X
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

তালেবানের অংশগ্রহণ চায় পাকিস্তান, বাতিল হলো সার্ক বৈঠক: এএনআই

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫৯

নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক সহযোগিতা সংগঠন সার্ক সদস্য দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের একটি বৈঠক বাতিল হয়েছে। আগামী শনিবার এ বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। বিশ্বাসযোগ্য সূত্রের বরাতে ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, পাকিস্তান চেয়েছিল সার্ক বৈঠকে আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করুক তালেবান।

তবে ভারতসহ কয়েকটি সদস্য দেশ এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করে। ফলে ঐক্যমত বা সম্মতির অভাবে বৈঠকটি বাতিল হয়ে গেছে।

বৈঠকটির আয়োজক ছিল নেপাল। প্রতিবছর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের পার্শ্ববৈঠক হিসেবে সার্ক সদস্যদের বৈঠক হয়ে থাকে।

তালেবানকে এখনও স্বীকৃতি দেয়নি ভারত। কাবুলের নতুন শাসকদের এখনও বিশ্ব স্বীকৃতি মেলেনি। আর তালেবান মন্ত্রিসভার কয়েক সদস্য এখনও জাতিসংঘের নিষিদ্ধ তালিকায় রয়েছেন।

তালেবান নেতৃত্বাধীন আফগান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি। তিনি সম্ভবত জাতিসংঘের এবং এর অনুমোদিত কোনও বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারছেন না।

দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক সহায়তা সংগঠন সার্ক। এর সদস্য দেশগুলো হলো বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, মালদ্বীপ, নেপাল, পাকিস্তান ও শ্রীলংকা।

এএনআই জানিয়েছে, সার্কের সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য বৈঠকে আফগানিস্তানের জন্য একটি চেয়ার খালি রাখতে সম্মত হয়েছিলেন। তবে পাকিস্তান তাতে রাজি হয়নি। ফলে বাতিল হয়ে যায় বৈঠকটি।

সার্ক সচিবালয় জানিয়েছে, সব সদস্য দেশের সম্মতির অভাবে বৈঠকটি বাতিল হয়ে গেছে।

/জেজে/এমওএফ/
টাইমলাইন: আফগানিস্তান সংকট
০৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১০
২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩৩
তালেবানের অংশগ্রহণ চায় পাকিস্তান, বাতিল হলো সার্ক বৈঠক: এএনআই
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:২৫
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:২৯

সম্পর্কিত

৭০ বছর বয়সে সন্তানের জন্ম

৭০ বছর বয়সে সন্তানের জন্ম

বৃষ্টি প্লাবিত উত্তরাখণ্ডে ৩৪ জনের মৃত্যু

বৃষ্টি প্লাবিত উত্তরাখণ্ডে ৩৪ জনের মৃত্যু

ভারতীয় সাবমেরিনের ‘অনুপ্রবেশ’ ঠেকানোর দাবি পাকিস্তানের

ভারতীয় সাবমেরিনের ‘অনুপ্রবেশ’ ঠেকানোর দাবি পাকিস্তানের

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২৭

সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণযোগ্য ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র সফলভাবে পরীক্ষা চালানোর বিষয়টি স্বীকার করেছে উত্তর কোরিয়া। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবারের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার রয়েছে।

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর সময় উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন এতে উপস্থিত ছিলেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ২০১৬ সালের পরীক্ষাতেও একই জাহাজ থেকে ছোড়া হয়েছিল।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ১০টা ১৭ মিনিটের দিকে সিনপো শহর বা সংলগ্ন কোনও স্থান থেকে এটি নিক্ষেপ করা হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের (জেসিএস) জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূল সংলগ্ন জাপান সাগরে ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপ করা হয়।

সিউল ধারণা করছে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রটি ৬০ কিলোমিটার উচ্চতা নিয়ে ৪৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত  ভ্রমণ করেছে। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে উত্তর কোরিয়ার একের পর এক এ ধরনের কর্মকাণ্ড ‘খুবই দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা। 

