X
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
৯ ফাল্গুন ১৪৩০

আবাহনীর দুঃসময়ের কান্ডারি কাজী শাহেদ আহমেদ

তানজীম আহমেদ
২৯ আগস্ট ২০২৩, ১২:০৭আপডেট : ২৯ আগস্ট ২০২৩, ১৮:৫৩

বাংলাদেশের আধুনিক সাংবাদিকতার পথপ্রদর্শক দৈনিক আজকের কাগজের প্রকাশক ও সম্পাদক, জেমকন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন কাজী শাহেদ আহমেদ। পাশাপাশি ক্রীড়াঙ্গনের প্রতিও মনোযোগী ছিলেন সৃষ্টিশীল এই উদ্যোক্তা। ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে খ্যাতি লাভ করেন তিনি। দেশের প্রথম আধুনিক ক্লাব আবাহনী লিমিটেডের ডিরেক্টর ইনচার্জ হিসেবে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করে গেছেন কাজী শাহেদ আহমেদ।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের হাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের নির্মম মৃত্যুর পর তৎকালীন আবাহনী ক্রীড়া চক্র দিশেহারা হয়ে পড়েছিল। অনেকের রোষানলে পড়ে দল পরিচালনা ছিল কঠিন। ঠিক সে সময় কাজী শাহেদ আহমেদ এসে অন্যদের সঙ্গে আবাহনীর হাল ধরতে শুরু করেন। এরপরই একটু একটু করে প্রয়াত শেখ কামালের হাতে গড়া দলটি সঠিক দিশা পায়।

সেই সময় আবাহনী লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ ছিলেন কাজী শাহেদ আহমেদসহ অন্যদের সঙ্গে ক্লাব পরিচালনায়। সেই সময়ের স্মৃতিচারণ করে হারুনুর রশীদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘কাজী শাহেদ আহমেদ ছিলেন আবাহনীর দুঃসময়ের কান্ডারি। যখন ক্লাবের খারাপ অবস্থা যাচ্ছিল, উনি এসে অন্যদের সঙ্গে হাল ধরেন। এতে সবাই আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতে শুরু করেন। বিশেষ করে ওই সময়ে একজন আর্মি অফিসার আবাহনীর ক্লাব পরিচালনায় এসেছেন, তা ছিল আমাদের কাছে বড় প্রেরণার বিষয়।’

ক্লাবকে সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার পেছনে কাজী শাহেদের অবদানের কথা আরও তুলে ধরে হারুনুর রশীদ বলেন, ‘আজ আবাহনীর এত সাফল্য পাওয়ার পেছনে কাজী শাহেদের অনেক অবদান। তিনি সরাসরি খেলোয়াড় চিনতেন। মাঠে এসে খেলা দেখতেন। তিনি ছিলেন দারুণ উদ্যোমী একজন সংগঠক। তার মৃত্যুতে জাতি আজ সুযোগ্য একজন সংগঠক হারালো।’

আবাহনীর ফুটবল দলের প্রথম অধিনায়ক ও ক্লাবটির সাবেক পরিচালক আব্দুস সাদেকও শুরু থেকে সবকিছু দেখেছেন। তিনি শোক প্রকাশ করে বলেছেন, ‘এই তো ৫ আগস্ট শেখ কামালের জন্মদিনে ক্লাবে গিয়েছিলাম। তখন কাজী নাবিল, কাজী আনিস ও কাজী ইনামের সঙ্গে কথা হলো। কাজী শাহেদ আহমেদ কেমন আছেন জানতে চাইলাম। আগে থেকেই জানতাম শারীরিকভাবে অসুস্থ। ব্যাংককেও দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন। ওরাও তাই বলছিল। তার মৃত্যুর খবর শুনে অনেক খারাপ লাগছে।’

৭৫ পরবর্তী সময়ে কাজী শাহেদের অবদানের কথা তুলে ধরে সাদেক বলছিলেন, ‘কাজী শাহেদ আহমেদ খারাপ অবস্থায় আবাহনীর পরিচালনায় এসেছিলেন। দুঃসময়ে ক্লাবের পাশে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে ছিলেন। শামসুল ইসলাম ও কাজী শাহেদ আহমেদসহ অন্যরা মিলে খারাপ সময়ে আবাহনী আগলে রেখেছিলেন। আমরা কাজী শাহেদের বাসায়ও মিটিং করেছিলাম। ক্লাব গঠনে তার অবদান অনেক। এটা বলতেই হবে।’

কাজী শাহেদ আহমেদের মাঠের প্রতি ভালোবাসা নিয়েও সাদেক বলছিলেন, ‘মাঠেও নিয়মিত দেখা যেত তাকে। তার বড় ছেলে কাজী নাবিলসহ অন্যদের নিয়ে আবাহনীর প্রশিক্ষণ দেখতে আসতেন। খেলোয়াড়দের চিনতেন। দিকনির্দেশনা দিতেন। দল কীভাবে ভালো করবে তা নিয়ে বলতেন। বলতে পারেন আবাহনী অন্তঃপ্রাণ একজন ছিলেন তিনি।’

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনও খুব কাছ থেকে প্রয়াত কাজী শাহেদ আহমেদকে দেখেছেন। উনার মৃত্যুর খবর শুনে তিনি অনেকটা স্তম্ভিত হয়ে বলেন, ‘কাজী শাহেদ আহমেদ একজন ভালো সংগঠক ছিলেন। আবাহনীর দুঃসময়ে এসে ক্লাব পরিচালনায় যুক্ত হয়েছিলেন। তার মৃত্যুতে অনেক খারাপ লাগছে। আজ আসলে এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে পারছি না।’

আবাহনী ক্লাব পুনর্গঠনে দুই জনের অনুরোধে যুক্ত হন কাজী শাহেদ আহমেদ। তিনি তার আত্মজীবনী ‘জীবনের শিলালিপি’তে উল্লেখ করেছেন, ‘মোমেনুদ্দিন আহমেদ ও আবাহনী ক্লাবের জেনারেল সেক্রেটারি হারুন এলো। তারা দুজনেই অনুরোধ করলো আবাহনী ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হতে। আবাহনী ধানমন্ডির ক্লাব, আর আমি ধানমন্ডির জামাই। তাই আবাহনীর প্রতি আমার দায়িত্ব আছে– এরকম কথা বলে আমাকে দুর্বল করতে চেষ্টা করলো। কিন্তু তারা নাছোড়বান্দার মতোই লেগেই থাকলো। প্রায়ই আসতে লাগলো আমার কাছে।’

কাজী শাহেদ আহমেদ লিখেন, ‘শেষ পর্যন্ত তাদের অনুরোধে একদিন আবাহনী ক্লাবে গেলাম। ক্লাব বলতে একটি মাত্র ঘর, তাও ছাদ নেই। হারুন কোনও রকমে আবাহনীকে বাঁচিয়ে রেখেছে। ডা. মুসাও আবাহনীর জন্য নিবেদিতপ্রাণ মানুষ। সব দেখেটেখে সিদ্ধান্ত নিলাম আবাহনীতে প্রাণসঞ্চার করবো। এজন্য সবার আগে দরকার টাকার।’

আবাহনী ও মোহামেডানের খেলা নিয়ে কাজী শাহেদ আহমেদ আত্মজীবনীতে উল্লেখ করেন, ‘খেলা শেষে মারামারি অবধারিত। আবাহনী-মোহামেডানের সমর্থকরা পিটাপিটি করে কমসে কম রাত ১০টা পর্যন্ত। আর ওদিকে তখন আবাহনী-মোহামেডানের সব খেলোয়াড় কোনও হোটেল বা কোনও রেস্তোরাঁয় একসঙ্গে বসে স্যুপ বা চায়নিজ খাচ্ছে আর হুল্লোড় করছে।’

/টিএ/এসটিএস/এফএস/এমওএফ/
টাইমলাইন: কাজী শাহেদ আহমেদের জীবনাবসান
২৯ আগস্ট ২০২৩, ১২:০৭
আবাহনীর দুঃসময়ের কান্ডারি কাজী শাহেদ আহমেদ
২৯ আগস্ট ২০২৩, ০৪:০৪
সম্পর্কিত
জোনাথন ও হৃদয়ের গোলে জয়ে ফিরেছে আবাহনী
দুই ব্রাজিলিয়ানের নৈপুণ্যে আবাহনীর দারুণ জয়
কিংসের বিপক্ষে জ্বলে উঠতে পারবে আবাহনী?
সর্বশেষ খবর
বইমেলায় এখনও নজরুল-রবীন্দ্রনাথেই আগ্রহ বেশি
বইমেলায় এখনও নজরুল-রবীন্দ্রনাথেই আগ্রহ বেশি
দিল্লির ‘রাইসিনা ডায়ালগে’ ঢাকার মাসুদা ভাট্টি ও শেখ ফাহিম
দিল্লির ‘রাইসিনা ডায়ালগে’ ঢাকার মাসুদা ভাট্টি ও শেখ ফাহিম
বাগদাদে এশিয়া কাপ আর্চারিতে ফাইনালে বাংলাদেশ
বাগদাদে এশিয়া কাপ আর্চারিতে ফাইনালে বাংলাদেশ
এক্সপ্রেসওয়েতে ট্রাক-বাস সংঘর্ষে ৪ জন নিহত
এক্সপ্রেসওয়েতে ট্রাক-বাস সংঘর্ষে ৪ জন নিহত
সর্বাধিক পঠিত
দুঃখ ঘুচছে উত্তরের, দূরত্ব কমবে ১১২ কিমি
দুঃখ ঘুচছে উত্তরের, দূরত্ব কমবে ১১২ কিমি
লিবিয়ার ‘গেমঘর’ থেকে ফিরে নির্যাতনের লোমহর্ষক বর্ণনা তরুণের
মানবপাচারলিবিয়ার ‘গেমঘর’ থেকে ফিরে নির্যাতনের লোমহর্ষক বর্ণনা তরুণের
৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারীকে অবসর সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায়
এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারীকে অবসর সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায়
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে ‘নতুন অধ্যায়’: কী চায় দুই দেশ?
বইমেলা থেকে বের করে দেওয়ায় ডিবি কার্যালয়ে গেলেন হিরো আলম
বইমেলা থেকে বের করে দেওয়ায় ডিবি কার্যালয়ে গেলেন হিরো আলম