X
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
১ বৈশাখ ১৪৩১

বড়দের ভিড়ে সুবিধা করতে পারেনি ছোট প্রকাশনাগুলো

আবিদ হাসান
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:১১আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:১১

গত দুইবারের তুলনায় এবারের অমর একুশে বইমেলায় বিক্রি ও পাঠক সমাগম ছিল সন্তোষজনক। মেলার পরিবেশ নিয়ে পাঠক-দর্শনার্থী,  লেখক-প্রকাশকরা জানিয়েছেন এমন মেলা আগে কখনও হয়নি। তবে এই সফল বইমেলায় পিছিয়ে আছে ছোট প্রকাশনাগুলো। মেলার ২৭তম দিন সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বড় বড় প্রকাশনাগুলোতে ক্রেতাদের সমাগম দেখা গেলেও তুলনামূলক ছোট প্রকাশনাগুলোতে পাঠকদের আগ্রহ খুব একটা চোখে পড়েনি।

ছোটো প্রকাশনাগুলোর প্রকাশক ও বিক্রয়কর্মীরা জানান, বড় বড় প্রকাশনাগুলো প্যাভিলিয়ন পান, তাদের স্টলগুলোও বড় হয়। যার কারণে পাঠকদের নজরে পড়ে সেগুলো। আর তাই সেগুলোতে দর্শক-পাঠকরা ভিড় করেন বেশি। অন্যদিকে ছোট প্রকাশনাগুলোর স্টলও ছোটো হয়, আবার তা বেশিরভাগ সময় কর্নারে পড়ে যায়। যার ফলে পাঠকের আগ্রহ কম থাকে সেগুলোতে। স্বাভাবিক কারণেই এই ধরনের প্রকাশনার বিক্রি কম থাকে।

তবে তারা জানান, সব মিলিয়ে এবারের বইমেলা গত দুই মেলার চেয়ে অনেক ভালো ছিল। নিজেদের বিক্রি বাড়াতে আরও ভালো মানের বই ও নান্দনিক স্টল নির্মাণের পরিকল্পনা করা উচিত বলে জানান। এছাড়াও সবগুলো প্রকাশনীকে সমান স্টল দেওয়ার কথা ভাবতে বলেন বাংলা একাডেমিকে।

অভিযান প্রকাশের বিক্রয়কর্মী শরীফ মোর্তজা বলেন, এবারের মেলা গত দুই মেলার চেয়ে অনেক ভালো ছিল। যদিও বড় প্রকাশনাগুলোর তুলনায় আমাদের বিক্রি খুব একটা ভালো বলা যাবে না। তাদের প্যাভিলিয়ন বড়, যার কারণে দর্শকের চোখে পড়ে, আর তারা সেখানে যান। সবগুলো প্রকাশনাকে সমান আয়তনের স্টল দেওয়া উচিত বলে মনে করি। বড়দের ভিড়ে সুবিধা করতে পারেনি ছোট প্রকাশনাগুলো

সতীর্থ প্রকাশের প্রকাশক তাহমিদুর রহমান বলেন, মেলায় আমাদের বিক্রি তেমন একটা সুবিধার ছিল না। তবে সার্বিকভাবে মেলা ভালো হয়েছে। আমরা ছোট প্রকাশনী বলে একপাশে পড়ে গেছি।

কবিতা প্রকাশের বিক্রয়কর্মী নাহিদা সালমা বলেন, মেলায় আমাদের বিক্রি ভালো ছিল না। একপাশে স্টল পড়ে যাওয়ায় এদিকে লোকসমাগম তেমন একটা হয়নি। তাই বিক্রিও কম ছিল।

নতুন বই

২৭ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) মেলায় নতুন বই এসেছে ১৫৮টি। এরমধ্যে গল্পের বই ২৪, উপন্যাস ৯, কবিতা ৯, কবিতা ৬৭, গবেষণা ৭, ছড়া ২, জীবনী ৬, রচনাবলি ৩, মুক্তিযুদ্ধ ৩, নাটক ৩, বিজ্ঞান ২, ভ্রমণ ২, ইতিহাস ৩, রাজনীতি ২, চিকিৎসা ১, বঙ্গবন্ধু ৩, রম্য ১, ধর্মীয় ২, অনুবাদ ৪, অভিধান ১, সায়েন্স ফিকশন ১ ও অন্যান্য ৩টি।

আলোচনা অনুষ্ঠান

বিকাল ৪টায় বইমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বিশ্ববাঙ্গালির সাহিত্য’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আলম খোরশেদ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন এ. এফ. এম. হায়াতুল্লাহ, আ-আল মামুন এবং জসিম মল্লিক। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।

প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে আলম খোরশেদ বলেন, বিশ্ববাঙালি বলতে পুরো বিশ্বের বাঙালি সম্প্রদায়কেই বোঝানো হয়, যার মধ্যে বাঙালির সর্ববৃহৎ দুই ঠিকানা, বাংলাদেশ ও ভারতও অন্তর্ভুক্ত। এছাড়াও যে সব সাহিত্যিক দেশান্তরী হয়ে বিদেশে বসবাস করছেন এবং যারা বিদেশে অভিবাসনের পর সাহিত্যরচনা শুরু করেছেন তাদের সকলের সাহিত্যকেই বিশ্ববাঙালির সাহিত্য বলা যায়। এদের মধ্যে কবি, কথাসাহিত্যিক, নাট্যকার, প্রাবন্ধিক, গবেষক, শিশুসাহিত্যিক, মুক্তিযুদ্ধ গবেষক, ভ্রমণ সাহিত্যিক, অনুবাদক, বিজ্ঞান লেখকসহ সবধরনের লেখকই রয়েছেন। তাদের লেখায় প্রবাসজীবনের বিচিত্র অভিজ্ঞতা, অনুভূতি, উপলব্ধি, স্বদেশের স্মৃতি আখ্যান, অভিবাসী জীবনের সংগ্রাম, সংকট ও স্বপ্নের কথা প্রকাশিত হয়।

আলোচকবৃন্দ বলেন, বিশ্ববাঙালির সাহিত্যে প্রতিনিধিত্বকারী অনেক কবি, লেখক ও সাহিত্যিক বিশ্বের নানা প্রান্তে বসবাস করছেন। তাদের সাহিত্যের বহুমাত্রিকতা আমাদের সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে। বাংলা ভাষায় রচিত গ্রন্থের প্রতি প্রবাসী বাঙালিদের যথেষ্ট আগ্রহ রয়েছে। প্রবাসে বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের বাঙালিদের মধ্যেও বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের প্রতি আগ্রহ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্ববাঙালির সাহিত্যকে বেগবান করার ক্ষেত্রে অভিবাসী সাহিত্যিকদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, প্রবাসী লেখকরা তাদের লেখার মাধ্যমে স্মৃতিচারণ যেমন করেন, তেমনি বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের প্রতি ভালোবাসাও প্রকাশ করেন। দূরবিস্তারী চিন্তা ও বুদ্ধিবৃত্তিক গভীরতা সম্পন্ন লেখালেখির জন্য বিস্তৃত অধ্যয়ন প্রয়োজন। কিন্তু আমাদের প্রবাসীরা নানারকম সীমাবদ্ধতার মাঝে বসে সাহিত্য রচনা করেন। প্রবাসীরা যে ভাষাতেই লিখুন না কেন, তারা যেন মূল শেকড় থেকে বিচ্যুত না হন এবং বাংলা ভাষার প্রতি তাদের ভালোবাসা ধরে রাখতে পারেন।

লেখক বলছি

লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন জাহিন মুস্তাফা, মুমিত আল রশিদ, ফরিদ আহমদ দুলাল, আরেফিন রব।

বইমেলায় হুমায়ুন আজাদকে স্মরণ

বহুমাত্রিক লেখক হুমায়ুন আজাদের ওপর মৌলবাদী চক্রের সন্ত্রাসী হামলার বার্ষিকীতে ‘হুমায়ুন আজাদের দিবসের ডাক- পাইরেসিমুক্ত বইমেলা চাই'—প্রতিপাদ্যে একুশে বইমেলায় বিকাল ৫টায় তাকে স্মরণ করা হয়। লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের যৌথ উদ্যোগে বাংলা একাডেমির বর্ধমান হাউসের তথ্যকেন্দ্রের সামনে আয়োজিত এ সভার শুরুতে তার স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সভায় বক্তব্য প্রদান করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, কবি আসলাম সানী, কবি মোহন রায়হান, অধ্যাপক মেসবাহ কামাল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, হুমায়ুন আজাদের ভাই সাজ্জাদ কবীর, বাংলা একাডেমির পরিচালক ড. শাহাদাৎ হোসেন নিপু প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন আগামী প্রকাশনীর নির্বাহী ওসমান গনি।

