X
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪
২১ ফাল্গুন ১৪৩০
সিনেমা সমালোচনা

খুফিয়া: বাংলাদেশ নিয়ে ‘শঙ্কা ও ভাবনার’ ভারতীয় ছবি!

আহসান কবির
আহসান কবির
১১ অক্টোবর ২০২৩, ০৯:৩১আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২৩, ০১:২৬

বাংলাদেশকে নিয়ে শঙ্কা ও ভাবনার ‘ভারতীয়’ স্পাই-থ্রিলার ছবি ‘খুফিয়া’। ‘মকবুল’, ‘কামিনে’, ‘ওমকারা’ কিংবা ‘সাত খুন মাফ’-এর পর বিশাল ভরদ্বাজের আলোচিত ও নেটফ্লিক্সে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত (৫ অক্টোবর, ২০২৩) ছবি ‘খুফিয়া’। অমর ভূষণের উপন্যাস ‘এস্কেপ টু নো হয়ার’ অবলম্বনে ১৯৯৯-এর কারগিল যুদ্ধের পর গোয়েন্দাদের মধ্যকার বিশ্বাস-অবিশ্বাস নিয়ে এক চতুর্মুখী থ্রিলার ‘খুফিয়া’। টাবুর সঙ্গে বাংলাদেশি অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের দারুণ অভিনয় করা এক ছবি ‘খুফিয়া’। গোয়েন্দা গল্পের ভেতর দেশপ্রেম কিংবা ভিন্নরকম কিছু একটা থাকার ছবিও ‘খুফিয়া’।

‘খুফিয়া’ মানে অজ্ঞাত। তবে ছবির কাহিনি আদৌ অজ্ঞাত নয়। কারগিল যুদ্ধের পর (আনুমানিক ১৯৯৯ থেকে ২০০৪) পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা ‘আইএসআই’ (ইন্টার সার্ভিস ইনটেলিজেন্স) এবং ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’ (রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইং)-এর মধ্যকার প্রতিযোগিতা, খবর সংগ্রহের নেশা আর বাংলাদেশের অবস্থা নিয়ে পর্যবেক্ষণমূলক(?) এক এসপিওনাজ ছবি ‘খুফিয়া’। হেনা রহমান, যার গোয়েন্দা নাম অক্টোপাস, সে কাজ করতে চায় ‘র’-এর সাথে। বাংলাদেশের ন্যাশনাল সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স বা এনএসআই-এর হিসাব বিভাগে কর্মরত হেনা রহমান শেষমেশ জড়িয়ে যায় ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থার সাথে, কারণ বাবার ক্যানসার চিকিৎসার জন্য টাকা দরকার। বাংলাদেশে যেন জামায়াতে ইসলামী ক্ষমতায় না আসে কিংবা জঙ্গিরা যেন সারা দেশে বোমাবাজি না করতে পারে সেজন্য ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশকে আইএসআই-এর প্রভাবমুক্ত রাখতে চায়। রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালাইসিস উইংয়ের নিজস্ব গোয়েন্দাদের ভেতরও ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হয় এবং কৃষ্ণা মেহেরার সাথে রবি মোহনের ভুল বোঝাবুঝির কারণে খুন হয় রবির মা। যদিও শেষে এই দ্বন্দ্বের অবসান ঘটে, কিন্তু তার আগে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাকলায়েন মির্জার হাতে হেনা ওরফে অক্টোপাস খুন হয়, আর মির্জার লাশ পাওয়া যায় আমেরিকার এক বাড়ির বাথটাবে।
 
বিভিন্ন দৃশ্যে বাঁধন এই ছবিতে কৃষ্ণা মেহেরা বা ‘কেএম’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন বলিউড অভিনেত্রী টাবু। দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন তিনি। চরিত্রের ব্যাপ্তি একটু ছোট হলেও ‘অক্টোপাস’ ওরফে হেনার চরিত্রে টাবুর সমান্তরালে দারুণ অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের আজমেরী হক বাঁধন। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ খ্যাত বাঁধনের ক্যারিয়ারে আরও একটি আন্তর্জাতিক পালক যুক্ত হলো এই ছবির মাধ্যমে। ডাবল এজেন্ট রবি মোহন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘মির্জাপুর’ খ্যাত আলী ফজল। রবির স্ত্রী চারুর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ওয়ামিকা গাব্বি এবং রবি মোহনের মা’র চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করেছেন নবনীন্দ্রা গেহল। এছাড়া জিভ চরিত্রে আশীষ বিদ্যার্থী, শশাঙ্ক চরিত্রে অতুল কুলকার্নি, কুনাল চরিত্রে স্বস্তিক তিওয়ারি, বিক্রম চরিত্রে সিত ভোরা এবং সাকলায়েন মির্জার চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাতাফ ফিগার। 

‘খুফিয়া’ ছবির গান লিখেছেন বিশাল ভরদ্বাজ নিজে এবং আরও লিখেছেন সন্তু কবির, সন্তু রহিম ও গুলজার। ছবির সব গানের সংগীতায়োজন করেছেন বিশাল নিজেই। পরিচালনার পাশাপাশি ছবির চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন বিশাল এবং অসাধারণ ফটোগ্রাফি করেছেন ফরহাদ আহমেদ দেহলভি।

তারপরও এই ছবিকে ঘিরে কিছু কথা থাকে বা কথা উঠেছে। বাংলাদেশের একজন অভিনেত্রী ‘হেনা রহমানের’ চরিত্রটি ফিরিয়ে দিলে সেটি করতে যখন বাঁধন গিয়েছিলেন, আলোচনা শুরু হয়েছিল তখন থেকেই। আলোচনায় এসেছে এই ছবিতে বাংলাদেশকে কীভাবে দেখানো হয়েছে? কেউ কেউ নীরব থাকছেন, কেউ কেউ বলছেন বাংলাদেশকে ছোট করা হয়েছে এবং কেউ কেউ এই ছবিতে বাঁধনের অভিনয় করার সমালোচনাও করেছেন। প্রশ্ন হচ্ছে, সারা পৃথিবীতে প্রচলিত ছবির ট্রেন্ড বা ‘কাহিনির গৎ’ কেমন? রাশিয়া যখন রাজনৈতিক কিংবা আধিপত্যের ছবি বানায় সেখানে রাশিয়ানদের বড় করে দেখানো হয় আর আমেরিকানরা থাকে খারাপ! আবার আমেরিকান ছবি ‘র‌্যাম্বো’ বা ‘কমান্ডো’তে দুষ্টু বা নষ্ট লোক দেখানো হয় রাশানদের। ভারতীয় ছবিতে পাকিস্তানিরা সাধারণত স্বাভাবিক মানুষ নন, তারা খারাপ বা দুষ্টু! ‘খুফিয়া’ ছবিতেও পাকিস্তানিরা স্বাভাবিক নন, বরং তারা বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামী বা জঙ্গিবাদ চাপিয়ে দিতে চায়, যা ভারত চায় না বলে তার গোয়েন্দা সংস্থা তৎপর হয়ে ওঠে। এই ছবিতে টেলিভিশনের পর্দায় একবার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও দেখানো হয়েছে, যদিও স্পষ্ট নয় কোন সময়ের ভিডিও। ধরে নেওয়া যায় ১৯৯৯ থেকে ২০০১। কিন্তু ওই সময়কার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কী আইএসআই প্রভাবিত ছিলেন, নাকি এরপরের জনকে দেখানো হয়েছে? সারা দেশে বোমা হামলা বা গ্রেনেড হামলা একসময়ের বাংলাদেশে আলোচিত এক ঘটে যাওয়া ঘটনা ছিল। এই ঘটনা নিয়ে কেউ ছবি বানালে কেমন হবে বা সেটা কোন বাংলাদেশকে তুলে ধরবে? কোনও একসময়ে যদি আইএসআই এ দেশের ক্ষমতাসীনদের প্রভাবিত করে থাকে তাহলে এখন কারা করছে? প্রিয় দর্শক বিচারের ভার আপনাদের ওপর দেওয়া রইলো।

আহসান কবির সবকিছু ছাপিয়ে ভালোলাগা থাকুক বাঁধনের প্রতি। সমকামী চরিত্রে রূপদান করা সাহসের কাজ। ক্যানসার আক্রান্ত বাবার শান্তির জন্য মেয়েটাকে জীবনই দিতে হলো। সমকামীদের নিয়ে কাজ করার অপরাধে এ দেশে জীবন দিতে হয়েছে এমন ঘটনাও আছে।
 