সম্প্রতি উত্তর কোরিয়া বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোয় পিয়ংইয়ং হাইপারসনিক ও দূরপাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের পাশাপাশি বিমানবিধ্বংসী অস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর দাবি করে। এ বিষয়ে প্রতিবেশি দেশ জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া গভীর উদ্বেগ জানিয়ে আসছে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

জাপান সাগরে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ উত্তর কোরিয়ার

জাপান সাগরে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ উত্তর কোরিয়ার

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

গোপনে চীনের হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র ঘুরলো পৃথিবীর কক্ষপথ

গোপনে চীনের হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র ঘুরলো পৃথিবীর কক্ষপথ

উ. কোরিয়ায় অনাহারের ঝুঁকিতে শিশু ও বয়স্করা: জাতিসংঘ

উ. কোরিয়ায় অনাহারের ঝুঁকিতে শিশু ও বয়স্করা: জাতিসংঘ

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৫৩

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস থেকে উড্ডয়নের পরই একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। দুর্ঘটনায় অলৌকিকভাবে বেঁচে গেছেন ২১ আরোহী। বিমানটি বিধ্বস্তের পরপরই আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার হিউস্টন এক্সিকিউটিভ বিমানবন্দর থেকে বোস্টনের উদ্দেশে যাত্রা করে দ্য ম্যাকডোনেল ডগলাস এমডি-৮০ বিমানটি। উড্ডয়নের সাথে সাথেই যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিলে ৫০০ ফুট দুরুত্বে বিমানটি আছড়ে পড়ে। খবর পেয়ে দ্রুত যাত্রী ও ক্রুদের বের করে আনতে সক্ষম হন উদ্ধারকারীরা।

তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই বিধ্বস্ত বিমানে আগুন ধরে যায়। দমকল কর্মীদের চেষ্টার পরও বিমানের বেশিরভাগ অংশই পুড়ে গেছে। ছবিতে দেখা গেছে, দমকল কর্মীরা বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজটির আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন। এক বিবৃতিতে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ‘তিন ক্রুসহ ২১ আরোহী সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন’। এ ঘটনায় তিনজন সামন্য আহত হয়েছেন। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এই ঘটনার কারণ এখনও উদঘাটন করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে তদন্ত শুরু করেছে প্রশাসন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত হতে পারেন পথচারীও, পুলিশের সতর্কতা

ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত হতে পারেন পথচারীও, পুলিশের সতর্কতা

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৫

যুক্তরাজ্যে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় আবারও বিধি-নিষেধ আরোপের চাপ বাড়ছে। সোমবার দেশটিতে একদিনেই ৪৯ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় শনাক্ত। একইদিন মারা গেছেন প্রায় ২২৩ জন। যা গত মার্চের পর এটিই সর্বোচ্চ। এ অবস্থায় সংক্রমণের লাগাম টানতে সরকারকে ফের বিধিনিষেধ আরোপের আহ্বান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

গত সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের পরিসংখ্যান অফিসের তথ্যমতে, ইংল্যান্ডের ৬০ জনের মধ্যে একজন করোনা ভাইরাস বহন করছিলেন। যা এখন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। যুক্তরাজ্যে ডেল্টা, দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টেরও উপস্থিত রয়েছে। ফলে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিধিনিষেধ না থাকায় সংক্রমণ দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে বাড়ছে মৃত্যুর হারও।

সমালোচনার মুখেই গত জুলাইয়ে যুক্তরাজ্য থেকে সব ধরণের বিধি নিষেধ প্রত্যাহার করে নেয় বরিস জনসন সরকার। এরপর থেকেই ধীরে ধীরে নাইট ক্লাব, বার, পার্কসহ সব জায়গায়তেই সাধারণ মানুষের উপচে পড়া ভিড়। আর এতে কোভিডের সংক্রমণ বাড়ছে।

যুক্তরাজ্যজুড়ে করোনার প্রতিষেধক টিকা কার্যক্রম অব্যাহত থাকা সত্বেও লাগাম টানা যাচ্ছে না ভাইরাস। ব্রিটিশরা মহামারীর আগের স্বাভাবিক জীবনযাপন করার কারণে সংক্রমণ বাড়ছে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

অনূর্ধ্ব ১২ বছরের শিশুদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার চিন্তা ইইউ-এর

অনূর্ধ্ব ১২ বছরের শিশুদেরও ভ্যাকসিন দেওয়ার চিন্তা ইইউ-এর

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

জার্মানিতে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু এ সপ্তাহেই!

