X
বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২
২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

ইউক্রেনে রুশ যুদ্ধের শিক্ষা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
০৪ জুলাই ২০২২, ২০:১৪আপডেট : ০৪ জুলাই ২০২২, ২০:১৪

পশ্চিমা সরকারগুলো ইউক্রেনে রাশিয়ার সঙ্গে একটি দীর্ঘমেয়াদি সংঘাতের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। সামরিক কর্মকর্তারা প্রায় আট দশকের মধ্যে ইউরোপের বৃহত্তম স্থলযুদ্ধের শুরুর কয়েক মাস থেকে শিক্ষা নিতে তৎপর হয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অর্গানাইজেশন (ন্যাটো) মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ গত সপ্তাহে অঙ্গীকার করেছেন, যতদিন প্রয়োজন তারা ইউক্রেনীয় সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা দিয়ে যাবেন। তবে এই যতদিন নির্ভর করছে মূলত সংঘাতের মোড় কোন দিকে গড়াবে তার ওপর। যুদ্ধরত উভয়পক্ষই এখনও লড়াই জিততে চেষ্টা করছে।

প্রতিরক্ষা পরিকল্পনাবিদরা চলমান যুদ্ধক্ষেত্রের অস্ত্র, কৌশল, সরঞ্জাম ও লড়াইয়ের বিভিন্ন কারণ গবেষণা করছেন।

ব্রিটেনের নতুন চিফ অব জেনারেল স্টাফ জেনারেল প্যাট্রিক স্যান্ডার্স সম্প্রতি এক ভাষণে বলেছেন, আমরা নিবিড়ভাবে ইউক্রেনের যুদ্ধ পর্যালোচনা করছি। আমরা ইতোমধ্যে শিখছি এবং তা কাজে লাগাচ্ছি।

একটি অ্যামবুশের পরিকল্পনা করছে ইউক্রেনীয় সেনারা

চলমান এই সংঘাত বিভিন্ন পক্ষের গভীর মনোযোগ আকর্ষণ করেছে এবং পেশাদার সেনাদের জন্য গবেষণাগারের মতো হয়ে উঠেছে। শুধু যে যোদ্ধা ও বেসামরিকদের মৃত্যুর কারণে তা নয়, কিংবা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যুগে প্রথম বড় যুদ্ধ হওয়ার কারণেও এই মনোযোগ আকর্ষণ করেনি।

কয়েক দশকের মধ্যে ইউক্রেন যুদ্ধে প্রথমবারের মতো বড় আকারের, অত্যাধুনিক এবং মোটামুটি সমান প্রতিপক্ষ মুখোমুখি হয়েছে। গত কয়েক দশকের অপর সংঘাতগুলোতে অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত বাহিনী কম আধুনিক বাহিনীর মুখোমুখি হয়েছে। যেমন দুটি উপসাগরীয় যুদ্ধ ও আফগানিস্তান। অন্যত্র আরও ছোট পরিসরে যুদ্ধ হয়েছে।

এই যুদ্ধের কিছু শিক্ষা মোটেই নতুন কিছু নয়। যেমন দৃঢ় নেতৃত্বের গুরুত্ব এবং স্থিতিস্থাপক সপ্লাই লাইন। অন্যগুলো হলো: আধুনিক যুদ্ধক্ষেত্রে লুকিয়ে থাকার কোনও স্থান নেই এবং নেই কোনও সীমা। ড্রোন, ইলেক্ট্রনিক নজরদারি এবং মহাকাশভিত্তিক পর্যবেক্ষণের কারণে কয়েক বছর আগের তুলনায় লুকিয়ে থাকা অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে।  

জেনারেল স্যান্ডার্স বলেছেন, রাশিয়ার আক্রমণ দেখিয়ে দিয়েছে যে, কেউ যদি সংঘাত এড়াতে চায়, তাহলে তার উচিত লড়াইয়ের প্রস্তুতি নেওয়া।

সামরিক চিন্তাবিদরা বলছেন, পশ্চিমা নাগরিকদের জন্য এটি একটি সতর্কবার্তাও। যারা যুদ্ধকে অনেক দূরের কিছু মনে করতেন। যারা ভাবতেন যুদ্ধ হলো হাই-টেক এবং চরম নির্ভুলতায় বাস্তবায়ন হয়।

বিপরীতে ইউক্রেন যুদ্ধে নির্বিচার ধ্বংসযজ্ঞ দেখা গেছে। এতে ভারী কামান দাগা হয়েছে। যা দুটি বিশ্বযুদ্ধের স্মৃতি পুনরায় ফিরিয়ে এনেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাবেক বিশ্লেষক এবং সাবেক আর্মি ইনফ্যান্ট্রি অফিসার বিলি ফ্যাবিয়ান বলেন, হয়ত মানুষ যুদ্ধকে যত আধুনিক মনে করে বাস্তবে তা নয়। গণ আক্রমণ যুদ্ধ কৌশল কঠিন ও বেদনাদায়ক। এতে ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতি হয়।

শত্রুদের অবস্থান শনাক্তে ড্রোন ব্যবহার করা হয়েছে

গত সপ্তাহে ন্যাটোর বার্ষিক সম্মেলনে কর্মকর্তারা যুদ্ধ শুরুর ক্ষেত্রে ট্রান্স-আটলান্টিক সহযোগিতা মূল্যবোধের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। জোটের কর্মকর্তারা বলেছেন, ২০১১ সালে লিবিয়ার গৃহযুদ্ধে ন্যাটোর হস্তক্ষেপের সময় এর প্রয়োজনীয়তা স্পষ্ট হয়েছে। ওই সময় ইউরোপীয় শক্তিগুলোকে গোলাবারুদের মজুত কম থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নির্ভরশীল হতে হয়েছিল।

কর্মকর্তারা বলছেন, চলমান সংঘাতে সহযোগিতা বিস্তৃত হয়েছে অস্ত্র সরবরাহ থেকে শুরু করে রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ পর্যন্ত। এই ঐক্য রাশিয়াকে পরাজিত করেনি। কিন্তু এতে যুদ্ধে পশ্চিমা সহযোগিতার প্রভাব বহুগুণ বাড়িয়েছে।

উভয় পক্ষের অবিরাম বোমাবর্ষণ দেখিয়ে দিয়েছে স্পষ্টভাবে অস্ত্র ও গোলাবারুদের মজুতের গুরুত্ব। গত এক-দুই মাসে রাশিয়ার ব্যাপক মজুত যুদ্ধক্ষেত্রে তাদের সুবিধা এনে দিয়েছে। কিন্তু কয়েকজন ওপেন-সোর্স গোয়েন্দা বিশ্লেষক ইঙ্গিত দিচ্ছেন যে, নির্দিষ্ট গোলাবারুদের ক্ষেত্রে রাশিয়া হয়ত এখন মজুত ঘাটতিতে পড়তে যাচ্ছে।

ইউক্রেনের পশ্চিমারা মিত্ররাও কিয়েভকে বিপুল পরিমাণে অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহের পর নিজেদের সামরিক-শিল্প পরিকল্পনা নিয়ে পুনরায় ভাবতে শুরু করেছে। তারা ভাবছেন, একসময় তাদের সেনাদেরও এসব ব্যবহার করা লাগতে পারে।

বিমান বিধ্বংসী অস্ত্র হাতে ইউক্রেনের এক সেনা

ন্যাটোর এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ইউক্রেন যুদ্ধের একটি শিক্ষা হলো আমাদের মজুত নিয়ে আরও তথ্য ও স্বচ্ছতা প্রয়োজন। এক সপ্তাহ বা কয়েক ঘণ্টায় যা ব্যবহার করা সম্ভব তা পুনরায় সরবরাহ করতে কয়েক সপ্তাহ লাগতে পারে এবং উৎপাদন করতে লাগতে পারে কয়েক বছর।

নিশানা শনাক্তের জন্য উভয় পক্ষ ড্রোন ব্যবহার করছে। ইউক্রেনীয়রা বড় নিশানা, বেশি সশস্ত্র রুশ লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালাতে পশ্চিমাদের সরবরাহ করা হালকা, ভ্রাম্যমাণ অস্ত্র ব্যবহার করছে। কিন্তু উভয় সেনাবাহিনীর এবং ইউক্রেনীয় বেসামরিক ও অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ক্ষেপণাস্ত্র, রকেট ও বোমাবর্ষণের ফলে। এসব অস্ত্র বছরের পর বছর ধরে যুদ্ধে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

সাবেক মার্কিন কর্মকর্তা ফ্যাবিয়ান বলেন, আমরা যা দেখছি তা হলো আধুনিক চরিত্রের প্রচলিত যান্ত্রিক যুদ্ধ।

রুশ ট্যাংক ও সাঁজোয়া যানের হাত থেকে ইউক্রেনীয়রা নিজেদের রাজধানী কিয়েভ ও কয়েকটি শহর রক্ষা করেছে যুদ্ধের প্রথম কয়েক সপ্তাহে। এসময় তারা পশ্চিমাদের পাঠানো সহজে বহনযোগ্য রকেট লঞ্চার ব্যবহার করেছে।

ইজিউমের একটি ফ্রন্টলাইন

যুদ্ধের অপর শিক্ষা দীর্ঘ অভিজ্ঞতায় গড়ে উঠেছে। সংখ্যায় ও অস্ত্রে পিছিয়ে থাকা ইউক্রেনীয় সেনারা নিজেদের মাতৃভূমি রক্ষায় বীরত্বের সঙ্গে লড়াই করেছে। ফেব্রুয়ারিতে পশ্চিমা কর্মকর্তা যা ধারণা করেছিলেন তার চেয়ে বেশি সময় এবং আরও সফলতার সঙ্গে তারা যুদ্ধ করেছে।

ন্যাটোর মহাসচিব বলেছেন, লড়াইয়ের ইচ্ছা হলো নির্ধারক। শুধু ইউক্রেনীয় সেনাদের অঙ্গীকার নয়, নিজের দেশ রক্ষায় ইউক্রেনীয় জনগণের অঙ্গীকারও গুরুত্বপূর্ণ।

ইউক্রেনীয় সেনা ও প্রতিরক্ষা কর্মকর্তারা বলছেন, ন্যাটোর আট বছরের প্রশিক্ষণ এবং সেনা ও নতুন কমান্ড কাঠামোর ফলে নিম্নস্তরের সেনাদের ক্ষমতায়ন করা বড় পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।

অপর দিকে শীতল যুদ্ধের সময়কার সোভিয়েত ইউনিয়নের বিপুল পরিমাণ অসম্পূর্ণ অস্ত্র এখনও কাজে লাগছে: পরিমাণ নিজেই একটি গুণ।

রাশিয়ার কামান ও গোলার সরবরাহ নিশ্চিত থাকার ফলে গত কয়েক সপ্তাহে পূর্ব ইউক্রেনে অগ্রগতি অর্জন করেছে। এমনকি সেনাদের নৈতিক মান ও শৃঙ্খলার অবদমনের পরও এই অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে।

ন্যাটোর অবসরপ্রাপ্ত এক সিনিয়র কর্মকর্তা জ্যামি শেয়া বলেন, এমনকি একটি অদক্ষ সেনাবাহিনী কোনও দেশকে ধ্বংস করে দিতে পারে। একটি সেনাবাহিনী হয়ত খুব অনুপ্রাণিত নাও হতে পারে, তবে কামান অবশ্যই।

সূত্র: ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল

/এএ/
টাইমলাইন: ইউক্রেন সংকট
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ট্রলারডুবি, ১৩ জেলে নিখোঁজ
বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ট্রলারডুবি, ১৩ জেলে নিখোঁজ
হারারেতে ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ
হারারেতে ৪০০তম ওয়ানডে খেলার অপেক্ষায় বাংলাদেশ
ভারতে শেষ দিনে ছেলেরা হারলেও জিতেছে নারী দল
ভারতে শেষ দিনে ছেলেরা হারলেও জিতেছে নারী দল
তুরাগে ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ, মৃত্যু বেড়ে ৭
তুরাগে ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ, মৃত্যু বেড়ে ৭
এ বিভাগের সর্বশেষ
৯ বছরে প্রথমবার বিদ্যুতের দাম বাড়ালো শ্রীলঙ্কা
৯ বছরে প্রথমবার বিদ্যুতের দাম বাড়ালো শ্রীলঙ্কা
জেলেও সেলিব্রেটি অর্পিতা, বান্ধবীর খোঁজ নিলেন পার্থ
জেলেও সেলিব্রেটি অর্পিতা, বান্ধবীর খোঁজ নিলেন পার্থ
ক্রিমিয়ায় রুশ বিমান ঘাঁটির কাছে বিস্ফোরণ
ক্রিমিয়ায় রুশ বিমান ঘাঁটির কাছে বিস্ফোরণ
তীব্র বর্ষায় সিউলে ৮ জনের মৃত্যু
তীব্র বর্ষায় সিউলে ৮ জনের মৃত্যু
ফ্লোরিডায় ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআই’র অভিযান
ফ্লোরিডায় ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআই’র অভিযান