X
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

কিছু কিছু ঘটনা পুলিশের নীতি-নৈতিকতার মানকে প্রশ্নবিদ্ধ করে

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮:০৯

সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা
দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ বাংলাদেশ পুলিশের মর্যাদা ও সম্মান বাড়ানোর জন্য সদস্যদের তাগিদ দিয়ে আসছেন। তার মূল কথা, ‘ব্রুটালিটি বা নির্যাতনকে চিরতরে কবর দিতে হবে। জনগণের সঙ্গে মিশতে হবে, তাদের সমস্যা শুনতে হবে। মানুষকে ভালোবাসতে হবে, তাদের সঙ্গে সদাচরণ করতে হবে। মানুষকে ভালোবাসলে তাদেরও ভালোবাসা পাওয়া যায়, করোনা আমাদের তা দেখিয়ে দিয়েছে।’

এই প্রচেষ্টা চলবে বলেই বিশ্বাস করি। কিন্তু এরমাঝেও কিছু ঘটনা ঘটে, যেগুলো বাহিনীর সদস্যদের নীতি-নৈতিকতার মানকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। যেমনটা ঘটেছে সম্প্রতি কক্সবাজারে। সেখানে এক নারীর মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে তিন লাখ টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এবং সেই অভিযোগে এক এসআইসহ ৩ পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার ও মামলা রেকর্ড করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সোমবার রাতে শহরের মধ্যম কুতুবদিয়াপাড়ার ব্যবসায়ী রিয়াজ আহমদের স্ত্রী রোজিনা আকতার এই ছিনতাইয়ের শিকার হন। এ সময় স্থানীয়দের সহযোগিতায় এক পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়। পরে ৯৯৯ ফোন করে কক্সবাজার সদর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আটক তাদের ওই সদস্যকে নিজেদের হেফাজতে নেয়। এরপর আরও দুই পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনাটি পুরোটা বলা প্রয়োজন বলেই উল্লেখ করতে হচ্ছে। ছিনতাইয়ের শিকার রোজিনা আকতার জানান, দোকানের মালামাল কেনার জন্য তিনি এক আত্মীয়ের কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা নিয়ে ফিরছিলেন। বাসার কাছে আসার পর একটি অটোরিকশা নিয়ে এসে সাদা পোশাকধারী তিন পুলিশ সদস্য তার মাথায় পিস্তল ঠেকায়। এরপর টাকাভর্তি ব্যাগ নিয়ে যেতে চাইলে তিনি একজনকে পেছন থেকে টেনে ধরেন। এ সময়ে পিস্তল দিয়ে তার শরীরে আঘাত করা হয়। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে দু’জন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। জনতার হাতে আটক এক পুলিশ সদস্যকে পরে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। এ ঘটনায় তিনি বাদী হয়ে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ভালো দৃষ্টান্ত এই যে, পুলিশের হেল্প লাইন ৯৯৯-এ কল করে সাহায্য পাওয়া গেছে এবং পুলিশ সদস্য হলেও তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। এখন দেখার পালা বিভাগের ভাবমূর্তির নামে এই নারী ও তার স্বামীকে যেন ইয়াবা ব্যবসায়ী বানিয়ে ফেলা না হয়। পুলিশের অনেক সদস্য অনেক মানবিক, অনেক ভালো কাজ করেন, করছেন। কিন্তু মানুষের ধারণা ভিন্ন। কারণ, পুলিশ যে নিজেকে নানান ছাড়পত্রের অধিকারী ভাবে, তা দৈনন্দিন অভিজ্ঞতা থেকেই মানুষ জানে। পথে-ঘাটে, রাস্তার মোড়ে, ট্রাফিক সিগন্যালে, হাটে-বাজারে পুলিশের অনিয়মের অসংখ্য উদাহরণের মুখোমুখি হতে হয় মানুষকে।

পুলিশ হলেই নিয়মের ঊর্ধ্বে নন– এ কথাটা পুলিশের মাথায় ভালো করে প্রবেশ করতে হবে। আইজিপি মহোদয় সেটাই চান। আইন রক্ষার ভার যাদের হাতে তুলে দিয়েছে রাষ্ট্র, তারাই যদি আইন নিজেদের হাতে তুলে নেন তাহলে মানুষ যাবে কার কাছে? পুলিশের একটা অংশের বিরুদ্ধে ঠিক এই অভিযোগই বারবার উচ্চারিত হয়। দায়িত্ব কাঁধে নিলে তা পালন করার শক্তি ও আন্তরিকতা থাকতে হয়, অন্যথায় এর অপব্যবহার হয়।

আগেও বলেছি, আবারও বলছি, পুলিশ অর্থেই অমানবিক বা অত্যাচারী নয়। অসংখ্য পুলিশ কর্মী আছেন, যারা এর উল্টো পথের পথিক, সমাজ তাদের মান্য করে। কিন্তু মানবিকতার চর্চা আরও পরিশ্রমসাধ্য। করোনাকালে পুলিশের মানবিক কাজ মানুষ দেখেছে। কিন্তু টেকনাফের ওসি প্রদীপ, কিংবা কক্সবাজারের এই ঘটনা, সিলেটের এসআই আকবরের কাণ্ড মানুষকে ভিন্ন চিত্রও উপহার দেয়, মানুষকে ভীত করে।

একটা ধারণা স্পষ্ট যে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পুলিশ সদর দফতর অভিযুক্ত সদস্যদের গুরুদণ্ড না দিয়ে লঘুদণ্ড দেয়। ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন, ফৌজদারি মামলার অপরাধ করলেও বেশিরভাগ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দিয়েই ইতি টানা হয়। কক্সবাজারের ঘটনায়ও দেখার পালা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা হয়, নাকি বিভাগীয় সাজার নামে সবকিছু মানুষের নজরের আড়ালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহার বা সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তারপর কৌশলী তদন্ত প্রতিবেদনের মাধ্যমে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে রক্ষা করা হয়। এই চর্চা অব্যাহত থাকলে বাহিনীর সদস্যদের অনেককেই অপরাধের চর্চা থেকে বের করে আনা কঠিন হবে।

সরকারের যত সংস্থা আছে তাদের মধ্যে পুলিশের কাজ সবচেয়ে বেশি দৃশ্যমান। তাই তাদের সতর্কতা বেশি প্রয়োজন। যদি সদস্যদের একজনের মাথায়ও এমন ধারণা পাকাপোক্ত হয় যে, নাগরিকের প্রাণের আবার মূল্য কী তাহলে বুঝতে হবে সদস্যদের ওরিয়েন্টশনে বড় ঘাটতি আছে। পুলিশ সদস্যদের অনেকে হৃদয়হীন বা অপরাধপ্রবণ– সমাজের নানা স্তরে তা নিয়ে প্রতিক্রিয়াও অনেক। এসব কিন্তু আজকের বিষয় নয়। ঐতিহাসিক কাল থেকে হয়ে আসছে। আচমকাই পুলিশের একাংশ এমন হয়ে পড়েনি। অবশ্যই এর পরিবর্তন প্রয়োজন। এখানে রাজনীতিরও যোগ আছে। সুবিধা অনুযায়ী পুলিশকে ব্যবহার করার রাজনৈতিক প্রবণতা থাকলে বাহিনীর ভেতরের কেউ কেউ অভব্যতা করবেই।

আমাদের মতো দেশে পুলিশের ক্ষমতা অনেক, বলতে গেলে সীমাহীন। কিন্তু ক্ষমতার স্বাদ পাওয়া প্রতিটি পেশার মানুষকে আরও বেশি সচেতনতার চর্চার মধ্যে থাকা প্রয়োজন। উন্নয়নশীল বাংলাদেশে পুলিশ সদস্যরা সেটাই ভাববেন আশা করি।

লেখক: সাংবাদিক

/এসএএস/এমওএফ/

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

সম্পর্কিত

নিজের হাতেই নেই নির্ভরতার চাবি

নিজের হাতেই নেই নির্ভরতার চাবি

লকডাউনের বাংলাদেশ ‘ভার্সন’

লকডাউনের বাংলাদেশ ‘ভার্সন’

ছবিটা পরিষ্কার হলো কি?

ছবিটা পরিষ্কার হলো কি?

জনতা চায় মারমুখী সংবাদ প্রতিনিধি?

জনতা চায় মারমুখী সংবাদ প্রতিনিধি?

বাঙালির আত্মা

বাঙালির আত্মা

‘কী একটা অবস্থা!’

‘কী একটা অবস্থা!’

পাপুল কাণ্ড

পাপুল কাণ্ড

আবিরন হত্যার বিচারে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কিছু নেই

আবিরন হত্যার বিচারে উচ্ছ্বসিত হওয়ার কিছু নেই

বহুমাত্রিক দুর্নীতির সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা

বহুমাত্রিক দুর্নীতির সামাজিক গ্রহণযোগ্যতা

সু চি’র বিদায় ও রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ

সু চি’র বিদায় ও রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ

কারাগারে গেলে টাকায় সব মেলে

কারাগারে গেলে টাকায় সব মেলে

মির্জা কাদেরের 'ভোকাল টনিক'

মির্জা কাদেরের 'ভোকাল টনিক'

সর্বশেষ

বিদেশে বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত

বিদেশে বাংলাদেশের প্রথম পতাকা উত্তোলন দিবস পালিত

করোনা হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি উধাও!

করোনা হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি উধাও!

অবিবাহিত সেজে বিয়ে, কলেজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

অবিবাহিত সেজে বিয়ে, কলেজ শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ

দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমে মুমিনুল করলেন ৪৭

দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমে মুমিনুল করলেন ৪৭

বাঁশখালীতে নিহতদের পরিবারকে ৩ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নোটিশ

বাঁশখালীতে নিহতদের পরিবারকে ৩ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নোটিশ

১০ দিনের মধ্যে বদলে যাবে শেবামেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড

১০ দিনের মধ্যে বদলে যাবে শেবামেক হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড

তারাবিতে মাত্র ৬ দিনে কোরআন খতম

তারাবিতে মাত্র ৬ দিনে কোরআন খতম

বরখাস্ত কারারক্ষী মাদকসহ আটক

বরখাস্ত কারারক্ষী মাদকসহ আটক

হিট শকে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৪২ কোটি টাকার প্রণোদনা: কৃষিমন্ত্রী   

হিট শকে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় ৪২ কোটি টাকার প্রণোদনা: কৃষিমন্ত্রী   

মুমিনুলদের বিপক্ষে ফিরলেন ম্যাথুজ, নতুন মুখ প্রবীণ

মুমিনুলদের বিপক্ষে ফিরলেন ম্যাথুজ, নতুন মুখ প্রবীণ

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনি প্রচার বাতিল করলেন রাহুল গান্ধী

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনি প্রচার বাতিল করলেন রাহুল গান্ধী

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune