X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

ব্যাগের ভেতর শরীর নাকি পোড়া মাংসের দলা!

আপডেট : ১০ জুলাই ২০২১, ২২:৩৬

শনিবার বেলা ১১টার কিছু পর। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের মর্গ থেকে বেরিয়ে এলো মৃতদেহ বহনকারী ব্যাগে একে একে ১৫ জনের মরদেহ। গন্তব্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল। সেখানকার ফ্রিজে রাখা হবে। রক্তমাখা সাদা ব্যাগগুলোতে ছাই আর কালচে লাল দাগ। মর্গ থেকে স্ট্রেচারে করে লাশবাহী গাড়িতে যখন তোলা হচ্ছে তখনই লাগবে খটকা। ব্যাগগুলোতে কোনও শরীর আছে মনে হচ্ছে না। ব্যাগ প্রায় অর্ধেক ভাঁজ করে লাশবাহী গাড়িতে যে স্বেচ্ছাসেবক তুলছিলেন, তিনি বললেন, ‘ভেতরে শরীর নেই, সব পোড়া মাংসের দলা’। কে কার স্বজন চিনবে কীভাবে?

সান্ত্বনা খুঁজতে স্যাম্পল দিলেন স্বামী

কোন লাশ কোন স্বজনের সেটা চিনতে মর্গের পাশেই সিআইডির পক্ষ থেকে নেওয়া হচ্ছে স্বজনদের ডিএনএ স্যাম্পল। মা-বাবা কিংবা সন্তানের স্যাম্পল থেকে মিলিয়ে দেখা হবে ডিএনএ। বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই জেনেও স্যাম্পল দিয়েছেন তৌহিদুল। তিনি জানেন না কোন ব্যাগে আছেন তার স্ত্রী। আদৌ ছুঁয়ে দেখতে পাবেন কিনা তার হাত। ছয় বছরের ছোট্ট শিশু ও শশুর-শাশুড়ি নিয়ে মর্গে অপেক্ষা করছেন। ডিএনএ স্যাম্পল দিয়েছেন তারাও। আশায় আছেন, সন্তানের সঙ্গে তারটা মিলিয়ে যদি কোনোভাবে স্ত্রীর লাশের ব্যাগটা পাওয়া যায়!

তৌহিদুল বলেন, ‘কাল থেকে যা শুনছি তাই বিশ্বাস করছি। একজন বলে ওদিকে যান, আরেকজন বলে ওদিকে গেলে খোঁজ মিলবে। কে যেন বলল আমার স্ত্রীসহ ৪২ জন এক জায়গায় আটকা পড়েছিল। কেউ বেঁচে নেই। কিন্তু আমি কিছু জানি না।’

সিরামিক কারখানায় কাজ করেন তৌহিদুল। স্ত্রীর সঙ্গে শেষ কখন কথা হয়েছে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, ‘শেষ কথা আর হলো কই। কারখানায় মোবাইলই তো নিতে পারে না।’

সেলিনার ছবি নিয়ে মা আমেনা

ওভারটাইম ও একমাসের বেতন বাকি

মা আমেনা কাঁদতে কাঁদতে গলা বসিয়ে ফেলেছেন। হাতে ফুটফুটে সন্তানের ছবি। নাম সেলিনা। লাল জামায় তাকে যতই জীবন্ত মনে হোক, সে মর্গে নাকি নিখোঁজের তালিকায় জানা নেই। মেয়ে কী কাজ করতো জানতে চাইলে ভাঙা কণ্ঠে বলেন, চারতলায় ললিপপ কারখানায় কাজ করতো।

পাশের একজন বেতন নিয়ে কী যেন বলছিলেন। বেতন বাকি ছিল কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘ছিল না আবার! চাইরটা ওভারটাইম ও একমাসের বেতন বাকি। দেওনের নাম নাই। শ্রমিকরা অসন্তোষ করলে কয়দিন আগে দুইটা ওভারটাইম দিছে। মাইয়াটা ফুটফুটে ছিলগো আপা।’

নাজমার সন্তান

কে নারী, কে পুরুষ, কে শিশু!

শুক্রবার থেকেই ডিএনএ স্যাম্পল সংগ্রহের কাজ শুরু করে সিআইডি। সিআইডি (ফরেনসিক)-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুনিরুজ্জামান মুনির জানান, সংগ্রহকৃত নমুনা পরীক্ষা করে শনাক্তের কাজ করতে অন্তত ২১ দিন লাগবে। তারপর সেটি জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

এই ২১ দিন কী করবেন ফাতেমার সন্তান মোস্তাকিম? কী করবে নাজমার ছয় বছরের ছোট শিশু?

শুক্রবার ঘটনাস্থল থেকে মর্গ পর্যন্ত একাধিক স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছেন মৃতদেহ আনা নেওয়া ও হিসাব রাখার। মর্গের সামনে কাজ শেষে ফেরার পথে কথা হয় বাসমাহ ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক জাকারিয়া মিন্টোর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘এখনতো চেনার উপায়ই নেই। ব্যাগের হিসাব রাখা, কোনটা কোন হাসপাতালের ফ্রিজে পাঠানো হলো সেসব তথ্য আমরা সংরক্ষণ করছি। ব্যাগে দলা পাকানো মৃত পোড়া শরীর বলেই ভাঁজ করে ফেলা যাচ্ছে। কে নারী, কে পুরুষ আর কে শিশু বোঝার উপায় নেই।’

মর্গ থেকে স্ট্রেচার নিয়ে আসার সময় চোখ মুছছিলেন স্বেচ্ছাসেবক হানজালা। যতই অচেনা হোক, মরদেহের এমন দশা দেখে কান্না ধরে রাখতে পারেননি তিনি।

গাড়িতে ওঠানো ব্যাগগুলো দলাপাকানো কেন জানতে চাইলে বলেন, ভেতরে দলা পাকানো মাংসের টুকরা। সাধারণ মরদেহ এমন হয় না। গলা ধরে আসায় আর কিছু বলতে পারলেন না তিনি।

মর্গের সামনে সকাল থেকে জড়ো হওয়া স্বজনরা চোখের সামনে ১৫ মরদেহ অন্য হাসপাতালে নিতে দেখলেন। গাড়ির পেছন পেছন কিছুক্ষণ হাঁটলেন তারা। ব্যাগ চিনতে না পারলেও হয়তো ভাবছেন, কাছেই আছে প্রিয়জনের লাশ।

ডিএনএ  স্যাম্পল দিচ্ছেন স্বজনেরা

/এফএ/
টাইমলাইন: নারায়ণগঞ্জে জুস কারখানায় আগুন
১০ জুলাই ২০২১, ২২:১৪
ব্যাগের ভেতর শরীর নাকি পোড়া মাংসের দলা!
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ
পাঞ্জাবকে হারিয়ে প্লে-অফের আশায় দিল্লি
আইপিএলপাঞ্জাবকে হারিয়ে প্লে-অফের আশায় দিল্লি
৪ ঘণ্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল শুরু
৪ ঘণ্টা পর ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল শুরু
এশিয়ান কাপ ফুটবল: ছিটকে গেলেন বাংলাদেশ গোলকিপার
এশিয়ান কাপ ফুটবল: ছিটকে গেলেন বাংলাদেশ গোলকিপার
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত