তাদের সংসদ পর্যন্ত নিয়ে আসছেন এমন প্রয়োজনীয়তা ও আবশ্যকতা সম্পর্কে তারা ওয়াকিবহাল নন কিংবা জেনেও তারা দায়িত্বকে অবহেলা করছেন। তা না হলে শহিদ ইসলাম ওরফে পাপুল সংসদে প্রবেশ করেন কীভাবে? লক্ষ্মীপুর -২ আসনের এই স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে। কারণ, তিনি কুয়েতের ফৌজদারি আদালতে ঘোষিত রায়ে নৈতিক স্খলনজনিত ফৌজদারি অপরাধে চার বছর সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন।

একটি রাষ্ট্রের সামর্থ্য শুধু তার নীতি, প্রতিষ্ঠান এবং পদ্ধতির ওপর নির্ভর করে না। নীতি যারা প্রণয়ন বা রূপায়ণ করেন, প্রতিষ্ঠান যারা পরিচালনা করেন এবং পদ্ধতি যারা অনুসরণ করেন, তাদের আচরণের ওপরেও নির্ভর করে।

জনগণ তাদের প্রতিনিধি হিসেবে সংসদে যাদের পাঠায় তাদের আচরণ কেমন হওয়া উচিত- সেই প্রশ্নের সরাসরি কোনও জবাব নেই। ফেরেশতার মতো হবেন এমনটাও নিশ্চয়ই ভাবনা নয়। তবে প্রত্যাশা থাকে ভালো কিছুর, কারণ, তারাতো কেবল আইন প্রণেতা নন, নিজ নিজ এলাকার অভিভাবকও তারা।

পাপুল টাকার জোরে সংসদ সদস্য হয়েছেন। এবং এসব লোকের যা রেকর্ড থাকে সাধারণত সেগুলোই একে একে প্রকাশিত হচ্ছে। মানবপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগে পাপুল সহ ছয়জনের বিরুদ্ধে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর মামলা করে সিআইডি। আসামিদের মধ্যে তার মেয়ে, ভাই ও শ্যালিকাও রয়েছেন। এর আগে ১১ নভেম্বর মানবপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে শহিদ ও তাঁর স্ত্রী সেলিনার বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন। সেই স্ত্রীও স্থানীয় সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য।

সংসদের ভেতরে এই মাননীয়দের সদস্য হিসেবে তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য কেমন হবে তা কার্যপ্রণালি বিধিতে সুনির্দিষ্ট করে দেওয়া আছে। কিন্তু সংসদের বাইরে মাননীয়দের ভাবমূর্তি যদি এমন হয় তাহলে এমন জনপ্রতিনিধির কাছে ভালো আচরণ প্রত্যাশা করা যায়?

কে কীভাবে সংসদ সদস্য হচ্ছেন সেটা অনুসন্ধান করার চেয়ে বড় প্রয়োজন রাজনীতিকে ঠিক পথে আনা। রাজনীতির নামে ক্ষমতা চর্চা বা বিরোধিতার চর্চা, অর্থ ও বাণিজ্য চর্চার কাছে রাজনীতি পরাজিত হলে এমন সাংসদই জুটবে আমাদের কপালে। পাপুল এমন একজন, যিনি কুয়েতে মানবপাচার ও ভিসা-বাণিজ্যের মাধ্যমে বিপুল টাকার মালিক হয়েছেন। কুয়েতের ফৌজদারি আদালত এই সংসদ সদস্যকে চার বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের পাশাপাশি ১৯ লাখ কুয়েতি দিনার বা ৫৩ কোটি ১৯ লাখ ৬২ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে কোনও সংসদ সদস্যের বিদেশের মাটিতে ফৌজদারি অপরাধে দণ্ডিত হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম।

পাপুলের মতো নন, কিন্তু সারা দেশেই কোনও কোনও সংসদ সদস্যের আচরণ ও ক্রিয়াকলাপের পর্যালোচনায় একটি ধারণা ক্রমশ প্রবল হয়ে উঠছে যে, সংসদীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবহার করা দূরস্থান, সেসবের মর্যাদা ও কার্যকারিতা সম্পর্কে এসব নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির অনেকেরই সম্যক কোনও ধারণা নেই।

সংসদ সদস্যদের সবাই নয়, কিন্তু অনেকেই যা করেন তাতে জাতীয় সংসদের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়। নষ্ট হয় গণতান্ত্রিক রীতিনীতি। আইন প্রণেতা হিসেবে দেশ ও জাতি সংসদ সদস্যদের কাছ থেকে এমন আচরণ আশা করে, যা উন্নত রাজনৈতিক সংস্কৃতির পরিচায়ক। বস্তুত তারা জনগণের প্রেরণার উৎসও বটে। সংসদ সদস্যদের কেউ কেউ যেহেতু স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে উন্নত সংস্কৃতির পরিচয় দিচ্ছেন না, সেহেতু তাদের নিয়ন্ত্রণ করার স্বার্থেই এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট আইন থাকা প্রয়োজন।