বক্তারা বলেন, হুমায়ুন আজাদের হত্যাচেষ্টার বিচার অবিলম্বে বাস্তবায়ন এবং তার আদর্শে মৌলবাদ-জঙ্গিবাদ এবং সাম্প্রদায়িকতামুক্ত সমাজ-রাষ্ট্র গঠনের মাধ্যমেই তাকে যথাযোগ্যভাবে স্মরণ করা হবে।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ করেন রোকেয়া ইসলাম, শেখর বরণ, সৌম্য সালেক, খসরু পারভেজ, সুবর্ণ আদিত্য, জান্নাতুল ফেরদৌসী এবং থিউলি নকরেক। আবৃত্তি পরিবেশন করেন সাইমুন আনজুম ইভান, সিদ্দিকুর রহমান পারভেজ, অনন্যা রেজওয়ানা এবং ফারহানা তুর্ণা।

এছাড়া ছিল মিলন কান্তি দে’র রচনা ও নির্দেশনায় দেশ অপেরা যাত্রাপালার পরিবেশনা 'বঙ্গবন্ধুর ডাকে’। সংগীত পরিবেশন করেন ডা. রেজাউর রহমান, মো. আলী হোসাইন, মীর তারিকুল ইসলাম, পল্লবী সরকার মালতী, ঝরনা রায় ভাবনা, মুন্নি কাদের, আঁখি আলম, আরিফ বাউল, কামাল আহমেদ, মো. আরিফুর রহমান চৌধুরী।

বইমেলা সমাপনী অনুষ্ঠান

২৮ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অমর একুশে বইমেলা ও অনুষ্ঠানমালার সমাপনী দিন মেলা চলবে বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

বিকাল ৫টায় সমাপনী অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা ভাষণ প্রদান করবেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন অমর একুশে বইমেলা ২০২৩-এর সদস্য-সচিব ডা. কে এম মুজাহিদুল ইসলাম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবুল মনসুর। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

অনুষ্ঠানে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ সাহিত্য পুরস্কার ২০২২, কবি জসীমউদ্দীন সাহিত্য পুরস্কার ২০২৩ এবং অমর একুশে বইমেলা ২০২৩ উপলক্ষে বিভিন্ন গুণী স্মৃতি পুরস্কার প্রদান করা হবে।

/এমএস/
টাইমলাইন: অমর একুশে বইমেলা ২০২৩
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০:৪০
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২০:০৯
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:২৮
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:১১
বড়দের ভিড়ে সুবিধা করতে পারেনি ছোট প্রকাশনাগুলো
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:০০
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১:৪৬
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০০:১৯
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮:০৩
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০০:০৯
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:৩৪
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০০:৩৩
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৩:২৩
১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১:৩৩
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:৫২
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:৪৫
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২:২১
১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২:৫৩
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৬:১৮
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:২৬
০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২:৩৫
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২:৩৫
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৮:৫৪
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:৪১
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১:৩০
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩:৩৪
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭:২৩
০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১:৪৩
সম্পর্কিত
বইমেলা শেষ, কবে স্বরূপে ফিরবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান?
ব্রহ্মপুত্রপাড়ে পণ্ডিত বইমেলা, থাকবেন ক্ষুদ্র জাতি-গোষ্ঠীর সাহিত্যিক ও শিল্পী
সাঙ্গ হলো প্রাণের মেলা
সর্বশেষ খবর
ইরানের ৩০০টির বেশি ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিতের দাবি ইসরায়েলের
ইরানের ৩০০টির বেশি ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিতের দাবি ইসরায়েলের
যুদ্ধজাহাজের পাহারায় দুবাই নেওয়া হচ্ছে এমভি আবদুল্লাহকে 
যুদ্ধজাহাজের পাহারায় দুবাই নেওয়া হচ্ছে এমভি আবদুল্লাহকে 
বর্ণিল আয়োজনে বর্ষবরণ
বর্ণিল আয়োজনে বর্ষবরণ
ইসরায়েলকে সমর্থন দিয়ে আঞ্চলিক যুদ্ধের ঝুঁকি নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র: আরব আমেরিকান দল
ইসরায়েলকে সমর্থন দিয়ে আঞ্চলিক যুদ্ধের ঝুঁকি নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র: আরব আমেরিকান দল
সর্বাধিক পঠিত
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
আজ পহেলা বৈশাখ
আজ পহেলা বৈশাখ
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী