X
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪
৩০ চৈত্র ১৪৩০

দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়: শুভ জন্মদিন

আমিনা আহমেদ
১২ নভেম্বর ২০১৬, ২০:১৭আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০১৬, ২১:২৩

আমিনা আহমেদ কণ্ঠশিল্পী দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়কে বলা চলে, আধুনিক বাংলা গানের জনপ্রিয় শিল্পী। অনেকে বলেন, তার কণ্ঠের সঙ্গে নাকি হেমন্তের খুব মিল, তাই তিনি জনপ্রিয় হয়েছেন। আমার অবশ্য এমনটা কখনও মনে হয়নি। দ্বিজেন বরং স্বকণ্ঠেই ছিলেন মোহনীয়। এই যে তার গাওয়া, ‘আপনাকে এই জানা আমার ফুরাবে না/ এই জানারই সঙ্গে সঙ্গে তোমায় চেনা’—অসাধারণ লাগতো আমার। বরং আমার তো মাঝে মাঝে মনে হতো রবীন্দ্রনাথের গান গাওয়ার জন্যই তিনি হাজির হয়েছিলেন। তার সঙ্গে সলিল চৌধুরীর অসাধারণ বন্ধুত্ব ছিল। সলিল চৌধুরীর সঙ্গেই তিনি দুর্দান্ত সব গানে কণ্ঠ দিয়ে গেছেন।
সলিল চৌধুরী ছিলেন সেই সময়ের জনপ্রিয় সঙ্গীত আয়োজক। তার সঙ্গেই যুক্ত হয়ে চল্লিশের শেষের দিকে তারা দুর্দান্ত সব গান উপহার দেওয়া শুরু করেন। যার মধ্যে ছিল ‘রেখো মা দেশেরে মনে’, ‘একদিন ফিরে যাব চলে’। এসব গানেই বিখ্যাত হওয়া শুরু করেছিলেন দ্বিজেন।
তবে বর্তমান সময়ে তাকে রবীন্দ্রসঙ্গীতের মূল কান্ডারি হিসেবেই মেনে নিতে হবে। তিনি যখন রবীন্দ্রসঙ্গীত গাইতেন, তখন এক বিস্ময়কর আবহ তৈরি হতো চারপাশে। শ্রোতাদের হৃদয় ছুঁয়ে যেতো তার কণ্ঠ। এমনকি ষাটের দশকে চলচ্চিত্রের জন্যও তিনি রবীন্দ্রসঙ্গীতে কণ্ঠ দিয়েছেন।
তবে গত ৬০ বছরের বেশি সময় তিনি জনপ্রিয় ‘জাগো দুর্গা’ গানটি দিয়ে। এই গানটি প্রথম প্রচারিত হয় অল ইন্ডিয়া রেডিওতে। এরপর থেকেই প্রতি দুর্গা পুজায় ‘জাগো দুর্গা’ শোনানো হয়। এখন তো সারাবিশ্বে হিন্দুদের দুর্গা পূজায় এই গান কালজয়ী হয়ে গেছে। অন্তত এই একটি গানের জন্যও যেন দ্বিজেন কিংবদন্তি হয়ে আছেন।

দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে আমিনা আহমেদ সঙ্গীতে  অবদান রাখায় ২০১০ সালে ভারতের সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান পদ্মভূষণ পদক লাভ করেন তিনি। পরের বছর পশ্চিমবঙ্গের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা বঙ্গবিভূষণে ভূষিত হন। দ্বিজেন মুখোপাধ্যায় বেশ ক'বার বাংলাদেশেও এসেছেন। সর্বশেষ যখন এলেন, তখন ছিল পহেলা বৈশাখের আয়োজন। একটা বিষয় সবাইকে মনে করিয়ে দেওয়া যায়, আমাদের পহেলা বৈশাখের ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো’ গানটিও কিন্তু দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়ের জনপ্রিয় গানের একটি।
১৯২৭ সালের ১২ নভেম্বর দ্বিজেন মুখোপাধ্যায় জন্মগ্রহণ করেন। ছয় দশকের বেশি সময় বাংলা গান ও রবীন্দ্রসঙ্গীতে দাপিয়ে বেড়ানো এই শিল্পী ১ হাজার ৫০০-এর মতো গান রেকর্ড করেছেন। তার মধ্যে ৮০০ গানই হলো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের। জন্মদিনে এই অসাধারণ শিল্পীকে জানাই আমাদের শ্রদ্ধা।

লেখক: রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে হচ্ছে না মঙ্গল শোভাযাত্রা, হবে ‘কালবৈশাখী’ অনুষ্ঠান
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে হচ্ছে না মঙ্গল শোভাযাত্রা, হবে ‘কালবৈশাখী’ অনুষ্ঠান
বরিশালের স্পেশাল হাতে মাখা ইলিশ ভুনা রাঁধবেন যেভাবে
বরিশালের স্পেশাল হাতে মাখা ইলিশ ভুনা রাঁধবেন যেভাবে
আইরির এক ওভারে ছয় ছক্কায় ইতিহাস
আইরির এক ওভারে ছয় ছক্কায় ইতিহাস
পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি সেটেলারদের তাণ্ডব, আহত ৬ ফিলিস্তিনি
পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি সেটেলারদের তাণ্ডব, আহত ৬ ফিলিস্তিনি
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