X
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

শাহাবুদ্দিন ৭০, জন্মদিনে শুভেচ্ছা

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৫৪

দাউদ হায়দার আড্ডা দিলে, কথা শুনলে অবিশ্বাস্য। অনুচ্চ কণ্ঠ। নরমভাষী। সহজ। সরল। মুক্তিযুদ্ধে প্লাটুন কমান্ডার ছিলেন, সশস্ত্র যোদ্ধা, তিনিই প্রথম, ১৬ ডিসেম্বরে (১৯৭১) রেডিও পাকিস্তানের (ঢাকায়) ছাদে উঠে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। এতটাই সাহসী, ভয়হীন, নিচে পাক সৈন্য পাহারাদার, হাতে মর্টার। টের পায়নি। যখন পেয়েছে, মাথামোটা পাক সেনারা গোলাবারুদ ছুড়ে বাহাদুরি দেখায়। তাঁর আগেই শাহাবুদ্দিন ছাদের ওপর শুয়ে, গড়িয়ে, অলক্ষে নিচে নেমে আবার যোদ্ধা। কী করে বেঁচে যান, অভিজ্ঞতা লিখেছেন নিজেই। বলেছেন বহু অনুষ্ঠানে। মিডিয়ায়।
আমরা জানি, প্রথম বিশ্বযুদ্ধে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধেও বিস্তর কবি-শিল্পী-সাহিত্যিক রণাঙ্গনে সরাসরি যোদ্ধা। মারা গিয়েছেন অনেকে। যাঁরা বেঁচে গিয়েছেন, কেউ কেউ স্মৃতিকথা লিখেছেন। উপন্যাস, কবিতা, গল্প লিখেছেন। ছবি এঁকেছেন চিত্রশিল্পী। নানা অঙ্কনে। রঙেরেখায়। প্রতীকে। কখনও খোলামেলা।
আমাদের মুক্তিযুদ্ধেও বহু কবি-সাহিত্যিক-শিল্পী যোগ দিয়েছেন। যুদ্ধের মাঠে ময়দানে-বনবাদাড়ে শত্রুর মোকাবিলায় অকুতোভয়। শিল্পী শাহাবুদ্দিন তো ছিলেনই। কবি রফিক আজাদ, কবি মাহবুব সাদিক। প্রমুখ। নাট্যজন নাসির উদ্দীন ইউসুফ বাচ্চুও। মুক্তিযোদ্ধা।
অভিযোগ শুনেছি, অভিযোগকারী সমালোচক, সহশিল্পী, ‘শাহাবুদ্দিনের ক্যানভাসে ‘মুক্তিযুদ্ধ’ তেমন বিশালত্বে গুরুত্ব পায়নি।’ ধন্দ লাগে এই অভিযোগে। সমালোচনায়।
মনে রাখি, শাহাবুদ্দিন মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন বয়স যখন মাত্র কুড়ি। যুদ্ধফেরত শাহাবুদ্দিন চারুকলা কলেজের ছাত্র, পাস করে বিদেশে (প্যারিসে)। শিখেছেন বৈশ্বিক কলাচাতুর্য। চিত্র তথা ছবির অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যতের আন্তর্জাতিক বলয়। আঁকছেন জীবননির্ভর ছবি। আঁকছেন মানুষের সবল, গতিময়, চলমান, ভাঙাচোরা চেহারার ছবি। মানুষই উৎস তাঁর। এবং এই মানুষ বিশ্বের সব দেশের, সব প্রান্তের। আঁকছেন বিপ্লব সংগ্রাম, যুদ্ধের ছবিও। ছবিতে মানুষের আত্মবিদারণ, মর্মান্তিক পতন। সমবেত জাগরণ।
আঁকছেন কবে? হ্যাঁ, বাংলাদেশের দুই-তিন দশক পরে। মনে রাখি, কবি-সাহিত্যিক-শিল্পী ‘তক্ষনি ঘটমান’ বিষয় রূপায়িত করেন না। স্মৃতি ও ইতিহাস সংযোজনই মিলনবিন্দুর পূর্ণতা। যাঁরা ঘটমানে তাৎক্ষণিক (লেখায়-শিল্পে), দলিল নিশ্চয়, ইতিহাসও, সমকালীনতায় দেশীয় এবং বিশ্বময়, কিন্তু ‘পূর্ণশশী’র কথাও বলেছেন রবীন্দ্রনাথ। অর্থাৎ অপেক্ষার। এও ঠিক যে, রবীন্দ্রনাথই, ১৯০৫ সালে, বঙ্গভঙ্গের সময়কালে ‘পূর্ণশশীর’ আগেই ‘আমার সোনার বাংলা’, ‘ও আমার দেশের মাটি’, ‘যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে’ গান লিখেছেন। ‘আমার সোনার বাংলা’ বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত।। ‘ও আমার দেশের মাটি’ও হতে পারতো। ‘যদি তোর ডাক শুনে’ আজও  বিপ্লবীদের আহ্বান। তা হলে, সময়চিত্র ব্যতিরেকেও দেশকালের প্রয়োজনে, অনিবার্যতায় হোমাগ্নি।
যেমন, ১৯৫২ সালে লেখা আবদুল গাফফার চৌধুরীর একটি পদ্য, নিছকই পদ্য, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’, আলতাফ মাহমুদের সুরারোপে, একুশে ফেব্রুয়ারি এলেই আবালবৃদ্ধবনিতার কণ্ঠে গীত।
সময় এখানে ইতিহাস (ওই গানের আত্মজাগরণে)।
শাহাবুদ্দিনের কয়েকটি ছবি, সময়কালের চিত্রণ। বিপ্লব-সংগ্রাম-আন্দোলনের। কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় ছবিগুলো দেখেন (শাহাবুদ্দিনের স্টুডিওতে) ‘বিশ্বের সব দেশের। সমকালীন।’ সমকালীনতাই শাহাবুদ্দিনের শিল্প। অতীতের ইতিহাসে মিশ্রিত এ কালের বহু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার ছবি, গান্ধীকে হত্যার ছবি যে-অঙ্কনরেখায় চিত্রিত, ঘটনাবলিও। এখানেই শিল্পী ক্রান্তদর্শী। শাহাবুদ্দিন সবার্থে।
শাহাবুদ্দিন মুক্তিযোদ্ধা। শিল্পেও যোদ্ধা। যুদ্ধ করেন মানুষের জন্যে। মানুষের তরঙ্গিত জীবনই তাঁর ছবির সাম্প্রতিকতা।
মানুষের সামগ্রিক চিত্ররূপ খুব সহজ নয়। মানবস্রোতে শামিল করতে হয় নিজেকে। শাহাবুদ্দিন করেছেন। ছেঁকে আনেন নানা মানুষ। চিত্রে। শাহাবুদ্দিন কিংবদন্তি। ওঁকে নিয়ে, ওঁর শত্রুকুল যতই অসভ্য হোক, প্রশ্ন করতেই পারি, বিদেশে থেকেও যেসব শিল্পী (এবং দেশীয়) বড় বড় কথা বলেন, দেশে হ্যান করেছি ত্যান করেছি, কতজন বিদেশে মান্য? নাম বলছি না। শাহাবুদ্দিনের মান্যতা দেশে বিদেশেও। দেশ-বিদেশ একাকার করেছেন বোধ-মননে। চাট্টিখানি কথা নয়। একজন শিল্পী সারা প্রহরের। শাহাবুদ্দিনও।
আজ শাহাবুদ্দিনের জন্মদিন, ১১ সেপ্টেম্বর। সত্তর বছরের শুরু। কিংবদন্তি ও ইতিহাস তিনি।
মুক্তিযুদ্ধের সময়কালের রাগী, যোদ্ধা নন। কিন্তু যোদ্ধা। ছবিতে।
শাহাবুদ্দিন স্ত্রী আনা ইসলাম (সুলেখিকা), কন্যা চিত্র ও চর্যাকে নিয়ে সুখী। বলেন, ‘ওঁরাই আমার চিত্রাঙ্কনের সমালোচক।’ সাংসারিক এই প্রেমে চিরনবীন, চিরযৌবনে মানবিক। দেশ-বিদেশের প্রেক্ষিতে। তাঁর প্রেক্ষিতায় সৃষ্টির (ছবি) আলো ও আলোক।

শাহাবুদ্দিনের ৭০তম জন্মদিনে আনন্দিত শুভেচ্ছা।

লেখক: কবি ও সাংবাদিক

/এসএএস/এমওএফ/

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

সম্পর্কিত

বাংলা নববর্ষ, সংস্কৃতি ও রাজনীতি

বাংলা নববর্ষ, সংস্কৃতি ও রাজনীতি

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর: নিয়তি ও ইতিহাস

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর: নিয়তি ও ইতিহাস

অন্নদাশঙ্কর রায়ের জন্মদিন, কেন জরুরি মননবোধে

অন্নদাশঙ্কর রায়ের জন্মদিন, কেন জরুরি মননবোধে

ইউরোপ: করোনা ও শীত

ইউরোপ: করোনা ও শীত

বঙ্গবন্ধু-ইন্দিরা আকর্ষণ

বঙ্গবন্ধু-ইন্দিরা আকর্ষণ

মুনীরুজ্জামান: কমরেড, বিদায়

মুনীরুজ্জামান: কমরেড, বিদায়

পুলুদার ‘শালা’

পুলুদার ‘শালা’

জার্মানির একত্রীকরণ, ৩০ বছর

জার্মানির একত্রীকরণ, ৩০ বছর

এ কে আব্দুল মোমেনের ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’

এ কে আব্দুল মোমেনের ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’

১৫ আগস্টের স্মৃতি

১৫ আগস্টের স্মৃতি

সর্বশেষ

১০ নম্বর শর্ত থেকে মুক্ত হলো রবি

১০ নম্বর শর্ত থেকে মুক্ত হলো রবি

রেইনট্রিতে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ৫ জুলাই

রেইনট্রিতে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ ৫ জুলাই

রমনা বোমা হামলা মামলার শুনানি: রাষ্ট্রপক্ষকে চূড়ান্ত সময় দিলেন হাইকোর্ট

রমনা বোমা হামলা মামলার শুনানি: রাষ্ট্রপক্ষকে চূড়ান্ত সময় দিলেন হাইকোর্ট

কক্সবাজারে খুলেছে হোটেল-মোটেল

কক্সবাজারে খুলেছে হোটেল-মোটেল

বাংলাদেশে চাকরি দিচ্ছে ডব্লিউএফপি, বেতন ১ লাখ ১৪৬৩৮ টাকা

বাংলাদেশে চাকরি দিচ্ছে ডব্লিউএফপি, বেতন ১ লাখ ১৪৬৩৮ টাকা

ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপালের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ১৫ জুলাই

ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপালের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ১৫ জুলাই

দুদকের বরখাস্ত পরিচালক বাছিরের জামিন আবেদন খারিজ

দুদকের বরখাস্ত পরিচালক বাছিরের জামিন আবেদন খারিজ

‘পুলিশ ম্যানেজ করা আছে, রংপুর-বগুড়া যেখানেই যান ১৫০০ টাকা’

‘পুলিশ ম্যানেজ করা আছে, রংপুর-বগুড়া যেখানেই যান ১৫০০ টাকা’

ঋণের টাকা দিতে না পেরে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ঋণের টাকা দিতে না পেরে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

পোপের সঙ্গে সাক্ষাৎ স্পাইডারম্যানের

পোপের সঙ্গে সাক্ষাৎ স্পাইডারম্যানের

বিলিয়াতে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন

বিলিয়াতে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন

দূরপাল্লার বাস ছাড়া সবই চলে ঢাকা-সাইনবোর্ড সড়কে

দূরপাল্লার বাস ছাড়া সবই চলে ঢাকা-সাইনবোর্ড সড়কে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

© 2021 Bangla Tribune