বাংলা ছবির বাইরে প্রথম কোনও বিদেশি ছবির রিভিউ লিখলাম। বাংলাদেশের পোশাক, ওষুধ বা খাবারের মতো অনেক কিছু এখন বিদেশে রফতানি হয়। বাংলাদেশের অভিনেতা অভিনেত্রীদের কদর বাড়ুক আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্রে, এই কামনা রইলো।

পরিশিষ্ট: আমেরিকা বা ইউরোপ, এমনকি ইরানি ছবির কথা বাদ দিলাম। ভারতে সমকামিতা, রাজনীতি, ধর্ম, পরিষ্কার টয়লেট বা স্যানিটারি ন্যাপকিন কিংবা যৌনতা শিক্ষা নিয়ে ছবি হয়েছে। মানুষ দেখেছে, আলোচিত হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশ? হলি আর্টিজানের জঙ্গি হামলার ঘটনা নিয়ে নির্মিত মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘শনিবার বিকেল’র খবর নিশ্চয়ই সবাই জানেন? 

জয় হোক বাংলা ছবির। ছবিটির বিভিন্ন দৃশ্য

সমালোচক: রম্যলেখক, সাংবাদিক ও কবি

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

আরও সমালোচনা:

অন্তর্জাল: সাইবার থ্রিলার নিয়ে স্মার্ট ছবি

এমআর-৯: ‘মাসুদ রানা’ আছে ‘মাসুদ রানা’ নেই!

১৯৭১ সেই সব দিন: ৫৩ বছর আগের বাস্তবতা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা

আম কাঁঠালের ছুটি: দুরন্ত শৈশব মনে করিয়ে দেয়া এক ছবি

প্রিয়তমা: পরিচিত গল্প আর ‘তাড়াহুড়ো’য় নির্মিত ছবি!

প্রহেলিকা: ছবিটি দেখলে কিছু প্রশ্ন উঠবেই

‘পরাণ’-এর আরেক ভার্সন ‘সুড়ঙ্গ’!

সুলতানপুর: ফর্মুলায় আক্রান্ত ধারাবাহিকতাহীন ছবি

আদিম: ‘বস্তি ঘনিষ্ঠ’ এক অপরূপ ছবি!

পাপ: শেষ না হওয়া এক থ্রিলার গল্পের ছবি

কিল হিম: বড়শি দিয়ে মাছ ধরেন অনন্ত, কিন্তু সেটা নড়ে না!

লিডার: স্বস্তি আর অস্বস্তির পাঁচ-ছয়

লোকাল: রাজনীতির ব্যানারে প্রেম ও প্রতিশোধের ছবি!

জ্বীন: ‘জিন ছাড়ানো’র কুসংস্কারাচ্ছন্ন ছবি!

/এমএম/এমওএফ/
সম্পর্কিত
আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের বিচারক বাঁধন
আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের বিচারক বাঁধন
‘আমি একটু অবাক’
‘আমি একটু অবাক’
‘খুফিয়া’ বিতর্কে বাঁধনের ব্যাখ্যা, সঙ্গে নতুন খবর
‘খুফিয়া’ বিতর্কে বাঁধনের ব্যাখ্যা, সঙ্গে নতুন খবর
‘তাদের চেয়ে কি আমরা ক্রিকেটটাকে বেশি বুঝি’
বিশ্বকাপ বিশেষ‘তাদের চেয়ে কি আমরা ক্রিকেটটাকে বেশি বুঝি’
বিনোদন বিভাগের সর্বশেষ
টিপ সরিয়ে পরছেন তারকারা, নেপথ্যে কী
টিপ সরিয়ে পরছেন তারকারা, নেপথ্যে কী
এক দিনের ব্যবধানে মাতৃহারা নায়ক ও গায়ক
এক দিনের ব্যবধানে মাতৃহারা নায়ক ও গায়ক
কিয়ারার পারিশ্রমিক ১৩ কোটি!
কিয়ারার পারিশ্রমিক ১৩ কোটি!
ফের ‘লাকি পার্টনার’র সঙ্গে ফারিণ!
ফের ‘লাকি পার্টনার’র সঙ্গে ফারিণ!
গানে ফারিণ, সঙ্গে তাহসান, পেছনে ইমরান
গানে ফারিণ, সঙ্গে তাহসান, পেছনে ইমরান