X
শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২
১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

পদ্মা সেতুর দুর্নীতির গুজব সৃষ্টিকারীদের খুঁজতে তদন্ত কমিশন গঠন কতদূর?

বাহাউদ্দিন ইমরান
২৫ জুন ২০২২, ২৩:০০আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ১২:৩৮

শনিবার (২৫ জুন) উদ্বোধন হলো বহুল প্রতীক্ষিত ও প্রত্যাশিত স্বপ্নের পদ্মা সেতু। এই সেতু নির্মাণকে ঘিরে বিভিন্ন সময়ে দুর্নীতির নানান গুজব ছড়ানো হয়েছে। কিন্তু কে বা কারা সেসব গুজব ছড়িয়েছিল? এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে তদন্ত কমিশন গঠনের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এরপর দীর্ঘ পাঁচ বছরের বেশি সময় অতিবাহিত হলেও বাস্তবায়ন হয়নি হাইকোর্টের সেই আদেশ।

২০১১ সালের এপ্রিল মাসে যুগান্তকারী উন্নয়নের প্রতীক পদ্মা সেতু নির্মাণে বাংলাদেশের সঙ্গে বিশ্বব্যাংকের ১২০ কোটি মার্কিন ডলারের ঋণচুক্তি হয়। তবে সেতুর পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে দরপত্রে অংশ নেওয়া এসএনসি-লাভালিনের সঙ্গে বাংলাদেশি কর্মকর্তাদের দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে বিশ্বব্যাংক ২০১২ সালের ২৯ জুন ঋণচুক্তিটি বাতিল করে।  সরকারের অনুরোধে একই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর এ প্রকল্পে পুনরায় সম্পৃক্ত হতে রাজি হলেও তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত অর্থায়ন করতে অসম্মতি জানায় বিশ্বব্যাংক।

ওই একই ঘটনায় বিশ্বব্যাংকের শর্তের কারণে তৎকালীন যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনকে মন্ত্রিত্বও ছাড়তে হয়। সাবেক সেতু সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে ওএসডি করা হয়। এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমানের নামও দুর্নীতির অভিযোগের সঙ্গে যুক্ত হয়। এরপর দীর্ঘ টানাপড়েনের পর ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকার বিশ্বব্যাংককে ‘না’ বলে দেয় এবং নিজস্ব অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর বিশ্বব্যাংককে বাদ দিয়েই নিজস্ব অর্থায়নে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করে বাংলাদেশ।

জানা যায়, পদ্মা সেতু প্রকল্পের কাজ তদারকির পাঁচ কোটি ডলারের কাজ পেতে এসএনসি-লাভালিনের কর্মীরা ২০১০ ও ২০১১ সালে বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের ঘুষ দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন বলে মামলা হয়েছিল কানাডার আদালতে। আদালত এ অভিযোগের কোনও প্রমাণ না পেয়ে কানাডীয় প্রকৌশল সংস্থা এসএনসি-লাভালিনের তিন সাবেক কর্মকর্তাকে খালাস প্রদান করেন। অন্টারিও সুপিরিয়র কোর্ট এ রায় দেন।

রায়টি প্রকাশের পর পদ্মা সেতু প্রকল্পের দরপত্র প্রক্রিয়ায় বিশ্বব্যাংকের দুর্নীতির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়ে যায়। এছাড়া বিশ্বব্যাংকের চাপে দুর্নীতি দমন কমিশনও (দুদক) একটি মামলা দায়ের করেছিল। ২২ মাস তদন্ত শেষে দুদকের তদন্তকারীরা ২০১৪ সালে জানিয়ে দেন— পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির কোনও প্রমাণ তারা পাননি। ফলে দেশে-বিদেশে কোনও আদালতেই পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির প্রমাণ মেলেনি।