সংসদ সদস্যদের ভূমিকা খুব বড়। তাদের ক্ষমতাও ব্যাপক, গুরুত্বও সর্বাধিক। সংসদকে ছাড়া আমাদের গণতন্ত্র অচল। সংসদের সদস্য যারা হবেন তাদের কাছে প্রত্যাশা অনেক বেশি।

পাপুল কাণ্ড দুর্ভাগ্যজনক। রাষ্ট্র, সংবিধান এবং নাগরিকের প্রতি পূর্ণ দায়বদ্ধতার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এবং নির্বাচিত হওয়ার পরে ওই সব বিষয়েই শপথ নিয়ে তবেই সংসদ সদস্য হতে হয়। কিন্তু কারও রেকর্ড যদি এমন হয় তাহলে সংসদ সদস্য হওয়ার পর সেসব অঙ্গীকার মনে রাখবেন তারা? এরা মনে করবেন সংসদে তাদের কোনও কাজ নেই, তাদের কাজ কেবল এলাকায় প্রভাব বিস্তার করা এবং প্রভাবের জোরে আরও অর্থ সঞ্চয় করা।

সংসদে ফৌজদারি অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত সংসদ সদস্যের সংখ্যা কত আমরা জানি না। তবে আইনপ্রণেতাই যদি অপরাধে অভিযুক্ত হন, তাহলে সঠিক আইন প্রণয়ন করবেন কারা?

লেখক: সাংবাদিক

/এসএএস/এমওএফ/

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

সম্পর্কিত

কে বড়, কে ছোট

কে বড়, কে ছোট

নিজের হাতেই নেই নির্ভরতার চাবি

নিজের হাতেই নেই নির্ভরতার চাবি

লকডাউনের বাংলাদেশ ‘ভার্সন’

লকডাউনের বাংলাদেশ ‘ভার্সন’

ছবিটা পরিষ্কার হলো কি?

ছবিটা পরিষ্কার হলো কি?

জনতা চায় মারমুখী সংবাদ প্রতিনিধি?

জনতা চায় মারমুখী সংবাদ প্রতিনিধি?

বাঙালির আত্মা

বাঙালির আত্মা

‘কী একটা অবস্থা!’

‘কী একটা অবস্থা!’

কিছু কিছু ঘটনা পুলিশের নীতি-নৈতিকতার মানকে প্রশ্নবিদ্ধ করে

কিছু কিছু ঘটনা পুলিশের নীতি-নৈতিকতার মানকে প্রশ্নবিদ্ধ করে

আবিরন হত্যার বিচারে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কিছু নেই

আবিরন হত্যার বিচারে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কিছু নেই

বহুমাত্রিক দুর্নীতির সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা

বহুমাত্রিক দুর্নীতির সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা

সু চি’র বিদায় ও রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ

সু চি’র বিদায় ও রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ

কারাগারে গেলে টাকায় সব মেলে

কারাগারে গেলে টাকায় সব মেলে

সর্বশেষ

হেফাজত নেতা মুফতি সাখাওয়াতসহ দুজন ২১ দিনের রিমান্ডে

হেফাজত নেতা মুফতি সাখাওয়াতসহ দুজন ২১ দিনের রিমান্ডে

খিলক্ষেতে এক শিশুকে হত্যার অভিযোগ

খিলক্ষেতে এক শিশুকে হত্যার অভিযোগ

৫৮ লাখ টাকার কোকেনসহ চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

৫৮ লাখ টাকার কোকেনসহ চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

করোনায় মারা গেলে বীমা কর্মকর্তার পরিবার কত টাকা পাবে?

করোনায় মারা গেলে বীমা কর্মকর্তার পরিবার কত টাকা পাবে?

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

১৪০ কোটি টাকার ওষুধ কেনার সিদ্ধান্ত

১৪০ কোটি টাকার ওষুধ কেনার সিদ্ধান্ত

এপ্রিলে ভ্যাট রিটার্ন দেননি প্রায় দেড় লাখ ব্যবসায়ী

এপ্রিলে ভ্যাট রিটার্ন দেননি প্রায় দেড় লাখ ব্যবসায়ী

মহারাষ্ট্রে ট্যাংকারে লিক, হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ২২ রোগীর মৃত্যু

মহারাষ্ট্রে ট্যাংকারে লিক, হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ২২ রোগীর মৃত্যু

‘আ.লীগের সকল নেতাকর্মীর মূল্যবোধে আঘাত করেনি নূর’

‘আ.লীগের সকল নেতাকর্মীর মূল্যবোধে আঘাত করেনি নূর’

আগামী বাজেট দরিদ্র মানুষের জন্য: অর্থমন্ত্রী

আগামী বাজেট দরিদ্র মানুষের জন্য: অর্থমন্ত্রী

‘রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অগ্রাধিকার’

‘রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ অগ্রাধিকার’

কাল থেকে নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানও খোলা

কাল থেকে নন ব্যাংকিং আর্থিক প্রতিষ্ঠানও খোলা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune