X
বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪
৪ বৈশাখ ১৪৩১
নীলফামারী জেনারেল হাসপাতাল

বেসিন নেই, কল নষ্ট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শোচনীয়

তৈয়ব আলী সরকার, নীলফামারী
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:০৩আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:০৩

নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে প্রতিদিন গড়ে তিনশ’র বেশি রোগী ভর্তি থাকে। একজন রোগীর সঙ্গে অন্তত দুই-তিন জন স্বজন আসেন। পাশাপাশি বহির্বিভাগেও সেবা নেন অনেকে। কিন্তু রোগীর তুলনায় হাসপাতালে শৌচাগারের সংখ্যা খুবই কম। কোনও ওয়ার্ডের শৌচাগারেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। ফলে প্রতিদিন দুর্ভোগে পড়ছেন চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনরা। তারা জানান, হাসপাতালে হাত-মুখ ধোয়ার বেসিন নেই, পানির কল নষ্ট, টয়লেটের ভেতরে ময়লা ভর্তি, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাও শোচনীয়।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের ৩০ জানুয়ারি হাসপাতালটি ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয় পুরো কার্যক্রম।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) হাসপাতালের বিলবোর্ডে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে লিলি বাঁশফোরের নাম দেখা যায়। কিন্তু দুপুর ১২টায়ও তাকে কর্মস্থলে পাওয়া যায়নি।

সূত্র জানায়, হাসপাতালের শৌচাগারগুলো দিনে অন্তত একবার পরিষ্কার করার কথা। পর্যাপ্ত জনবলের অভাবে সেগুলো অপরিষ্কার থাকে। রোগীর চাপ থাকায় শৌচাগারগুলো তাড়াতাড়ি নোংরা হয়। বেসিন নেই, কল নষ্ট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শোচনীয়

সরেজমিনে দেখা যায়, ডায়রিয়া ওয়ার্ডে একটি টয়লেটে পানি জমে আছে। বাকি শৌচাগারগুলো নোংরা ও অপরিষ্কার। পুরুষ ওয়ার্ডের শৌচাগারের অবস্থাও তাই। প্যানের ওপর ময়লা ভেসে আছে। নেই স্বাস্থ্যবিধির কোনও বালাই।

অপরদিকে, মহিলা ওয়ার্ডের শৌচাগারে সাবান, টিস্যু বা স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা নেই। সার্জারি ওয়ার্ডে শৌচাগারের অবস্থা আরও শোচনীয়। টয়লেটের উপরিভাগে আবর্জনার স্তূপ।

নবজাতক ওয়ার্ডে গিয়েও একই অবস্থা দেখা যায়। ১০ বিছানার রোগী ও স্বজনদের জন্য একটি টয়লেট। লাইন ধরে টয়লেটে যেতে হয়। নেই শিশুদের ময়লা ফেলার কোনও ব্যবস্থা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ওয়ার্ডে চিকিৎসা নেওয়া একজন মা জানান, তিন দিন হলো হাসপাতালে এসেছেন। একদিনও টয়লেট যেতে পারেননি। বাইরে থেকে সব কাজ সেরে আসতে হয়।

পুরুষ ওয়ার্ডের জমাদার (লিডার) পরিতোষ চক্রবর্তী জানান, ২৮ জানুয়ারি পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা ছুটি নিয়ে জেলার ডোমার উপজেলায় বিয়ে বাড়িতে গিয়েছিল। তারা ছুটিতে থাকায় টয়লেটগুলো অপরিষ্কার ছিল।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমিও আজ ছুটিতে ছিলাম, এ জন্য শৌচাগারগুলো একটু নোংরা। আশা করি, এমন পরিস্থিতি আর হবে না।’

তদারকির দায়িত্বে নিয়োজিত ওয়ার্ড মাস্টার স্বপন মিয়াও একই কথা বলেন।

হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রোকসানা পারভীন বলেন, ‘চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের অধিকাংশই গ্রামের। তারা অতটা সচেতন না। বারবার বলার পরও দেয়ালে পানের পিক, টয়লেটের ওপরে পায়খানা-প্রস্রাব করে। তাদের বলার কিছু নেই। পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা প্রতিদিন সকালে টয়লেটগুলো পরিষ্কার করে চলে যায়।’

নীলফামারী সদরের ইটাখোলা ইউনিয়নের কানিয়ালখাতা গ্রামের নাজিরা বেগম (৪৫) শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি হন। তিনি বলেন, ‘টয়লেটগুলোর অবস্থা এতটাই খারাপ যে সুস্থ মানুষ সেখানে গেলে অসুস্থ হয়ে পড়বে। সবাই নাক-মুখ চেপে ধরে টয়লেট ব্যবহার করছে। অনেকেই পাশের বাড়িতে গিয়ে শৌচকার্য সারছে।’

পুরুষ ওয়ার্ডের ১৩ নম্বর বিছানার রোগী আক্কাস আলী (৫৫) বলেন, ‘আমি দুই দিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি আছি। আমার বিছানাটি টয়লেটের পাশে হওয়ায় অনেক কষ্টে আছি। দুর্গন্ধে জীবন যায় যায় অবস্থা।’ বেসিন নেই, কল নষ্ট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শোচনীয়

আক্কাস আলী ছাড়াও আশেপাশের বিছানার রোগীরা একই কথা বলেন। তবে হাসপাতালের নার্স, ডাক্তার ও পেয়িং ওয়ার্ডের ব্যবহৃত শৌচাগারগুলো যথেষ্ট পরিষ্কার দেখা গেছে।

জানতে চাইলে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. মো. গোলাম রসুল রাখি বলেন, ‘আমি ছুটিতে আছি। বিষয়টি নিয়ে কিছুই বলতে পরবো না।’

এক প্রশ্নের জবাবে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আবু আল হাজ্জাজ বলেন, ‘শুধু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে দায়ী করলে চলবে না। যারা সেবা নিতে আসে তাদেরও একটা দায়িত্ব আছে। কিন্তু তারা সেটা পালন করেন না। তাছাড়া, পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা কর্মস্থলের বাইরে থাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে।’

পেয়িং বেডগুলোর শৌচাগারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সেখানে প্রতিদিন রোগীকে ২০০ টাকা বিল পরিশোধ করতে হয়। এ জন্য সেখানে রোগী কম, ময়লাও কম হয়। আমি নিজেই প্রতিদিন ওয়ার্ড ঘুরে সবকিছু দেখে আসি।’

/আরকে/এমএস/
টাইমলাইন: নাগরিক শৌচাগার চিত্র
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪:০৩
বেসিন নেই, কল নষ্ট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শোচনীয়
২০ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:০১
সম্পর্কিত
আসন্ন বাজেটে ওয়াশ খাতের বরাদ্দে অগ্রাধিকার দেওয়ার আহ্বান
রাজধানীতে প্রতি ৭৫ হাজার মানুষের জন্য একটি টয়লেট
এক কারাগারে ধারণক্ষমতার তিনগুণ বন্দি, শৌচাগার সংকটে ভোগান্তি
সর্বশেষ খবর
গলায় কই মাছ আটকে কৃষকের মৃত্যু
গলায় কই মাছ আটকে কৃষকের মৃত্যু
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন: কোন পদে লড়ছেন কে
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন: কোন পদে লড়ছেন কে
মেট্রোরেল চলাচলে আসতে পারে নতুন সূচি
মেট্রোরেল চলাচলে আসতে পারে নতুন সূচি
দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল আরোহী মামা-ভাগনে নিহত
দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেল আরোহী মামা-ভাগনে নিহত
সর্বাধিক পঠিত
‘ভুয়া ৮ হাজার জনকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে’
‘ভুয়া ৮ হাজার জনকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে’
হজ নিয়ে শঙ্কা, ধর্ম মন্ত্রণালয়কে ‍দুষছে হাব
হজ নিয়ে শঙ্কা, ধর্ম মন্ত্রণালয়কে ‍দুষছে হাব
এএসপি বললেন ‌‘মদ নয়, রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলাম’
রেস্তোরাঁয় ‘মদ না পেয়ে’ হামলার অভিযোগএএসপি বললেন ‌‘মদ নয়, রাতের খাবার খেতে গিয়েছিলাম’
এবার নায়িকার দেশে ‘রাজকুমার’ 
এবার নায়িকার দেশে ‘রাজকুমার’ 
‘আমি এএসপির বউ, মদ না দিলে রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেবো’ বলে হামলা, আহত ৫
‘আমি এএসপির বউ, মদ না দিলে রেস্তোরাঁ বন্ধ করে দেবো’ বলে হামলা, আহত ৫