সেকশনস

মুরগির দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রয়োজন টিকা আমদানি

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৬

জিশান হাসান ২০১৮ সাল জুড়েই একদিন বয়সের পোল্ট্রি মুরগি, ব্রয়লার ও ডিমের বাড়তি সরবরাহ ছিল। অতিরিক্ত জোগানের কারণে দামও ছিল বেশ কম। এতে ক্রেতারা খুশি ছিলেন বটে। তবে স্থানীয় পোল্ট্রি ব্যবসায়ীরা ক্ষতির মুখে পড়েছেন। সেই তুলনায় ২০১৯ সালে স্থানীয় বাজারে মুরগির দাম কিছুটা বেড়েছে। ফলে অভিযোগ উঠেছে, সরকারি বিভিন্ন সংস্থা ও সংবাদমাধ্যম ইচ্ছাকৃতভাবে কৃত্রিম পদ্ধতিতে দাম বাড়িয়েছে। তবে স্পষ্ট ধারণা পেতে হলে আমাদের পোল্ট্রি ফার্মে মুরগির রোগ ও টিকা ব্যবস্থার বাস্তবতার দিকে তাকাতে হবে।
সেই ২০০৯ সাল থেকে হাইলি প্যাথজেনিক এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা বা বার্ড ফ্লু রোগের কারণে অব্যাহত ক্ষতির শিকার হয়ে আসছে বাংলাদেশে পোল্ট্রি খাত। এই শিল্প বাঁচাতে সরকার এর টিকা আমদানির অনুমোদন দিয়েছে। প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল যেন এই রোগ মুরগি থেকে মানবদেহে প্রবেশ করতে না পারে।
তবে এই রোগের একটি নিম্নস্তরীয় ভাইরাস আছে, যার নাম লো প্যাথজেনিক এভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা (এলপিএআই)। পোল্ট্রি শিল্পের বাইরের বেশিরভাগ মানুষই এ ব্যাপারে সচেতন নয়। এটি এইচপিএআইয়ের মতো মানবদেহের ক্ষতিসাধন করে না। তবে এর কারণে মুরগি অসুস্থ হয়ে পড়ে। বাংলাদেশ সরকার এইচপিএআইয়ের টিকা আমদানির অনুমোদন দিয়েছে। কিন্তু এলপিএআইয়ের টিকার অনুমোদন দেয়নি। সরকার পোল্ট্রি ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দিয়েছে তারা যেন খামারের জৈব নিরাপত্তা বাড়িয়ে নিজেদের ক্ষতি পুষিয়ে নেন। এটা অবশ্যই সম্ভব, তবে এর জন্য স্বয়ংক্রিয় খাবার সরঞ্জাম লাগবে। কর্মীদের পরিচ্ছন্নতার জন্য গোসল সুবিধা লাগবে।
এদিকে আমরা বাজারে মুরগি ও ডিমের যে স্বল্পতা দেখতে পাচ্ছি তার কারণ হচ্ছে এলপিএআই টিকা না থাকা। আমাদের দেশের অনেক খামারিই এক হাজারের বেশি মুরগি প্রতিপালন করেন না। তাই এত কমসংখ্যক মুরগির জন্য জৈব-নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব নয়। ফলে শীতকালে জ্বরের মৌসুমে খামারিরা প্রায় সর্বস্বই হারিয়ে বসে।
ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস প্রাকৃতিকভাবেই মরে যায় সূর্যের তাপ আর অতি বেগুনি রশ্মির কারণে। তবে শীতকালে ওই তাপ ও রশ্মির উপস্থিতি কম থাকে বলে এলপিআইয়ে আক্রান্ত হওয়ায় মুরগির মৃত্যুহার অনেক বেড়ে যায়। ২০১৯ সালে শীতের জ্বরের মৌসুমের কারণে ২০১৮ সালের তুলনায় ডিম ও মুরগি সরবরাহ অনেক কমে গেছে।
পোল্ট্রি শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই এই সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আর এটা শুধু মূল্য নির্ধারণ করে সমাধান করা যাবে না। তবে সরকারি সংস্থাগুলো এই তড়িৎ সমাধানেরই প্রস্তাব দিচ্ছে। এর মূল সমাধান হতে পারে এলপিএআই টিকা আমদানির অনুমোদন দেওয়া। এতে করে ক্রেতার কাছে মুরগি ও ডিমের সরবরাহ বাড়বে। টিকার মাধ্যমে সরবরাহ নিশ্চিত করা গেলে দাম এমনিতেই স্থিতিশীল হয়ে আসবে।
পোল্ট্রি শিল্পের দিকে আঙুল না তুলে এবং দাম বাড়ানোর অভিযোগ না করে সরকারের উচিত এই রোগের কারণে যেই সমস্যা হয় তা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা। টিকা নীতির সঠিক প্রণয়নই এই সমস্যা কাটিয়ে পোল্ট্রি শিল্পকে সহায়তা করতে পারে।

লেখক: পরিচালক, টুএ মিডিয়া লিমিটেড



/এমএইচ /বিএ/এসএএস/এমএমজে/

*** প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব।

সম্পর্কিত

টেলিভিশন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ইংরেজি শেখা

টেলিভিশন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ইংরেজি শেখা

থোরিয়াম-নিউক্লিয়ার প্ল্যান্টে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার নতুন সম্ভাবনা

থোরিয়াম-নিউক্লিয়ার প্ল্যান্টে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার নতুন সম্ভাবনা

সর্বশেষ

নারী দিবসে ‘আঁধার ভাঙার শপথ’

নারী দিবসে ‘আঁধার ভাঙার শপথ’

নারী দিবস উপলক্ষে ৭ রূপে সেজেছেন নওশাবা

নারী দিবস উপলক্ষে ৭ রূপে সেজেছেন নওশাবা

৭ মার্চ উদযাপনে আহসান মঞ্জিলে আশতবাজির ঝলক

৭ মার্চ উদযাপনে আহসান মঞ্জিলে আশতবাজির ঝলক

স্বামী কাবিননামা না দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

স্বামী কাবিননামা না দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

বর্ণিল আতশবাজিতে ‘দাবায় রাখতে না পারার’ উদযাপন

বর্ণিল আতশবাজিতে ‘দাবায় রাখতে না পারার’ উদযাপন

সংগীতশিল্পী জানে আলম স্মরণে দোয়া ও সভা

সংগীতশিল্পী জানে আলম স্মরণে দোয়া ও সভা

কার্টুনিস্ট কিশোরের প্রয়োজন দুটো অপারেশন

কার্টুনিস্ট কিশোরের প্রয়োজন দুটো অপারেশন

নারী দিবসের উদযাপন হোক নিজের মতো

নারী দিবসের উদযাপন হোক নিজের মতো

নারী-পুরুষ সমতা কত দূর?

আন্তর্জাতিক নারী দিবস আজনারী-পুরুষ সমতা কত দূর?

বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তি ও স্বাধীনতার প্রতীক: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তি ও স্বাধীনতার প্রতীক: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

সুজনকে আইনি নোটিশ পাঠাইনি: রকিবুল

সুজনকে আইনি নোটিশ পাঠাইনি: রকিবুল

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.