সেসব ঘটনারও দীর্ঘদিন পর পদ্ম সেতু নির্মাণের  পেছনে ষড়যন্ত্রকারীদের বিষয়ে দৈনিক ইনকিলাবে ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘ইউনূসের বিচার দাবি: আওয়ামী লীগ ও সমমনা দলগুলো একাট্টা’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। একইসঙ্গে এ জাতীয় অন্যান্য দৈনিকের প্রতিবেদনেও শান্তিতে নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ অনেকের নাম উঠে আসে। ২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি  সেসব প্রতিবেদন বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ’র সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে উপস্থাপন করা হয়। প্রতিবেদনগুলো আমলে নিয়ে স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুলসহ আদেশ দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্ট পদ্মা সেতুর দুর্নীতি নিয়ে গুজব সৃষ্টিকারী ও প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করার জন্য কমিশন গঠনের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। একইসঙ্গে তাদের কেন বিচারের মুখোমুখি করা হবে না— রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যানকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

এছাড়া ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজতে ‘ইনকোয়ারি অ্যাক্ট ১৯৬৫ (৩ ধারা)’ অনুসারে কমিশন বা কমিটি গঠন এবং এ বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে,  ৩০ দিনের মধ্যে তা আদালতকে অবহিত করতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এরপর কয়েকদফা সময় নেওয়ার পরও কমিশন গঠন না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন হাইকোর্ট। সর্বশেষ ২০১৭ সালের ৯ নভেম্বর সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে কমিশনের সদস্য হিসেবে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক (কারিগরি) মো. কামরুজ্জামানের নাম সুপারিশ করা হয়। কিন্তু এরপর থেকে দীর্ঘ পাঁচ বছরে মামলাটির আদেশের আর কোনও অগ্রগতি হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পদ্মা সেতুর আইন উপদেষ্টা ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুন নুর দুলাল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরাও চাই, পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের নাম জনগণের সামনে বেরিয়ে আসুক। দীর্ঘদিন ধরে মামলাটির শুনানির তালিকা পড়েনি। তবে আগামী কোরবানির ঈদের পর আমরা সেতু বিভাগের সঙ্গে আলাপ করবো। আলাপ করে তবেই মামলার বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।’

একই বিষয়ে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, মামলাটি কার্যতালিকায় এলে আমরাও এ বিষয়ে শুনানির উদ্যোগ নেবো।

/এপিএইচ/
টাইমলাইন: পদ্মা সেতু টাইমলাইন
২৬ জুন ২০২২, ১০:০০
২৫ জুন ২০২২, ২৩:০০
পদ্মা সেতুর দুর্নীতির গুজব সৃষ্টিকারীদের খুঁজতে তদন্ত কমিশন গঠন কতদূর?
২৫ জুন ২০২২, ১৩:১৮
২৫ জুন ২০২২, ১১:৫৯
মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা
মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা
ফরেন মিনিস্ট্রি স্পাউস অ্যাসোসিয়েশনের চ্যারিটি বাজার
ফরেন মিনিস্ট্রি স্পাউস অ্যাসোসিয়েশনের চ্যারিটি বাজার
ক্ষমতায় এলে সব হিসাব নেবো: রুমিন ফারহানা
ক্ষমতায় এলে সব হিসাব নেবো: রুমিন ফারহানা
এক সিনেমায় প্রভাসের তিন নায়িকা
এক সিনেমায় প্রভাসের তিন নায়িকা
সর্বাধিক পঠিত
প্রেমের টানে পেরু যাওয়া নারীর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে দিলো প্রেমিক
প্রেমের টানে পেরু যাওয়া নারীর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে দিলো প্রেমিক
সচিব সভায় ১০ নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী
সচিব সভায় ১০ নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী
নিষিদ্ধ হচ্ছেন রাশমিকা!
নিষিদ্ধ হচ্ছেন রাশমিকা!
তেহরানকে রাজি করালো ঢাকা, আইওরা’র ডায়ালগ পার্টনার সৌদি
তেহরানকে রাজি করালো ঢাকা, আইওরা’র ডায়ালগ পার্টনার সৌদি
আয়াতের ছোট্ট দেহটি ৬ টুকরো করে স্বজনদের যা বলেছিল ঘাতক
আয়াতের ছোট্ট দেহটি ৬ টুকরো করে স্বজনদের যা বলেছিল ঘাতক