জার্মানিতে নতুন সরকার গঠনের প্রক্রিয়া শুরু এ সপ্তাহেই!

পতিতাবৃত্তি বিলুপ্তির অঙ্গীকার স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রীর

পতিতাবৃত্তি বিলুপ্তির অঙ্গীকার স্প্যানিশ প্রধানমন্ত্রীর

ইয়েমেন যুদ্ধে ১০ হাজার শিশু হতাহত : ইউনিসেফ

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪১

জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা- ইউনিসেফ জানিয়েছে, ইয়েমেনে ২০১৫ সাল থেকে শুরু হওয়া যুদ্ধে এ পর্যন্ত ১০ হাজার শিশু হতাহত হয়েছে। একে ‘লজ্জাজনক মাইলফলক’ অ্যাখা দিয়েছে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার জেনেভায় এক ব্রিফিং-এ ইউনিসেফের মুখপাত্র জেসম এলডার বলেন, ‘ইয়েমেন সংঘাতে হতাহতের বিষয়ে নতুন এক লজ্জাজনক মাইফলকে পৌঁছেছে। দীর্ঘদিনের যুদ্ধের কবলে পড়ে ১০ হাজার শিশু নিহত অথবা চিরতরে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়েছে। এ পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশটিতে প্রতিদিন চারজন শিশু নিহত হয়েছে। অনেক শিশুর মৃত্যু বা আহতের খবর অপ্রকাশিত বলেও জানান তিনি’।

এভাবে সংঘাত চলতে থাকলে হতাহতের সংখ্যা বাড়ার শঙ্কা জানিয়ে যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানান জেমস এলডার। ইয়েমেনের শিশুদের জীবন রক্ষার কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য ২০২২ সালের মাঝামাঝি পর্যন্ত ২৩৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থ সহায়তার প্রয়োজনের কথা তুলে ধরেন তিনি। তা না হলে দেশটির শিশুদের সাহায্য বন্ধ করতে বাধ্য হবে ইউনিসেফ।

২০১৫ সালের মার্চে হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান পরিচালনা শুরু করে সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো। তারপর থেকে এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। কয়েক লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। পুরো ইয়েমেন দুর্ভিক্ষের মুখে রয়েছে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তানে বিকল্প পথে ত্রাণ সহায়তা পাঠালো জাতিসংঘ

আফগানিস্তানে বিকল্প পথে ত্রাণ সহায়তা পাঠালো জাতিসংঘ

তালেবান শিগগিরই মেয়েদের শিক্ষা পরিকল্পনা ঘোষণা করবে : জাতিসংঘ

তালেবান শিগগিরই মেয়েদের শিক্ষা পরিকল্পনা ঘোষণা করবে : জাতিসংঘ

ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলায় ১৬০ হুথি বিদ্রোহী নিহত

ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলায় ১৬০ হুথি বিদ্রোহী নিহত

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো বালি দ্বীপ, নিহত ৩

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো বালি দ্বীপ, নিহত ৩

ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত হতে পারেন পথচারীও, পুলিশের সতর্কতা

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫০

যুক্তরাষ্ট্রের ফিলাডেলফিয়ার এক কমিউটার ট্রেনে গত সপ্তাহে ধর্ষণের শিকার হন এক নারী। পুলিশ জানিয়েছে, ওই ঘটনা কর্তৃপক্ষের নজরে আনতে এবং নারীটিকে সহায়তায় ব্যর্থ পথচারীরাও অপরাধে অভিযুক্ত হতে পারেন।

কর্তৃপক্ষ বলছে, সিসিটিভি ক্যামেরায় দেখা গেছে ট্রেনে যেসব পথচারী ছিলেন তারা হামলা ঠেকাতে কোনও ‘কিছুই করেননি’। পুলিশ বলছে, কিছু পথচারী আবার পুলিশ ডাকার বদলে ঘটনাটির ছবি ধারণের চেষ্টা করেন। এই ঘটনায় এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত ধর্ষণে অভিযুক্ত হয়েছেন।

দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় পেনিনসিলভানিয়া পরিবহন কোম্পানির (সেপ্টা) মালিকানাধীন ট্রেনটিতে গত বুধবার এই ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। সেপ্টার এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই ভয়াবহ ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করা আরও অনেকেই ট্রেনটিতে ছিলেন, এবং একজনও যদি ৯১১ এ কল করতেন তাহলে আরও আগে ঘটনাটি শনাক্ত হতে পারতো।

ট্রেনটিতে থাকা সেপ্টার এক কর্মী পুলিশকে ফোন করেন। তিনি আক্রান্তকে খুঁজে পান এবং সন্দেহভাজনকে হেফাজতে নেন।

৩৫ বছর বয়সী সন্দেহভাজন ফিসন নগয় এখন ধর্ষণ এবং আরও কয়েকটি অপরাধে অভিযুক্ত। আক্রান্তকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে এবং এখন পুলিশকে সহায়তা করছেন।

সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারী আক্রান্ত এবং প্রায় ৪০ মিনিট ধরে ধর্ষণের শিকার হলেও কোনও প্রত্যক্ষদর্শী ৯১১ এ ফোন করেননি। ঘটনার সময় ট্রেনটিতে কতোজন ছিলেন তা এখনও স্পষ্ট নয়। সেপ্টা পুলিশ প্রধান থমাস জে নেসেল বলেন, ‘আপনাদের বলতে পারি হামলার শিকার নারীর দিকে অনেক পথচারীই ফোন তাক করে রেখেছিলেন।’

আপার ডারবি পুলিশ বিভাগের প্রধান টিমোথি বার্নহার্ডট নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, যেসব পথচারী নারীটিকে  সহায়তা করতে ব্যর্থ হয়েছেন এবং ঘটনাটি রেকর্ড করেছেন তারা অপরাধে অভিযুক্ত হতে পারেন। পুরো ঘটনার তদন্ত শেষে সম্ভাব্য অপরাধের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ডেলাওয়ার কাউন্টি জেলা অ্যাটর্নির কার্যালয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বিরুদ্ধে ঠিক কোন অভিযোগ আনা হতে পারে তা স্পষ্ট করা হয়নি। তবে টিমোথি বার্নহার্ডট বলেছেন, যারা হামলা দেখেছেন কিন্তু সহায়তা করেননি তাদের অভিযুক্ত করা কঠিন হয়ে যেতে পারে।

সূত্র: বিবিসি

/জেজে/

সম্পর্কিত

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা অস্বীকার চীনের

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

চলে গেলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কলিন পাওয়েল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

৭০ বছর বয়সে সন্তানের জন্ম

৭০ বছর বয়সে সন্তানের জন্ম

বৃষ্টি প্লাবিত উত্তরাখণ্ডে ৩৪ জনের মৃত্যু

বৃষ্টি প্লাবিত উত্তরাখণ্ডে ৩৪ জনের মৃত্যু

ভারতীয় সাবমেরিনের ‘অনুপ্রবেশ’ ঠেকানোর দাবি পাকিস্তানের

ভারতীয় সাবমেরিনের ‘অনুপ্রবেশ’ ঠেকানোর দাবি পাকিস্তানের

ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে বিনিয়োগ করবে দুবাই

ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে বিনিয়োগ করবে দুবাই

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

পদত্যাগ করছেন যুক্তরাষ্ট্রের আফগানিস্তান বিষয়ক দূত জালমে খলিলজাদ

আফগানিস্তানে বিকল্প পথে ত্রাণ সহায়তা পাঠালো জাতিসংঘ

আফগানিস্তানে বিকল্প পথে ত্রাণ সহায়তা পাঠালো জাতিসংঘ

নারীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফেরা নিয়ে যা বললো তালেবান

নারীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফেরা নিয়ে যা বললো তালেবান

আফগানিস্তানে আগামী মাস থেকেই পোলিও টিকাদান: জাতিসংঘ

আফগানিস্তানে আগামী মাস থেকেই পোলিও টিকাদান: জাতিসংঘ

সর্বশেষ

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

© 2021 Bangla Tribune